Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ০৩ জুলাই ২০২০, ১৯ আষাঢ় ১৪২৭, ১১ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

মৌলভীবাজারে করোনায় আক্রান্ত ৪ চিকিৎসক, ৫ পুলিশ সহ ৯ জন সুস্থ

মৌলভীবাজার জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৪ মে, ২০২০, ৩:১৮ পিএম

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালের ৪ চিৎিসক ও ৫ পুলিশ সদস্য সহ ৯জন প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ থেকে মুক্ত হয়েছেন। বিশ্বজুড়ে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়লে এ ৯ জন চলতি মাসের প্রথম দিকে আক্রান্ত হন।
একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানাগেছে, মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক পার্থ সারথী দত্ত কাননগো, মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাঃ আবদুল্লাহ আল মারুফ রাসেল, গাইনী ও স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ মির্জা ফারজানা হলি এবং শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ বিশ্বজিৎ দেব। তারা সবাই নিজ নিজ কর্মস্থলে চিকিৎসা দিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হন। আক্রান্ত হবার পর তারা চলে চান হোম আইসোলেশনে।
১৮ মে তাদের করোনার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। এর মধ্যে পরপর দুইটি রিপোর্টই নেগেটিভ এসেছে ডাঃ মারুফ রাসেলের। ডাঃ হলি এবং ডাঃ বিশ্বজিৎ শেষ রিপোর্টটির জন্য অপেক্ষা করছেন। যদিও তাদের একটি রিপোর্ট ইতিমধ্যে নেগেটিভ এসেছে। তত্ত্বাবধায়ক পার্থ সারথী দত্ত কাননগোর একটি রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।
আক্রান্ত ৩ চিকিৎসক জানান, যারা আমার এবং আমার পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন। অনেকেই আমার খবর নিয়েছেন, সাহস দিয়েছেন। বিষয়টি প্রমাণ করে মৌলভীবাজার মানুষ সামাজিকভাবে খুবই সংঘবদ্ধ। সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।
মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুত্রে জানা যায়, ১৯ এপ্রিল কুলাউড়ায় প্রথম পুলিশ সদস্যদের মধ্যে করোনাভাইরাস সনাক্ত করা হয়। এর পর জেলার কুলাউড়া, জুড়ি ও রাজনগর থানায় মোট ৭ জন পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হন।
আক্রান্তদের মধ্যে ৫ জন চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে আবারও কাজে ফিরেছেন। করোনা জয়ী এই ৫ পুলিশ সদস্যের হচ্ছেন কন্সটেবল মোঃ শাহজাহান মিয়া, কন্সটেবল মোঃ ইমাদ হাসান, কন্সটেবল ধ্রুব জ্যোতি, কন্সটেবল মোঃ আফজাল হুসাইন ও কন্সটেবল মোঃ নুরুল ইসলাম।
মৌলভীবাজার সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জিয়াউর রহমান সুস্থ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মৌলভীবাজার জেলায় কর্মরত এ পর্যন্ত মোট ৭ জন পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তারমধ্যে ৫ জন সুস্থ হয়ে কাজে ফিরেছেন। বাকি ২ জনের একজনের প্রথম রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে, দ্বিতীয় রিপোর্টের অপেক্ষা করছি। অপরজনের চিকিৎসা চলছে, তবে তিনিও স্বাভাবিক আছেন।
মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ বলেন, করোনার যুদ্ধে জয়ী হতে প্রথমে দরকার মনোবল এবং ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার। আমি ব্যক্তিগতভাবে দুইটি জিনিষ নিশ্চিত করেছি। প্রতিদিন সময়ে সময়ে তাদের সাথে ফোনে কথা বলেছি কোন কারণ ছাড়াই। যেনো তারা বুঝতে পারে সবাই তাদের পাশে আছে। মানসিক শক্তি দিয়েছি সেই সাথে তাদের খাবার এবং চিকিৎসার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছিল। যতই ঝুঁকি থাকুক, দেশপ্রেম বুকে রেখে বাংলাদেশ পুলিশ কাজ করে যাবে।
জেলা সিভিল সার্জন তওহীদ আহমদ জানান, এপ্রিল মাসের ৪ তারিখ প্রথম মৌলভীবাজারে করোনা ভাইরাসার সনাক্ত হয় জেলার রাজনগর উপজেলায়। সেই থেকে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত জেলার মোট আক্রান্ত ৮৯ জন। তার মধ্যে ৩২ জন স্বাস্থ্যকর্মী। তাদের মধ্যে ডাক্তার ৯ জন, নার্স ১০ জন এবং বাকী ১৩ জন হাসপাতালের ওয়ার্ড বয় ক্লিয়ারসহ বিভিন্ন পদের কর্মচারী। এ পর্যন্ত জেলায় মোট আক্রান্তদের মধ্যে ৯ জনের ১ম ও ২য় সেম্পুল মিলিয়ে করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। অর্থাৎ ধরে নেয়া যেতে পারে তারা সুস্থ হয়েছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ