Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৫ জুলাই ২০২০, ৩১ আষাঢ় ১৪২৭, ২৩ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

টেস্ট ম্যাচে ‘কোভিড-১৯ বদলি’!

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩১ মে, ২০২০, ১২:০২ এএম

করোনাভাইরাস মহামারির স্থবিরতা পার করে খেলা শুরু হলেই তো সব সমস্যা মিটে যাচ্ছে না। নিরাপদে খেলা চালিয়ে যাওয়া নিয়ে আলোচনায় আসছে অনেক সমীকরণ। সহসাই এই ভাইরাসের নির্ম‚লের সম্ভাবনা না থাকায় এরমধ্যেই খেলা শুরুর চাপ বাড়ছে। আর সেটা হলে টেস্ট চলাকালীন কোন ক্রিকেটারের আক্রান্তের শঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া যায় না। এমন অবস্থায় কি হবে, তা নিয়ে বিপরীত অবস্থানে আইসিসি ক্রিকেট কমিটি ও ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)।
কদিন আগে আইসিসি ক্রিকেট কমিটি সুপারিশ করেছে খেলাচলাকালীন কেউ আক্রান্ত হলে, সংশ্লিষ্ট সবাইকে কোয়ারেন্টিনে নিয়ে ম্যাচই বন্ধ করে দিতে। কিন্তু এতে দ্বিমত ইসিবি। তাদের মত, চালু রাখতে হবে ম্যাচ। তবে আক্রান্ত খেলোয়াড়ের বদলি নিতে ‘কোভিড-১৯’ বদলি নিয়মও চালু করতে হবে।
আগামী জুলাই মাস থেকে জীবাণুমুক্ত পরিবেশ তৈরি করে খেলা চালু করতে চায় অর্থনৈতিক সংকটে থাকা ইসিবি। দর্শকবিহীন মাঠে খেলা সংশ্লিষ্ট ১৮০-২০০ জন মানুষকে রেখে চালাতে চায় ম্যাচ। এমন উদ্যোগের মধ্যে ভারতীয় সাবেক ক্রিকেটার রাহুল দ্রাবিড় প্রশ্ন তুলেছিলেন, ৫ দিন ধরে চলা টেস্টের মধ্যে কেউ আক্রান্ত হলে তখন কি করা হবে?
এই প্রশ্নে ক্রিকেট কমিটি ম্যাচ বন্ধের প্রস্তাব দিলেও ইসিবি বলছে ভিন্ন কথা। প্রভাবশালী এই ক্রিকেট বোর্ড খেলা চালু রাখতেই সময় উপযোগী নিয়ম চায় আইসিসির কাছে, ‘এসব বিষয় নিয়ে গত কদিন ধরেই আমাদের মেডিকেল দল কাজ করে যাচ্ছে। কেউ কোভিড-১৯ পজিটিভ হলে যত দ্রুত তাকে আলাদা করে ফেলতে হবে। আমরা আমাদের সব ভেন্যুতে আইসোলেশন কক্ষ বানাচ্ছি। আক্রান্তকে সেখানে রাখা হবে। আমরা আশা করি আইসিসি কোভিড-১৯ বদলির ব্যাপার বিবেচনা করে দেখবে। প্লেয়িং কন্ডিশনে বদল আনতে অনেকের একমত হওয়া এখন দরকার।’
ইসিবি জানায়, টেস্ট ওয়ানডে কিংবা টি-টোয়েন্টি ম্যাচের আগে সব খেলোয়াড়কে কোভিড-১৯ পরীক্ষা করিয়ে খেলতে নামানোর চিন্তা তাদের, ‘খেলার দিন সকালে পরীক্ষা হবে, নেগেটিভ আসলে খেলতে পারবে, পজিটিভ আসলে তাকে আলাদা করে ফেলা হবে। আমাদের আশা জুলাইয়ের আগে বদলির নিয়ম চালু হবে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ‘কোভিড-১৯
আরও পড়ুন