Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

দেশ ও মানুষের কল্যাণে হতে হবে দায়িত্বশীল

সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে জুমা আদায় বায়তুল মোকাররমে খুৎবাপূর্ব বয়ানে পেশ ইমাম

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩০ মে, ২০২০, ১২:০১ এএম

ঈদুল ফিতরের পর গতকাল শুক্রবার জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ সারাদেশের মসজিদে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে জুমার নামাজে স্বতঃস্ফ‚র্তভাবে মুসল্লিরা অংশ নেন। প্রত্যেক মসজিদের প্রবেশ পথে জীবাণুুনাশক ব্যবস্থা রাখা হয়। রাজধানীর অনেক মসজিদে জায়গা সঙ্কুলান না হওয়ায় রাস্তার ওপর মুসল্লিরা জুমার নামাজ আদায় করেন।
বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের চারটি গেইটে নামাজের আগেই জীবাণুনাশক বুথ স্থাপন করা হয়। পৌনে ১২টার দিকে মসজিদের গেইট খুলে দেয়া হয়। মসজিদের ভেতরে এক কাতার পর পর আগত মুসল্লিরা মাস্ক পরে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নামাজ আদায় করেন। রাজধানীর মহাখালীস্থ মসজিদে গাউছুল আজম কমপ্লেক্সে গতকাল সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং সকল প্রকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে জুমার নামাজ আদায়ে প্রচুর মুসল্লির সমাগম ঘটে।

বায়তুল মোকাররমে খুৎবা পূর্ব বয়ানে সিনিয়র পেশ ইমাম মাওলানা মুফতি মিজানুর রহমান বলেন, দেশ ও মানুষের কল্যাণ কামনায় আমাদেরকে আরো বেশি সচেতন ও দায়িত্বশীল হতে হবে। তিনি বলেন, রমজানের মূল শিক্ষা তাকওয়া অর্জনের পথেই সামনের দিনগুলোতে জীবন পরিচালিত করতে হবে। মুত্তাক্বী বান্দাদের গুণাবলী অনুসরণ করেই বাকি দিনগুলোতে চলতে হবে। বর্তমান প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মহামারীতে বিপদগ্রস্ত অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। এটা মুত্তাক্বী বান্দার অন্যতম একটি গুণ। সকল প্রকার গুনাহ-পাপাচার পরিহার করে দ্বীনের ওপর পরিপূর্ণ আস্থা রেখেই জীবন গড়তে হবে।

চকবাজার ইসলামবাগ বড় জামে মসজিদের খতীব মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দি জুমার খুৎবাপূর্ব বয়ানে বলেন, নিরাকার অন্ধকারে আশার আলো দেখাতে পারেন একমাত্র আল্লাহ, আর কেউ নয়। মোমিনকে সর্বদাই তার শরণাপন্ন থাকতে হবে। তিনি বলেন, পবিত্র কুরআনে আল্লাহ তা‘আলা বলেন, আমি আল্লাহর রহমত ও দয়া থেকে কেবলমাত্র কাফেররাই নিরাশ হয়। অতএব মুসলমানদের আল্লাহর রহমত থেকে নিরাশ হবার কোনো সুযোগ নেই। তিনি চলমান মহামারী থেকে রক্ষায় বেশি বেশি তাওবাহ-ইস্তিগফার পড়ার অনুরোধ জানান।
নগরীর মুগদা মানিকনগর ওয়াসা রোড মদিনা মনোয়ারা জামে মসজিদের খতীব হাফেজ মাওলানা মুফতি যোবায়ের আহমদ খুৎবাপূর্ব বয়ানে বলেন, অমুসলিমদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ছিন্ন করে কুরআনের পথে ধাবিত হলেই ইন শা আল্লাহ প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস নির্মূল হবে। তিনি বলেন, মুসলমানদের বন্ধু একমাত্র দ্বীনদার ধর্মপ্রিয় আল্লাহওয়ালারাই হবে। মোমিন কোনো দিন কাফের-মোরশেকদেরকে বন্ধু হিসেবে গ্রহণ করতে পারে না। যদি কোনো মুসলিম কোনো অমুসলিমদের সাথে আন্তরিক বন্ধত্ব রাখে তা’হলে আল্লাহ তা‘আলার সাথে তার কোন সম্পর্ক থাকবে না। তিনি বেশি বেশি তাওবাহ-ইস্তিগফার পড়ার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঈদুল ফিতর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ