Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭, ১৩ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

টঙ্গীতে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ধর্ষণ মামলার আসামি নিহত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ মে, ২০২০, ১০:৩৫ এএম

গাজীপুরের টঙ্গী এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে ´বন্দুকযুদ্ধে´ আবু সুফিয়ান নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে টঙ্গীর মধুমিতা রেললাইন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থল থেকে তিন রাউন্ড গুলি ও একটি বিদেশি অস্ত্র উদ্ধার করেছে র‌্যাব। র‌্যাবের দাবি, নিহত আবু সুফিয়ান চাঞ্চল্যকর শিশু চাঁদনী (৭) হত্যা ও ধর্ষণের প্রধান আসামি। সে সিরিয়াল ধর্ষক।

র‌্যাব-১ এর গাজীপুর কোম্পানি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, গত ১৬ই মে টঙ্গী মধুমিতা রেলগেট এলাকার একটি ময়লার স্তূপ থেকে চাঁদনী নামের প্রথম শ্রেণির মাদরাসার ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই শিশুকে ধর্ষণের পর গলা টিপে এবং দুই পায়ে আঘাত করে নির্মমভাবে হত্যা করা হয় বলে তদন্তে ও ময়নাতদন্তে উঠে আসে। চাঞ্চল্যকর ওই ঘটনায় মো. নিলয় (১৫) নামের এক তরুণকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

গত রোববার রাত আড়াইটার দিকে র‌্যাব-১ এর একটি আভিযানিক দল টঙ্গী পূর্ব থানাধীন রেলস্টেশন এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। পরদিন নিলয় আদালতে সে ও আবু সুফিয়ানসহ ওই শিশুকে ধর্ষণ করে ব‌লে জবানবন্দি দেয়। তদন্তে জানা যায়, শুধু এই শিশু নয়, আরও ৪/৫টি ধর্ষণের ঘটনা সঙ্গে জড়িত এই আবু সুফিয়ান।

লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, গ্রেপ্তার নিলয়ের দেয়া তথ্যে র‌্যাব-১ অভিযানে নামে। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায় সুফিয়ান টঙ্গী মধুমিতা রেললাইন এলাকায় বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিচ্ছে।

ওই তথ্যে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে র‌্যাব-১ অভিযানে যায়। এ সময় সুফিয়ান র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলিবর্ষণ করে। র‌্যাবও আত্মরক্ষার্থে গুলি ছোড়ে। বন্ধুরা পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয় সিরিয়াল ধর্ষক আবু সুফিয়ানের লাশ। একই ঘটনায় এএসআই আতোয়ার ও কনস্টেবল সেলিম নামে দুই র‌্যাব সদস্য আহত ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নিহত


আরও
আরও পড়ুন