Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ০১ জুন ২০২০, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৮ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

তরুণ হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভে উত্তাল কাশ্মীর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ মে, ২০২০, ১২:০৫ এএম

ভারত শাসিত কাশ্মীরের এক তল্লাশি চৌকিতে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে এক তরুণ নিহত হয়েছে। বুধবার এই ঘটনার পর সেখানে ভারত বিরোধী বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। কোনও কোনও স্থানে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষেও জড়িয়েছে বিক্ষোভকারীরা। ভারতের সেন্ট্রাল রিজার্ভ ফোর্সের দাবি সংকেত অমান্য করে ওই তরুণ তল্লাশি চৌকির দিকে এগিয়ে আসলে গুলি ছোঁড়া হয়। তবে প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, সেনা সদস্যদের সংকেত পাওয়ার পর গাড়ি থামিয়েছিলেন ওই তরুণ। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় মার্চের শেষ দিক থেকে কাশ্মীরে কঠোর লকডাউন চলছে। তবে তা সত্তে¡ও সম্প্রতি ওই অঞ্চলে সন্ত্রাসী বিরোধী অভিযান জোরালো করেছে ভারত। অপর দিকে বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলোও সরকারি বাহিনী ও তাদের সন্দেহভাজন সহায়তাকারীদের ওপর পাল্টা হামলা চালাচ্ছে। এরমধ্যে বুধবার কাশ্মীরের মূল শহর শ্রীনগরের একটি তল্লাশি চৌকিতে এক তরুণ নিহত হয়। ভারতীয় বাহিনীর দাবি সংকেত অমান্য করে ওই তরুণ গাড়ি চালিয়ে এগিয়ে আসতে থাকলে সেনা সদস্যরা গুলি ছোঁড়ে। তাদের দাবি ওই সময়ে একটি সামরিক বহর ওই এলাকা অতিক্রম করায় হামলার আশঙ্কা করছিলেন তারা। ওই তরুণের বাবা গুলাম নবি শাহ নিরাপত্তা বাহিনীর দাবি প্রত্যাখ্যান করেছেন। তিনি বলেন তার ছেলে কোনও তল্লাশি চৌকির মধ্য দিয়ে গাড়ি চালায়নি। সেনাবাহিনী প্রথমে তাকে থামিয়ে পরে গুলি করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। ফিরদৌসা নামে এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান সংকেত পাওয়ার পর ওই তরুণ গাড়ি থেকে নেমে পড়ে। তিনি বলেন, ‘এক নিরাপত্তা কর্মকর্তা কিছু বললে জবাবে ওই তরুণ জানায় তার জরুরি কাজ আছে। তারা ওই ব্যক্তিকে যেতে বলে কিন্তু গাড়িতে ওঠার পর তার পিছন দিক দিয়ে গুলি করা হয়।’ প্রত্যক্ষদর্শী এই নারী বলেন, ‘তাকে ইচ্ছাকৃতভাবে হত্যা করা হয়েছে। সে কোনও ভুল করেনি।’ ওই তরুণের মৃত্যুর খবর তার গ্রামে পৌঁছালে হাজার হাজার নারী-পুরুষ রাস্তায় নেমে আসে। ভারত বিরোধী স্লােগান দেওয়ার পাশাপাশি তারা ওই তরুণের মরদেহ পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানায়। আল-জাজিরা।



 

Show all comments
  • MD.JUBAER HASAN ১৫ মে, ২০২০, ১:৫১ এএম says : 0
    অন্য ধর্মের কেও নিরপরাধ মুসলিমদের মারলে সমস্যা নেই।আর মুসলিমরা যান মান বাঁচানোর জন্য কাওকে ঘুষি মারলেও সেটা আন্তর্জাতিক সংবাদে পরিণত হয়। আফসোস আমারা মুসলিম হয়ে কাফের দের পক্ষে কথা বলি।
    Total Reply(0) Reply
  • Miah Adel ১৫ মে, ২০২০, ৩:১৪ এএম says : 0
    বাংলাদদেশে ফেলানী নামে এক তরুণীকে পশুর মত হত্যা করার রেকর্ডও এই বদমায়েশদের রয়েছে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাশ্মীর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ