Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ০৪ জুলাই ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৭, ১২ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

ক্রমাগতভাবে জেনেটিক বৈশিষ্ট্য পাল্টাচ্ছে

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩১ মে, ২০২০, ১২:০২ এএম

দেশের তিনজন কোভিড-১৯ রোগীর নমুনা থেকে নতুন করোনাভাইরাসের সম্পূর্ণ জিন বিন্যাস বা জিনোম সিকোয়েন্সিং করেছেন বাংলাদেশ শিল্প ও গবেষণা পরিষদ-বিসিএসআইআর’র জিনোমিক রিসার্চ গবেষণাগারের বিজ্ঞানীরা। গবেষণাগারের প্রধান সেলিম খান এই তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, তিনজন কোভিড-১৯ রোগীর সম্পূর্ণ জিনোম সিকোয়েন্সের পর ডেটা অ্যানালাইসিসে দেখা যায় অ্যামাইনো এসিড লেভেলে মোট নয়টি ভেরিয়েন্ট রয়েছে। সেলিম খান বলেন, ভ্যাক্সিন আবিষ্কার করতে গেলে তার (সম্পূর্ণ) জিনোম সিকোয়েন্সিং খুব গুরুত্বপূর্ণ। প্রথমে উহানে যে ভাইরাসের সংক্রমণ হয়েছিল, আমরা তার প্রেক্ষিতে দেখছি, ভাইরাস ক্রমাগতভাবে তার জেনেটিক বৈশিষ্ট্য পাল্টে ফেলছে। এখন জিনোম সিকোয়েন্সিং করেই আমরা ভ্যাক্সিন আবিষ্কারের পথ পাবো। ডেটা অ্যানালাইসিসে বাংলাদেশের এই ভাইরাসটির সাথে সবচাইতে বেশি মিল (৯৯.৯৯ শতাংশ) পাওয়া যায় ইউরোপিয়ান উৎসের। বিশেষ করে সুইডেনের সঙ্গে। বিস্তারিত জানার জন্য বিসিএসআইআর’র তিনটিসহ বাংলাদেশে সর্বমোট ২৩টি মাত্র ফুল সিকোয়েন্সিং ডেটা নেয়া হয়েছে। যা মোটেই যথেষ্ট নয়।

সেলিম খান বলেন, উৎস, ক্লাস্টার, ট্রান্সমিশন ডাইনামিক্স, মলিকুলার ডেটিং, ভ্যাক্সিন ডিজাইনসহ অন্যান্য গবেষণা কাজ বেগবান করার জন্য এই মুহুর্তে প্রয়োজন অনেক বেশি সিকোয়েন্সিং ডেটা। তাই বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় বাংলাদেশের সম্ভাব্য সকল এলাকা থেকে নমুনা সংগ্রহ করে বিসিএসআইআর’র জিনোমিক রিসার্চ গবেষণাগারে সিকোয়েন্সিং করার নির্দেশনা দিয়েছে।

এর আগে চাইল্ড হেলথ রিসার্চ ফাউন্ডেশন (সিএইচআরএফ), ‘ডেজিগনেটেড রেফারেন্স ইন্সটিটিউট ফর কেমিক্যাল মেজারমেন্টস (ডিআরআইসিএম)’ এবং ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব বায়োটেকনোলজির (এনআইবি) গবেষকরা নতুন করোনাভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্সিং করেছেন। এছাড়া নতুন এই ভাইরাসের জিন রহস্য উন্মোচনে গবেষণা শুরু করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

জিনোম সিকোয়েন্সিং করার জন্য বিসিএসআইআর’র জিনোমিক রিসার্চ গবেষণাগারের বিজ্ঞানীদের নমুনা সরবরাহ করেছে বাংলাদেশের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ল্যাবরেটরি মেডিসিন অ্যান্ড রেফারেল সেন্টার।
সম্পূর্ণ জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের পর বিশ্বব্যাপী ইনফ্লুয়েঞ্জা তথ্য সরবরাহকারী জার্মানিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান জিআইএসএআইডিতেও তথ্য সরবরাহ করা হয়েছে। সেই তথ্য তাদের ওয়েবসাইটেও প্রকাশিত হতে যাচ্ছে বলে জানান সেলিম খান।



 

Show all comments
  • Raj Sarkar Rishu ৩১ মে, ২০২০, ১:১২ এএম says : 0
    পৃথিবী ধ্বংসের জন্য তাদের কাছে পারমাণবিক বোমার কোন অভাব নেই কিন্তু পৃথিবী কে রক্ষা করার জন্য কোন থেকে মুক্তি পেতে ক্ষুদ্র ভ্যাকসিন তাদের কাছে নেই
    Total Reply(0) Reply
  • Sanjida Tarin ৩১ মে, ২০২০, ১:১২ এএম says : 0
    করোনার মত একটা মহামারীর টেস্ট রিপোর্ট দিতে যদি এক সপ্তাহ সময় লাগে তাহলে রোগী চিকিৎসা করবে কখন এবং চিকিৎসা শুরুর আগে এই টেস্ট এবং রিপোর্ট দানকালীন সময় পর্যন্ত পজেটিভ রোগী কই জনকে ইফেক্ট করতে পারে তা ভাবার বিষয়। এইসব রিপোর্ট অব্যশই দ্রুততম করার ব্যবস্হা করা উচিত যেন অন্যরা কম ইফেক্ট হয় এবং যে পজিটিভ সে ও চিকিৎসা পাই।
    Total Reply(0) Reply
  • MK Alam ৩১ মে, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
    প্রতি মুহূর্তে আচরণ পাল্টাচ্ছে করোনা, আর প্রতি নিউজে করোনার ভ্যাকসিন আবিস্কার করে যাচ্ছে নিউজ। এ পর্যন্ত ২০০ ঔষধের নাম প্রকাশ করে ডাবল সেঞ্চুরি করা হয়েছে তাদের।
    Total Reply(0) Reply
  • Asraful Islam ৩১ মে, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
    এই সব শুধু বাংলাদেশে পাল্টাচ্ছে কারন যে দেশের সাস্থমন্ত্রী উল্টাপাল্টা কথা বলে সে দেশে করোনা পাল্টাবেনা ত কি করবে ৷
    Total Reply(0) Reply
  • Mahmudul Haque Manna ৩১ মে, ২০২০, ১:১৪ এএম says : 0
    আল্লাহ হেফাজত করুক সবাইকে দেশের যে কি অবস্থা হবে একমাত্র আল্লাহ পাকই জানে
    Total Reply(0) Reply
  • Mir Alamin Emtiaz ৩১ মে, ২০২০, ১:১৪ এএম says : 0
    উন্নত বিশ্বের স্বাস্থ্য চিকিৎসা বিজ্ঞানের চাইতে আমাদের বাংলাদেশের ভাঙ্গাচুরা চিকিৎসাবিজ্ঞান অনেক উন্নত তাই আমাদের দেশে করোনাতে কেউ মরে না মরে ঠাণ্ডা-জ্বর শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত হয়ে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

৪ জুলাই, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন