Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০, ৩০ আষাঢ় ১৪২৭, ২২ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

এক্সিম ব্যাংকের এমডিকে গুলি, নির্যাতনের অভিযোগ

সিকদার গ্রুপের এমডির বিরুদ্ধে গুলশান থানায় মামলা

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৭ মে, ২০২০, ১২:০৬ এএম | আপডেট : ১২:২৪ এএম, ২৭ মে, ২০২০

এক্সিম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ হায়দার আলী মিয়া ও অতিরিক্ত এমডি মোহাম্মদ ফিরোজ হোসেনকে গুলি করে হত্যার চেষ্টাসহ আটকে রেখে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় সিকদার গ্রুপের মালিক জয়নাল সিকদারের ছেলে এবং গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রন হক সিকদার ও তার ভাই দিপু হক সিকদারকে অভিযুক্ত করে রাজধানীর গুলশান থাকায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা দায়ের পর থেকে আসামীরা পলাতক রয়েছেন এবং তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে দৈনিক ইনকিলাবকে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের গুলশান জোনের ডিসি সুদীপ্ত কুমার চক্রবর্তী।
গুলশান থানার ওসি মো. কামরুজ্জামান জানান, বাদীর লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর মামলা নেয়া হয়েছে। এই মামলার দুই আসামি পলাতক আছেন। তাদের পেলেই গ্রেফতার করা হবে।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মামলার বিবরণে উল্লেখ করা হয়েছে, ঘটনাটি ঘটেছে গত ৭ মে। আর এক্সিম ব্যাংক মামলা করেছে গত ১৯ মে। পুরো ঘটনাটি ৫০০ কোটি টাকা ঋণ প্রস্তাব নিয়ে। এই ঋণের বিপরীতে বন্ধকি সম্পত্তি পরিদর্শনের নামে এক্সিম ব্যাংকের দুই কর্মকর্তাকে ডেকে আনা হয়েছিল। এ সময় জামানত হিসেবে ওই সম্পত্তির বন্ধকি মূল্য কম উল্লেখ করেন ব্যাংকটির এমডি ও অতিরিক্ত এমডি। এরপরেই গুলি ও মারধরের ঘটনা ঘটে। রন হক সিকদার ও দিপু হক সিকদার ব্যাংকটির এমডির কাছে একটি সাদা কাগজে জোর করে সাক্ষর নেন। সিকদার গ্রুপের চেয়ারম্যান জয়নুল হক সিকদারের সঙ্গে তার ছবিও তোলা হয়।
পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানান, ঋণের জন্য বন্ধকি সম্পত্তির মূল্য বেশি দেখাতে রাজি না হওয়ায় এক্সিম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ হায়দার আলী মিয়া ও অতিরিক্ত এমডি মোহাম্মদ ফিরোজ হোসেনকে গুলি করে হত্যার চেষ্টা করেন সিকদার গ্রুপের দুই পরিচালক। শুধু তাই নয়, তারা পদস্থ দুই ব্যাংক কর্মকর্তাকে বনানীর একটি বাসায় জোর করে আটক রেখে নির্যাতন করেন এবং সাদা কাগজে সই নেন। গুলশান থানায় এক্সিম ব্যাংক কর্তৃপক্ষের দায়ের করা মামলায় এই অভিযোগ করা হয়েছে।



 

Show all comments
  • saadman ২৭ মে, ২০২০, ১১:৩২ এএম says : 0
    Sikder Group is backed by Awami League, the maximum voter (90%) party.
    Total Reply(0) Reply
  • আনোয়ার হোছাইন ২৭ মে, ২০২০, ৬:০৮ এএম says : 0
    যে দেশ সাধারণ মানুষের অসাধারণ বীরত্বের মাঝে অস্তিত্ব লাভ করেছে, তাকে এভাবে ছিবলে খুবলে খাবে চিহ্নিত কিছু সর্বভূক কুলাঙ্গার? আর সবাই তা উদাস নয়নে দেখবে? কেউ কি কোথাও নেই এই লোপাটকারীদের রাহুকবল থেকে দেশমাকে বাঁচাবার?
    Total Reply(0) Reply
  • ash ২৭ মে, ২০২০, ৭:৩৫ এএম says : 0
    ARE A TO DEKCHI AKDOM BANGLA SINEMAKEO HAR MANIESE ! MUST BE ONARA KHUB BANGLA SINEMA DEKHEN
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ