Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

বান্দরবানে লুম্বিনী গার্মেন্টস লকডাউন ও ৫৪১ শ্রমিক কোয়ারেন্টাইনে

করোনায় নতুন দুইজনসহ আক্রান্ত-১৯

বান্দরবান জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৬ মে, ২০২০, ৬:২০ পিএম

বান্দরবানে নতুন করে আরো দুইজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এনিয়ে জেলার ৫টি উপজেলায় ১৯জন আক্রান্ত হয়েছে। তবে এর মধ্যে ৯জন সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরে গেছে বলে জানিয়েছেন জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। এদিকে নতুন করে দুই জন আক্রান্তের মধ্যে এক লুম্বিনী লিমিটেডের গার্মেন্টস কর্মী ও অপরজন স্বর্ণজাদিস্থ এলাকার চায়ের দোকানদার।
স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, আক্রান্তদের মধ্যে আনন্দ (৩৬) নামে একজন জেলা সদরের মেঘলা পর্যটন স্পট সংলগ্ন গার্মেন্টস লুম্বিনী লিমিটেডের কর্মী। তার বাড়ি কক্সবাজার জেলার ঈদগাহ। ধনঞ্জয় দেবনাথ (৩৭) নামে অপর আক্রান্ত জেলার উপশহর বালাঘাটা এলাকার স্বর্ণমন্দির রোডের চায়ের দোকানদার। তার বাড়ি চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলায়। উক্ত দুই ব্যক্তি জেলা বাহিরের নিজ নিজ এলাকায় আক্রান্ত হলেও তারা ব্যবসা ও কর্মস্থলের স্থান হিসেবে জেলা শহরের প্রবেশ করেছে।
স্থানীয়রা ও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ২৫ই মে সোমবার আক্রান্তদের রিপোর্ট পজেটিভ আসায় মেঘলার লুম্বিনী লিমিটেডের গার্মেন্টস কর্মীকে আইসোলেশনে নিয়ে আসা হয় এবং তার ভাড়া বাসায় অপর রুমমেটকে লকডাউন করা হয়। এঘটনায় লুম্বিনী গার্মেন্টসকে লকডাউন ঘোষনা করেছে জেলা প্রশাসন। এছাড়া স্বর্ণমন্দির রোডের চা দোকানদার গত ১৮ই মে নমুনা দেওয়ার পর সে নিজ গ্রামের বাড়ি চলে যাওয়ায় তাকে বাসায় পাওয়া যায়নি। তবে তার দোকানের অন্য সদস্যকে কোয়ারেন্টাইনের আওতায় এনে বাড়িটিকেও লকডাউন করা হয়েছে।
স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, গত ১৮মে সকালে কক্সবাজারের ঈদগাহ থেকে বান্দরবানে কর্মস্থলে আসা লুম্বিনী গার্মেন্টসের এক কর্মীর করোনার নমুনা পরীক্ষার পর তাকে মেঘলা এলাকায় হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়। অপরদিকে স্বর্ণমন্দির এলাকার সনাক্ত হওয়া ব্যক্তি জ্বর নিয়ে হাসপাতালে এলে তার নমুনা সংগ্রহ করে তাকে স্বর্ণমন্দির রোডে তার বাসায় হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়।
বান্দরবান সিভিল সার্জন ডাঃ অংসুই প্রæ মারমা নতুন দুই ব্যক্তি করোনা আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করে এপ্রতিবেদককে জানান, তারা দুইজন জেলা বাহিরের মানুষ। দুইজনেই আক্রান্ত হয়েছে নিজ নিজ এলাকা বা অন্য কোন স্থানে। স্বাস্থ্য বিভাগ তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। দুইজনেই পজেটিভ রিপোর্ট পাওয়া যায়। তিনি জানান, এ পর্যন্ত ১৯জন আক্রান্ত হলেও ১২জন সুস্থ হয়ে উঠেছে। তবে করোনা আক্রান্ত হয়ে কোন রোগী মারা যায়নি। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন ও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
এব্যাপারে বান্দরবান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ শামীম হোসেন জানান, এক শ্রমিক করোনা পজিটিভ হওয়ায় লুম্বিনী লিমিটেডকে লক ডাউন করা হয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে লুম্বিনীর ফ্যাক্টরিতে কর্মরত ৫৪১জন শ্রমিকের হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। এছাড়াও মেঘলা ক্যাফের আশপাশের সকল দোকানে লুম্বিনীর শ্রমিকদের যাতায়াত থাকায় ঐসব দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত সকলকে নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করে স্বাস্থ্যবিধি এবং অন্যদের সাথে শারীরিক দুরত্ব বজায় রাখতে এবং অন্যদের থেকে আলাদা থাকতে বরা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে প্রয়োজনীয় সংখ্যক শ্রমিকের নমুনা সংগ্রহ করে করোনা আক্রান্ত কিনা পরীক্ষা করা হবে বলেও জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

২৮ নভেম্বর, ২০২০
২৮ নভেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ