Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ আশ্বিন ১৪২৭, ০৮ সফর ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

মাদকের হোম ডেলিভারি

করোনায়ও থেমে নেই মাদক ব্যবসা

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ মে, ২০২০, ১২:০১ এএম

কক্সবাজার থেকে লবণের ট্রাকে করে অভিনব পন্থায় রাজধানীতে প্রায় ৮হাজার পিস ইয়াবা নিয়ে আসার সময় দুই মাদক ব্যবসায়ী ও একটি ট্টাক জব্দ করে র‌্যাব। গত রোববার রাজধানীর মোহাম্মদপুর জহুরা মার্কেট সংলগ্ন চাঁদ উদ্যান বেড়িবাঁধ এলাকায় মাদকসহ ট্টাকটি জব্দ করা হয়। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়লেও এই দুর্যোগকালে নিত্যনতুন কৌশলে মাদকের চোরাচালান বন্ধ হচ্ছে না। কখনও ত্রাণবাহী কিংবা জরুরি পণ্যবাহী বাহনে, কখনও পায়ুপথে, কখনও-বা যানবাহনের ইঞ্জিনের কাভারে গন্তব্যে পৌঁছে যাচ্ছে গাঁজা, ফেনসিডিল কিংবা ইয়াবা। লকডাউনের মধ্যে মাদকসেবীদের দেয়া হচ্ছে হোম ডেলিভারিও। আইন-শৃংখলা বাহিনী সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
আইন-শৃংখলা বাহিনীর কর্মকর্তারা বলছেন, সারাদেশে অপরাধ কমলেও মাদকের চালান আসছেই। লকডাউনের মধ্যে সবজি, চাল, ডাল ও অ্যাম্বুলেন্সে স্থানান্তর হচ্ছে ইয়াবা। প্রায় প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও ইয়াবা, ফেনসিডিল বা গাঁজার চালান ধরা পড়ছে। করোনার এই সময়েও পুলিশ ও র‌্যাব মাদকবিরোধী অভিযানে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য জব্দ করা হচ্ছে। মাদকবিরোধী অভিযানে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হচ্ছে মাদক ব্যবসায়ীরা। র‌্যাবের একজন কর্মকর্তা দৈনিক ইনকিলাবকে জানান, মাদক পাচারের ট্রানজিট হিসেবে রাজধানী ঢাকাকে ব্যবহার করছে মাদক ব্যবসায়ীরা। মিয়ানমার থেকে নৌ-পথে আসা ইয়াবার চালানগুলো কক্সবাজার থেকে সড়ক ও রেল পথে ছড়িয়ে পড়ছে সারাদেশে। তাছাড়া সীমান্ত পথে ভারত থেকেও ইয়াবাসহ নানা ধরনের মাদক দেশে আসছে। লকডাউনের মধ্যে মাদকসেবীদের মাদক হোম ডেলিভারি দেয়া তথ্য আমাদের কাছে রয়েছে। আমরা সব বিষয় মাথায় রেখেই কাজ করছি।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক লে. কর্নেল সারওয়ার-বিন-কাশেম জানান, করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যেও র‌্যাব সদস্যরা মাদকের চোরাচালান, সন্ত্রাসী, ছিনতাই, ডাকাতি বিশেষ করে জঙ্গি দমনে কাজ করে যাচ্ছে। করোনায় ফাঁকা সড়কে মাদকের চোরাচালান বন্ধে সক্রিয় নজরদারি রেখেছে র‌্যাব সদস্যরা। এর মধ্যে অনেকেই ধরা পড়ছে।

র‌্যাব-২ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি জাহিদ আহসান জানান, রোববার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে র‌্যাব-২ এর একটি দল জানতে পারে, কক্সবাজার থেকে একটি ট্রাকে মাদক ব্যবসায়ীরা ইয়াবার চালান নিয়ে গাবতলী হয়ে মোহাম্মদপুর বেড়িবাধের ওপর দিয়ে মোহাম্মদপুর এলাকায় বিক্রির উদ্দেশে নিয়ে আসছে। ওই তথ্য পাওয়ার পর সাড়ে ১২টার দিকে মোহাম্মদপুর এলাকার জহুরা মার্কেট সংলগ্ন চাঁদ উদ্যান বেড়িবাঁধের গ্রীন ভাইন করপোরেশনের সামনে ওৎপেতে থাকে র‌্যাব সদস্যরা। ওই এলাকায় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে ট্রাক থামিয়ে দ্রৌড়ে পালানোর সময় মো. মঞ্জু (৩৪) এবং মো. ইয়াসিন(২১) নামে দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। পরে ব্যাপক জিঞ্জাসাবাদে ইয়াবার চালানের কথা স্বীকার করে তারা। তাদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী লবণের ট্রাকে অভিনব পস্থায় লুকিয়ে রাখা ৭ হাজার ৭০০ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়। তিনি আরো বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজার, চট্টগ্রাম এবং টেকনাফ সীমান্ত এলাকা থেকে ইয়াবা ক্রয় করে ট্রাকযোগে বিভিন্ন মালামাল পরিবহনের অন্তরালে সুকৌশলে ঢাকায় এনে সরবরাহ ও বিক্রি করে আসছিল তারা। এর আগে তারা বেশ কয়েকটি ইয়াবার চালান আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারি ফাঁকি দিয়ে সরবরাহ করেছে।

পুলিশ সদর দফতরের এআইজি (মিডিয়া) সোহেল রানা বলেন, করোনার মধ্যে পুলিশ অনেক বেশি মানবিক কাজে জড়িত। এরই মধ্যে রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলায় মাদকের কারবার বন্ধে কাজ করছে পুলিশ সদস্যরা। মাদকের ব্যাপারে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতির বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।
মাদক পরিবহন ও ব্যবসার সাথে জড়িতদের শনাক্ত করে গ্রেফতার এবং কঠোর হস্তে দমন করার জন্য পুলিশ সদর দফতর থেকে মাঠ পর্যায়ের সকল পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

র‌্যাব সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার ১২ মে শ্যামলী শিশু মেলার সামনে থেকে পেটের ভেতরে বিশেষ কায়দায় লুকিয়ে ইয়াবা বহন ও মাদক ক্রয়-বিক্রয় করার সময় বাবুল ওরফে হালু (৩৫) ও সুমন নামে দুজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এ সময় তাদের কাছ থেকে নগদ ১৮ লাখ টাকা জব্দ করা হয়। সুমনের পেট থেকে বিশেষ কায়দায় বের করা হয় ৫৫টি পলিথিনে মোড়ানো ২ হাজার ৪৭৫ পিস ইয়াবা। র‌্যাব-২ এর আরেকটি দল গত ৯ মে দুপুরে মোহাম্মদপুরের টাউন হল থেকে আলুবোঝাই পিকআপ ভ্যানের পাটাতনের বিশেষ চেম্বারে লুকিয়ে আনা ৫০০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধারসহ ৫ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে। গত ৬ মে নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ থানাধীন কাঞ্চন পৌরসভার কালাদী এলাকায় চেকপোস্ট বসিয়ে মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত একটি জিপ ও ৪০কেজি গাঁজা জব্দ এবং দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। র‌্যাব-১ জানায়, জব্দ জিপটির সামনে ‘পুলিশ’ লেখা সাদা কাগজের স্টিকার লাগানো ছিল।



 

Show all comments
  • ash ২১ মে, ২০২০, ৬:৩২ এএম says : 0
    JE DESH E BODIR MOTO MODOK PACHAR KARI DER SHUROKHA DAY ? SHE DESH E MADOK PACHAR KI VABE BONDHO HOBE ??
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মাদক

২১ জুলাই, ২০২০
৩০ আগস্ট, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন