Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০, ৩০ আষাঢ় ১৪২৭, ২২ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

সরকার সারাদেশকে বধ্যভূমি বানাতে চায় ---- রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২ জুন, ২০২০, ১২:১২ এএম

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সরকার সারাদেশকে বধ্যভ‚মি বানাতে চায়। করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত সপ্তাহে ২৬ শতাংশ মানুষ মৃত্যুবরণ করেছে। এর ওপর সবকিছু খুলে দিয়েছে। গতকাল রোববার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক ভার্চুয়াল কনফারেন্সে তিনি এসব কথা বলেন। 

রুহুল কবির রিজভী বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেছেন, বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়েই নাকি ছুটি প্রত্যাহার করা হয়েছে। আওয়ামী নেতার এই বক্তব্য শুনে গোটা জাতি বিস্মিত ও হতবাক। যে বিশেষজ্ঞগণ মৃত্যুবীজ ছড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন তারা কোন বিষয়ের ওপর বিশেষজ্ঞ সেটাই এখন অনুসন্ধানের বিষয়। এরকম বিশেষজ্ঞ ভারতের মতো দেশে পাওয়া গেল না কেন? সেখানে কেন ৩০ জুন পর্যন্ত লকডাউন বলবৎ রাখা হয়েছে? বাংলাদেশে হঠাৎ সবকিছু খুলে দিয়ে আমরা এখন এক কঠিন সঙ্কটের মুখোমুখি। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা ও আইএলও’র নির্দেশনা অমান্য এবং করোনা নিয়ে সরকার গঠিত টেকনিক্যাল কমিটির মতামত সরাসরি অগ্রাহ্য করে সবকিছু খুলে দেয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, গণবিরোধী সরকার কখনোই গণমুখী সিদ্ধান্ত নিতে পারে না, কারণ তার সবসময় চিন্তা-বিভ্রাটের মধ্যে থাকে। করোনা বিস্তারের প্রচন্ড ঝড়ের মধ্যে লকডাউন শিথিলের পরিণতি বিভিন্ন দেশে বিপজ্জনক রূপ নিয়েছে। এটি হিতে বিপরীত হয়েছে। অন্যান্য দেশে করোনা কমে আসার পর লকডাউন শিথিল করা হয়েছিল, কিন্তু তাতে পরিণতি হয়েছে সর্বনাশা বিপর্যয়ের। বর্তমানে বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণের হার সর্বোচ্চ এবং চিকিৎসা ব্যবস্থা সারা বিশ্বের তুলনায় সর্বনিম্ন। অথচ সরকার মানুষের জীবন নিয়ে খেলছে।
বাস ভাড়া বৃদ্ধির প্রস্তাবের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, এই সরকার যে জনগণের প্রতি বৈরী তার প্রমাণ বাসভাড়া বৃদ্ধির প্রস্তাব। মরার ওপর খাঁড়ার ঘা নীতি আওয়ামী সরকারের প্রতিষ্ঠিত কর্মসূচি। জনগণকে জিম্মি করে রক্তচোষার নীতি এদের একমাত্র চালিকাশক্তি। একে তো করোনার আঘাতে জনজীবন মহাবিপর্যয়ের মধ্যে, দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা এই সপ্তাহে বাঁধভাঙা পানির মতো জনজীবনকে গ্রাস করেছে। ‘দিন আনে দিন খাওয়া মানুষ’, দিনমজুর, রিকশা চালকসহ নিম্ন মধ্যবিত্ত ও নিম্ন আয়ের মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। এর ওপর এই ভাড়া বৃদ্ধি ঐ নিরন্ন ও বিপন্ন মানুষের উপরই কষাঘাত। বাস চালুর আগেই বাসভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্তেই প্রমাণিত হয়-এই সরকার শোষণ ও গরীবকে মারার যন্ত্র। #



 

Show all comments
  • Nadim ahmed ৩১ মে, ২০২০, ১১:৪০ পিএম says : 0
    Obaidul Kader is right. The decision was taken after consulting with SPECIALISTs the likes of NANOK, KA KA, HANIF, MOKHA'A, MOMOTAZ, ASHO KHELBO, SHAJAKHAN, etc. By the way, all they are very much fond of emptying bottle.
    Total Reply(0) Reply
  • আব্দুল মালিক মানিক মিয়া ১ জুন, ২০২০, ৫:১৫ পিএম says : 0
    বদ্যভুমি থেকে কি ভাবে বাঁচা যায় রেজভি সাব একটু বলে দিলে ভালো হতো।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdullah ১ জুন, ২০২০, ৮:৪৮ এএম says : 0
    না খেয়ে মরার চেয়ে খেয়ে করোনায় মরাই (দরিদ্র জনগোষ্টির জন্য) ভাল। তাই বলবো ...সরকারের সিদ্ধান্ত ১০০% সঠিক। পেটের জ্বালা বড় জ্বালারে ভাই...।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রিজভী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ