Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০২০, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৪ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

দুস্থ নারী ফুটবলারদের পাশে সাবেকরা

২০০ জনকে নগদ অর্থ প্রদান সেলিমের

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ মে, ২০২০, ১২:০৮ এএম

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্থ দেশের অসহায় ও দুস্থ নারী ফুটবলারদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে সাবেক নারী ফুটবলারদের সংগঠন বাংলাদেশ এক্স উইমেন্স ফুটবল প্লেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন। ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে বর্তমানদের ঈদ উপহার দিচ্ছেন সাবেক নারী ফুটবলাররা। বাংলাদেশ এক্স উইমেন্স ফুটবল প্লেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন দেশের প্রত্যেকটি জেলার ৫ থেকে ৭ জন দুস্থ নারী ফুটবলার বেছে নিয়ে তাদের কাছে ঈদ সামগ্রী পাঠিয়ে দিচ্ছে। এখন থেকে দু’বছর আগে আত্নপ্রকাশ করে নারী ফুটবলারদের এই সংগঠন। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা শরিফা অদিতি। যিনি বতর্মানে নারী ফুটবল লিগে বসুন্ধরা কিংসের কোচ। এছাড়া বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য মাহি উদ্দিন আহমেদ সেলিম তার নিজ জেলা সিলেটে করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্থ ফুটবলার, কোচ, সংগঠক মিলিয়ে ২০০ জনকে নগদ অর্থ দিয়ে সহায়তা করেছেন।
দুস্থ নারী ফুটবলারদের ঈদ উপহার প্রসঙ্গে মাহমুদা শরিফা অদিতি বলেন, ‘আমি নিজের উদ্যোগে দুস্থ ফুটবলারদের পাশে এসে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছি। তবে এই কাজে আমাকে সহায়তা করেছেন আমার কিছু বন্ধু-বান্ধব ও সহকর্মীরা। সব মিলিয়ে আমরা পুরো দেশে যতটুকু সম্ভব দুস্থ নারী ফুটবলারদের ঈদ উপহার দেয়ার চেষ্টা করছি।’ ৬৪ জেলা থেকে বাছাই করা দুস্থ নারী ফুটবলার সব মিলিয়ে ৪০০ জনের মতো হবে। তাদের হাতে ঈদ উপহার তুলে দিতে কমপক্ষে দেড় লাখ টাকার প্রয়োজন। যার পুরোটাই যোগান দিচ্ছে বাংলাদেশ এক্স উইমেন্স ফুটবল প্লেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন। সাবেক ফুটবলার অদিতি বলেন, ‘আজ কালের মধ্যে ৫০ ভাগ মেয়ের কাছে উপহার পৌঁছে যাবে। বাকিটা ঈদের পর দিতে হবে। কারণ সাইক্লোনে আমাদের কাজে ব্যঘাত ঘটেছে। আমরা প্রতিটি জেলায় একজনের কাছে মোবাইলে টাকা পাঠিয়ে দিচ্ছি। তারা তালিকাভুক্ত মেয়েদের কাছে ঈদসামগ্রী কিনে পৌঁছে দিচ্ছে। উদাহরণ হিসেবে বলতে পারি- রাজশাহীতে বন্যা, নারায়ণগঞ্জে সুখী, কুড়িগ্রামে মিনা, সিরাজগঞ্জের আঁখির কাছে টাকা পাঠিয়ে দিয়েছি। তারা নিজেদের উদ্যোগে ঈদ উপহার কিনে দুস্থ মেয়েদের কাছে পৌঁছে দেবে।’
এদিকে বাফুফে সদস্য মাহি উদ্দিন আহমেদ সেলিম নিজ জেলা সিলেটে করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্থ ফুটবলার, কোচ, সংগঠক মিলিয়ে ২০০ জনকে নগদ অর্থ সহায়তা দেয়ার পাশাপাশি করোনাকালীন সময়ে সংকটে থাকা সিলেটের ১৩ উপজেলার ক্রীড়া পরিবারের প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকা করে অনুদান দিয়েছেন। বুধবার বিকেলে জেলা স্টেডিয়ামে ফুটবল, ক্রিকেট, হকি, ভলিবল, অ্যাথলেটিক্স, কাবাডি ও ব্যাডমিন্টনের সঙ্গে সম্পৃক্ত সাবেক, বর্তমান খেলোয়াড় ও ক্রীড়া সংগঠকদের হাতে আর্থিক অনুদান তুলে দেয়া হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দুস্থ-নারী
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ