Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ০৪ জুলাই ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৭, ১২ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

হাজীগঞ্জে গায়ে আগুন দিয়ে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

স্টাফ রিপোর্টার, চাঁদপুর থেকে | প্রকাশের সময় : ২৯ মে, ২০২০, ৪:১৬ পিএম

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে কেরোসিন তেল ঢেলে গায়ে আগুন দিয়ে এক স্কুল ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। শুক্রবার সকাল সোয়া ১০টার সময় ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ণ ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই ছাত্রীর মৃত্যু হয়। নিহত ছাত্রী নাসরিন আকতার চাঁদনী উপজেলার সদর ইউনিয়নের সপ্তগ্রাম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে চলতি বছর বিজ্ঞান বিভাগে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছিল। তার বাবা আনোয়ার হোসেন কাতার প্রবাসি। ১ ভাই ২ বোনের মধ্যে চাঁদনী দ্বিতীয়।

তবে কেউ বলেন গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ আবার কেউ বলছে নিজের গাঁয়ে নিজেই কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন দিয়েছে চাঁদনী।

বৃহস্পতিবার (২৮ মে) বিকেল ৫টার সময় নিজ ঘরে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে চাঁদনী। এ সময় ঘরে কেউ ছিলনা। পরে বাড়ীর লোকজন ডাকচিৎকার শুনতে পেয়ে ওই ঘরে ঢুকে স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মুমূর্ষ অবস্থায় চাঁদনীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে প্রেরণ করে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, চাঁদনী নামের মেয়েটির শরীরের ৮০ ভাগই আগুনে পুড়ে গেছে।

নিহত চাঁদনীর সাথে ঢাকা মেডিকেল অবস্থানরত একই বাড়ীর তার দূরসম্পর্কের চাচা পুলিশের এসআই আরিফ দুপুর ২টা মুঠো ফোনে জানান, চাঁদনী সকাল সোয়া ১০টায় নিহত হয়েছে পরে শাহবাগ থানায় জিডি করেছি। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নেয়া হচ্ছে।

নিহত চাদনীর দাদী জানান, চাঁদনীর বাবা আনোয়ার হোসেন কাতারে করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন। তার ২টি কিডনী অচল। এ অবস্থায় বাড়ীতে ফোনও করতে পারছেনা। ৩/৪ দিন পর একবার কথা বলে। সরকারি ত্রাণ সহায়তায় তাদের পরিবারটি চলে। সম্প্রতি সময়ে শেখ হাসিনার উপহার ২৫০০ টাকা পেয়েছে। বাবার খুবই আদরের মেয়ে ছিল চাঁদনী। বাবার কথা চিন্তা করেই হতাশাগ্রস্থ থেকে আত্মহত্যা করেছে।

এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আলমগীর হোসেন রনি জানান, চাঁদনী নামের একটি মেয়ে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন