Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০২০, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৪ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

জোয়ারের পানিতে ভাসছে বারআউলিয়া

অরক্ষিত আনোয়ারা উপকূল

নুরুল আবছার তালুকদার, আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) থেকে : | প্রকাশের সময় : ২৩ মে, ২০২০, ১২:০৮ এএম

আনোয়ারার উপকূল রায়পুর ইউনিয়নের বারআউলিয়া এলাকায় খোলা বেড়িবাঁধ দিয়ে প্রতিদিন বঙ্গোপসাগরে জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হচ্ছে। এতে করে উপকূলবাসীর মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। বিভিন্ন সময় ঘূর্ণিঝড়-জলোচ্ছ্বাসের কারণে অরক্ষিত উপকূলের ৫০ হাজার মানুষ আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে।

স্থানীয়রা বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজের অনিয়মকেই দায়ী করছে। অপর দিকে পারকি, পরুয়াপাড়া, বারআউলিয়া ও পূর্বগহিরা পর্যন্ত বেড়িবাঁধে পাথর বসানোর জন্য ১শ’ ৫০ কোটি টাকার নতুন প্রকল্প একনেকে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন পানি উন্নয়ন বোর্ড।
সরেজমিনে উপক‚লের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, বারআউলিয়া এলাকার আনার বাপের বাড়ি, ছারা বাপের বাড়ি ও এছার বাপের বাড়ি জোয়ারের পানিতে ডুবে আছে। এসব এলাকার মানুষের দূর্ভোগ দিন দিন বেড়েই চলছে। ঘূর্ণিঝড় আম্পানের আগেই এ এলাকার প্রায় দুইশ মিটার বেড়িবাঁধ ভেঙে জোয়ারের পানিতে সাগর গর্ভে বিলীন হয়ে গিয়েছিল। যার ফলে স্থানীয় বারআউলিয়া জামে মসজিদ, মাদরাসা, কবরস্থান, বসত ঘর ও ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান হুমকীর মুখে পড়ে। শুধু তাই নয় রায়পুর ইউনিয়নের পরুয়াপাড়া বাতিঘর, গহিরা,ফকির হাট ও সরেঙ্গা যে সব অংশে পাথর নেই এসব এলাকার বিভিন্ন অংশের বেড়িবাঁধে ভাঙন দেখা দিয়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বাঁধ নির্মাণের সময় সিডিউল অনুযায়ী বাঁধ তৈরী না করা, বাঁধের নিকট থেকে মাটিকাটা, বাঁধের মাটি না চাপানো, মাটির সাথে ৭০ শতাংশ বালি দেয়ায় বাঁধ নির্মাণের বছর পার না হতেই অধিকাংশ স্থানে বাঁধ ভেঙে যাচ্ছে। এতে করে চলতি বর্ষা মৌসুমেও বাঁধের কারণে চরম দুর্ভোগে পড়তে যাচ্ছে রায়পুর ইউনিয়নের বারআউলিয়া এলাকাবাসী।

রায়পুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জানে আলম জানান, ইউনিয়নের আলোচিত এক নেতার আশ্রয় প্রশ্রয়ে বেড়িবাঁধের মাটি কাটা ও ব্লক নির্মাণ কাজের শুরু থেকেই নানা অনিয়ম চলে আসছে।
এ ব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী চয়ন কুমার ত্রিপুরা জানান, বেড়িবাঁধের যে সব অংশে পাথর বসানো হয়নি এবং ভাঙন দেখা দিয়েছে ঐ সব এলাকায় শিগগিরই পাথর বসানো হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আনোয়ারা-উপকূল
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ