Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭, ২৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

ছেলেদের তুলনায় এগিয়ে মেয়েরা আবারো বোর্ড সেরা বগুড়া

মহসিন রাজু, বগুড়া থেকে : | প্রকাশের সময় : ৩১ মে, ২০২০, ৯:১৫ পিএম

এসএসসিতে জিপিএ-৫ প্রাপ্তিতে বগুড়া আবারও রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে প্রথম হল বগুড়া। গতবছরের তুলনায়এবার বগুড়ায় জিপিএ-৫ প্রাপ্তি এবং পাশের হারও বেড়েছে। ফলাফল বিশ্লেষণে আরো দেখা যায়, মেয়েরা বরাবরের মত আবারও ছেলেদের পেছনে ফেলেছে। আর বগুড়ার স্কুলগুলোর মধ্যে জিলা স্কুলই আবারও নিজেদের সেরা সেরা প্রমাণ করেছে। স্কুলটি অল্পের জন্য এবার শতভাগ জিপিএ-৫ প্রপ্তির রেকর্ড ছুঁতে পারেনি।
রোববার রাজশাহী বোর্ডের ঘোষিত ফলাফলে দেখা গেছে ২০২০ সালে এসএসসি পরীক্ষায় বগুড়ার থেকে মোট ৩৫ হাজার ৩৯৫জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে। তাদের মধ্যে ১৮ হাজার ৭০৬জন ছেলে এবং বাদবাকি ১৬ হাজার ৬৮৯জন মেয়ে পরীক্ষার্থী। পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ৯২ দশমিক ২৭ শতাংশ উত্তীর্ণ হয়। ২০১৯ সালে পাশের হার ছিল ৯২ দশমিক ১৪ শতাংশ উত্তীর্ণ হয়।করোনার সংক্রমণের আশঙ্কায় এবার স্কুলগুলো বন্ধ থাকায় কোন শিক্ষার্থীকে ফলাফলের দিন স্কুলে দেখা যায়নি।
বগুড়ায় পরীক্ষার্থীর সংখ্যায় ছেলেদের চেয়ে মেয়েরা পিছিয়ে থাকলেও পাশের হারে তারাই এগিয়ে রয়েছে। ১৮ হাজার ৭০৬ ছেলের মধ্যে পাশ করেছে ৯১ দশমিক ৪৩ শতাংশ আর ১৬ হাজার ৬৮৯জন মেয়ের মধ্যে পাশ করেছে ৯৩ দশমিক ২১ শতাংশ।
ফলাফল বিশ্লেষণে দেখা গেছে জিপিএ-৫ প্রাপ্তির ক্ষেত্রে এবারও রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে প্রথম স্থান ধরে রেখেছে বগুড়ার শিক্ষার্থীরা। এবার বগুড়া জেলা থেকে সর্বোচ্চ ৬ হাজার ৪৩৪জন জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। ২০১৯ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৫ হাজার ১৮৬জন। বোর্ডের তথ্য বলছে ২০১৬ সাল থেকেই জিপিএ-৫ প্রপ্তিতে বগুড়া রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে।
জেলায় সরকারি- বেসরকারি প্রথম সারির ৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শতভাগ পাশ এবং পরীক্ষার্থী অনুপাতে জিপিএ-৫ প্রাপ্তির ক্ষেত্রে প্রাচীনতম জিলা স্কুল শীর্ষ স্থান দখল করেছে। ওই প্রতিষ্ঠান থেকে এবার ২১৮জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে মাত্র একজন ছাড়া সবাই জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেছে।
শতভাগ পাশসহ পরীক্ষার্থী অনুপাতে জিপিএ-৫ প্রাপ্তির ক্ষেত্রে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বগুড়া ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজ। ওই প্রতিষ্ঠান থেকে এবার ২৫৫জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৪৭জন বা ৯৬ দশমিক ৮৬ শতাংশই জিপিএ-৫ পেয়েছে। এর পরের স্থানে রয়েছে বগুড়া সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। প্রতিষ্ঠানটি থেকে পরীক্ষায় অংশ নেওয়া ২৫৩জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৩৮জন বা ৯৪ দশমিক ০৭ শতাংশ জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। শতভাগ পাশসহ পরীক্ষার্থী অনুপাতে জিপিএ-৫ প্রাপ্তির ক্ষেত্রে পর্যায়ক্রমে অন্য যেসব প্রতিষ্ঠান রয়েছে সেগুলো হলো: আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন স্কুল ও কলেজ (৩১১জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৮৪জন জিপিএ-৫ পেয়েছে), করতোয়া মাল্টিমিডিয়া স্কুল ও কলেজ (১৬৯জন পরীক্ষার মধ্যে ১৩৫জন জিপিএ-৫ পেয়েছে), পুলিশ লাইন্স স্কুল ও কলেজ (২১৩জন পরীক্ষার মধ্যে ১৮৪জন জিপিএ-৫ পেয়েছে)।
গত বছরের মত এবারও শহরের অপর দুই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিয়াম মডেল স্কুল ও কলেজ এবং এসওএস হারম্যান মেইনর স্কুল ও কলেজ এবার শতভাগ পাশের রেকর্ড ছুঁতে পারেনি। বিয়াম মডেল স্কুল ও কলেজ থেকে এবার পরীক্ষায় অংশ নেওয়া ৪২৭জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে একজন অনুপস্থিত থাকায় শতভাগ পাশের রেকর্ড অর্জিত হয়নি। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৬৯জন। অন্যদিকে এসওএস হারম্যান মেইনর স্কুল ও কলেজ থেকে ৫৫জন পরীক্ষা দিলেও পাশ করেছে ৫৪ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৭জন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: এসএসসি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ