Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

‘তিন হাজারী’ কোহলির ডাবলস

প্রকাশের সময় : ২৩ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : নতুন কোচ, সাবেক স্পিন কিংবদন্তি অনিল কুম্বলের অধীনে শুরুটা ভালো করার যে প্রত্যয় শুনিয়েছিলো ভারত, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের প্রথম টেস্টে তা প্রতীয়মান হয়েছে অক্ষরে অক্ষরে। তবে শুরুটা কিন্তু ভালো ছিলোনা সফরকারীদের। ধীর আউটফিল্ড, উইকেটও মন্থর; ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলাররাও বাজে বল দেননি খুব একটা। এন্টিগুয়া টেস্টের প্রথম দিন রানের জন্য তাই ঘাম ঝরাতে হল ভারতকে। এর মধ্যেই দারুণ এক শতকে সিরিজের সুরটা বেঁধে দিয়েছেন অতিথি দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। কোহলির দৃঢ়তা আর শিখর ধাওয়ানের অর্ধশতকে প্রথম টেস্টের প্রথম দিন শেষে ভালো অবস্থানেই ছিলো ভারত। টস জিতে ব্যাট করতে নামা দলটির সংগ্রহ ছিলো ৪ উইকেটে ৩০২ রান। কোহলি ১৪৩ ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন ২২ রানে ব্যাট করছিলেন।  টেস্টে কোহলির এটি দ্বাদশ শতক। রাহুল দ্রাবিড় ও কপিল দেবের পর ভারতের তৃতীয় অধিনায়ক হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে শতক করলেন তিনি। ১৯৭ বলের ইনিংসটি তার ১৬টি চার সমৃদ্ধ। গতকাল সেখান থেকে নিজেকে আরও উচ্চতায় নিয়ে গেছেন ভারত দলপতি। শতককে ২শ’র দরজা দিয়েছেন মারমুখী এই ব্যাটসম্যান। ভারতীয় অধিনায়কদের মধ্যে এই ইনিংসটি স্থান করে নিয়েছে সর্বোচ্চের তালিকায় পঞ্চমে। রিপোর্টটি খেলা পর্যন্ত (১১৯) ৪ উইকেট হারানো ভারতে সংগ্রহ ৪০৪ (লাঞ্চ পর্যন্ত)। ২০০ রানে অপরাজিত ছিলেন কোহলিম আর ফিফটি পূর্ণ করা আশ্বিনের খাতায় জমা পড়েছে ৬৩ রান।
আগের দিন স্যার ভিভিয়ান রিচার্ড স্টেডিয়ামের মন্থর উইকেটে ভারতের শুরুটা সহজ ছিল না। সুশৃঙ্খল বোলিংয়ে প্রথম সেশনে অতিথিদের টপ অর্ডারের ভালো পরীক্ষাই নেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেসাররা। গতি আর বাড়তি বাউন্সে ভারতের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানকে স্বস্তি দিচ্ছিলেন না শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। অন্য প্রান্তে অধিনায়ক জেসন হোল্ডারের আঁটসাঁট বোলিং সহায়ক ছিল চাপ ধরে রাখার জন্য। লোকেশ রাহুলকে পেছনে ফেলে এন্টিগা টেস্টে খেলা শিখর ধাওয়ান ভাগ্যর কিছুটা সহায়তাও পেয়েছেন। গ্যাব্রিয়েলের বাউন্সার কয়েকবার অল্পের জন্য তার ব্যাটের কানা নেয়নি। পরপর চারবার পরাস্ত হলেও কোনোমতে বেঁচে যান তিনি।
ভাগ্য ততটা সহায়ক ছিল না মুরালি বিজয়ের। ওয়েস্ট ইন্ডিজে আবার ব্যর্থ হয়েছেন এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান। গ্যাব্রিয়েলের লাফিয়ে উঠা বলে সিøপে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন তিনি। ক্রেইগ ব্রেথওয়েইট তালগোল পাকিয়েও শেষ পর্যন্ত বল তালুবন্দি করেন। এই ইনিংসসহ ওয়েস্ট ইন্ডিজে ৭ ইনিংসে বিজয়ের রান ৭৯।
নড়বড়ে শুরুর পর থিতু হওয়ার সুবিধা কাজে লাগাতে থাকেন ধাওয়ান। তবে দ্বিতীয় সেশনের প্রথম ওভারেই নিজের উইকেট উপহার দেন চেতেশ্বর পুজারা। বিশুর শর্ট বলে পুল করতে গিয়ে বল তার ব্যাটের কানায় লেগে পয়েন্টে সহজ ক্যাচ উঠে যায়। এবার কোনো ভুল ছাড়াই তালুবন্দি করেন ক্রেইগ ব্রেথওয়েইট। লাঞ্চের আগে শেষ ওভারে আবার আঘাত হানেন গত অক্টোবরের পর প্রথম টেস্ট খেলতে নামা বিশু। এই লেগ স্পিনারের বল সুইপ করতে গিয়ে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন ধাওয়ান।
মাঝের সময়টুকুতে রাজত্ব করেন কোহলি-ধাওয়ান। তৃতীয় উইকেটে এই দুই জনে ২৭.১ ওভারে গড়েন ১০৫ রানের জুটি। ভারতের ইনিংসে যে গতির অভাব ছিল তা পূরণ করেন অধিনায়ক কোহলি। প্রথম ১০ বলের মধ্যে দুটি চার আদায় করে নেন তিনি। দ্বিতীয় চারে ৭৩তম ইনিংসে টেস্টে তিন হাজার রানের মাইলফলক অতিক্রম করেন ভারতের অধিনায়ক। সাত ইনিংসে কোহলির সঙ্গে ধাওয়ানের চতুর্থ পঞ্চাশ বা বেশি রানের জুটি শেষ হয় উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানের বিদায়ে। একাদশে জায়গা হারানোর শঙ্কায় থাকা ধাওয়ান ৯টি চার আর একটি ছক্কায় ১৪৭ বলে করেন ৮৪ রান।

স ং ক্ষি প্ত স্কো র
ভারত ১ম ইনিংস : ১১৯ ওভারে ৪০৪/৪ (বিজয় ৭, ধাওয়ান ৮৪, পূজারা ১৬, কোহলি ২০০*, রাহানে ২২, অশ্বিন ৬৩*; গ্যাব্রিয়েল ১/৫৬, হোল্ডার ৮৩/০, কার্লোস ব্রেথওয়েইট ০/৬৭, চেস ০/৫৭, বিশু ৩/১৩১, ক্রেইগ ব্রেথওয়েইট) দ্বিতীয় দিন আংশিক

অধিনায়ক হিসেবে ভারতের সর্বোচ্চ ইনিংস
ব্যাটসম্যান    রান    প্রতিপক্ষ    তারিখ
ধোনি    ২২৪    অস্ট্রেলিয়া    ২২ ফেব্রু. ২০১৩
শচীন    ২১৭    নিউজিল্যান্ড    ২৯ অক্টো. ১৯৯৯
গাভাস্কার    ২০৫    ওয়েস্ট ইন্ডিজ    ১ ডিসে. ১৯৭৮
পাতৌদি    ২০৩*    ইংল্যান্ড    ৮ ফেব্রু. ১৯৬৪
কোহলি    ২০০*    ওয়েস্ট ইন্ডিজ    ২১ জুলাই ২০১৬
*রিপোর্টটি লেখা পর্যন্ত ব্যাট করছিলেন কোহলি



 

Show all comments
  • Md. Abuhanif ২৩ জুলাই, ২০১৬, ৮:৫৭ এএম says : 0
    I mean Koholi is the best cricketer in the world.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।