Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ০৩ জুলাই ২০২০, ১৯ আষাঢ় ১৪২৭, ১১ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

পলাশে দু’পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ ৩

নরসিংদী থেকে স্টাফ রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ২৯ মে, ২০২০, ১২:১৪ এএম

মোটরসাইকেল মহড়াকে কেন্দ্র করে পলাশের সাবেক এমপি কামরুল আশরাফ খান পোটন এবং বর্তমান এমপি ডা. আনোয়ারুল আশরাফ খান দিলিপের সমর্থকদের মধ্যে ভয়াবহ বন্ধুকযুদ্ধ সংঘটিত হয়। এই বন্দুকযুদ্ধে রাজিব (২৫) আসিফ (৩০) ও শহিদুল (২২) নামে তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা থেকে রাত সাড়ে দশটা পর্যন্ত পলাশের চরসিন্দুর বাজারে এই ঘটনাটি ঘটে। আহত তিনজনকে প্রথমে নরসিংদী জেলা হাসপাতাল পরে সেখান থেকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়েছে।
জানা গেছে, পলাশের সাবেক এমপি কামরুল আশরাফ খান পোটন ও বর্তমান এমপি আনোয়ারুল আশরাফ খান দিলীপ আপন দুই ভাই। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই ভাইয়ের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। গত নির্বাচনে ডা. আনোয়ারুল আশরাফ খান দিলীপ এমপি নির্বাচিত হবার পর তার সমর্থকরা প্রায়ই চরসিন্দুর বাজারে মোটরসাইকেল মহড়া দিয়ে আসছিল। কিছুদিন পরপর ডাক্তার দিলিপের সর্মথকরা মোটরসাইকেল মহড়া দেয়ায় এলাকার মানুষের মধ্যে কিছুটা চাপা ক্ষোভ দেখা দেয়।
গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় দিলিপের সর্মথকরা মোটরসাইকেল নিয়ে মহড়া দিতে গেলে পোটনের সমর্থক চরসিন্দুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন রতনের ছোট ভাই মোটরসাইকেল সোহরাব হোসেন মোটরসাইকেল মহড়াকারীদের জিজ্ঞাসা করে কিছুদিন পরপর বাজারে গিয়ে মোটরসাইকেল মহড়া দিয়ে জনগণের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করছে কেন।
পলাশ থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এই সোহরাব হোসেনের প্রশ্নে ক্ষিপ্ত এমপি দিলিপের সমর্থক রানা রনি নামে দুই মোটরসাইকেল আরোহী তার ওপর চড়াও হয়। খবর পেয়ে সোহরাব হোসেনের বড় ভাই ইউপি চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন রতন ঘটনাস্থলে ছুটে আসলে মোটরসাইকেল আরোহীরা তার মাথায় আঘাত করে। এতে চেয়ারম্যান রতন আহত হয়। এই ঘটনার সাথে সাথেই শুরু হয়ে যায় দু’পক্ষের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ। দুই পক্ষের গোলাগুলির শব্দে সারা বাজার এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি হয়। গোলাগুলি চলাকালে রাজিব আসিফ ও শহিদুল গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়। এ সময় আশেপাশে গ্রামেও মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পরে।
এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন রতন জানান, মঙ্গলবার রাতের ঘটনার ব্যাপারে তিনি পলাশ থানায় একটি এজাহার দাখিল করেছেন। কিন্তু থানা কর্তৃপক্ষ এখনো মামলা রুজু করছেন না এবং কোনো আসামিকে গ্রেফতার করছেন না।
পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এ ব্যাপারে একটি এজাহার পেয়েছেন ঘটনা তদন্ত করে সত্যতা যাচাইয়ের মাধ্যমে মামলা রুজু করা হবে।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সংঘর্ষ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ