Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

করোনাকালের ঈদ উদযাপন নিয়ে নেটিজেনদের প্রতিক্রিয়া

আবদুল মোমিন | প্রকাশের সময় : ২৯ মে, ২০২০, ৯:২৪ এএম

ইতিহাসে প্রথমবার এক ভিন্নরকমের ঈদ উৎসব উদযাপন করলো মুসলিম বিশ্ব। আজ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচতে বাংলাদেশের মসজিদে মসজিদে সামাজিক দূরত্ব মেনে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করা হয়। আবার অনেকেই জীবনে প্রথমবারের মতো বাসাবাড়িতেই সপরিবারে নামাজ আদায় করেছেন। এই ভিন্নমাত্রার ঈদ উদযাপন নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আবেগঘন প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা। ফেইসবুকে ব্যতিক্রমী ঈদ উৎসবের ছবি পোস্ট দিয়ে তুলে ধরেছেন ভিন্ন রকম এক অনুভূতি।

ফেসবুকে আলমগীর আহাম্মেদ লিখেছেন, ‘‘কাহারো খাবারের লোক নাই আবার কাহারো খাবার নাই! এই দুনিয়া আসলে ই খুব অদ্ভুত! কেউ পায় কেউ পায় না। সবকিছু থেকেও যেন শূন্য হৃদয়ে রক্তক্ষরণ বয়েই যাচ্ছে। অনেক হতভাগার ঈদ কোন বদ্ধঘরের এক কোণে।’’

মোঃ হাফিজুর রহমান লিখেছেন, ‘‘একটা ইদ আমাদের মনকে কিভাবে জর্জরিক করছে ভাবুন। যেসব শিশু আগের ইদগুলোতে পোশাক পায়নি, ইদের দিনে বাবা মার কাছে পয়সা পায়নি তাদের ইদ আরো খারাপ গেছে।’’

জিকে রায় লিখেছেন, ‘‘সবার কাছে অনুরোধ, আপনারা এই পবিত্র ঈদে দোয়া করবেন, যেন পৃথিবী সুস্থ হয়ে উঠে আগের মত এবং সেটা সকল ধর্মবর্ণ ভেদাভেদ ভুলে। ধন্যবাদ সবায়কে। ঈদ মোবারক।’’

জিল্লুর রহামান লিখেছেন, ‘‘বিষন্নতায় ভরা এক ঈদ। নেই কোলাকুলি, নেই করমর্দন, নেই ছোটদের চুমু দিয়ে আদর, আছে শুধু ভয়, শঙ্কা ও সন্দেহ। এ ধরণের ঈদ কখনও জীবনে আসেনি, ভবিষ্যতেও আসবে কিনা জানিনা। আল্লাহ সকলকে হেফাজত করুন এবং এ মহা সঙ্কট থেকে উত্তরণের তৌফিক দান করুন। আমিন।’’

মোঃ হুসাইন লিখেছেন, ‘‘এবছরটা না হয় এভাবেই কাটুক! এক কোটি বিশ লাখ প্রবাসীর (প্রায় অধিকাংশ প্রবাসীর প্রবাসে যাদের ফ্যামিলি থাকেনা) তাদের প্রতিবছর ঈদটা এভাবেই কাটে! অনেকের ঈদের দিনও কাজ করতে হয়! যারা ঈদের দিন ছুটি পায় তারা দেশের মা বাবা, ভাই, বোন, স্ত্রী-সন্তানের নতুন জামা, খাওয়া-দাওয়া এগুলো একটু ফোনের মাধ্যমে শুনেই তৃপ্ত! পুরোদিন খবরাখবর নেয়া- কার জামা কেমন হলো, কে বেশি খুশি কে কম খুশি! সব খবরাখবর নিয়ে ঘুমিয়ে পড়া!প্রবাসীদের একেকটা ঈদ কত কষ্টের করোনায় কিছুটা উপলব্ধি করাচ্ছে!’’

আবীর চৌধুরী লিখেছেন, ‘‘ঈদ পর্যন্ত বেঁচে আছি, ঈদ পালন করতে পারছি এই জন্য শুকরিয়া আদায় করা উচিৎ।’’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সোশ্যাল মিডিয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ