Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ০৩ জুলাই ২০২০, ১৯ আষাঢ় ১৪২৭, ১১ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

ফের সরব হচ্ছে দেশের ক্রীড়াঙ্গন

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১ জুন, ২০২০, ৮:০২ পিএম

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের সংক্রামণ রুখতে দুই মাসেরও বেশি সময় ধরে অনলাইনেই চলছিল দেশের বিভিন্ন ক্রীড়া ফেডারেশনের সব দাফতরিক কার্যক্রম। তবে সরকার অলিখিত লকডাউন তুলে নেওয়ায় ফের সরব হচ্ছে বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গন। খুলেছে বেশ কিছু ক্রীড়া ফেডারেশন ও সংস্থার অফিস। সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির মেয়াদ শেষ হয়েছে ৩১ মে (রোববার)। এদিন টানা ৬৬দিন বন্ধ থাকার পর খুলেছে সরকারি ও বেসরকারি সব অফিস-আদালত। এরই ধারাবাহিকতায় খুলতে শুরু করেছে ক্রীড়া ফেডারেশনগুলোও। রোববার দেশের বিভিন্ন অফিস-আদালতের মতই খুলে দেয়া হয়েছে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (বিওএ) দরজা। অফিস করেছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। একই দিনে ভার্চুয়াল থেকে টেবিলের কার্যক্রমে ফিরেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনও (বাফুফে)। তবে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষন করেই অফিস খুলতে চায় দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

গত মার্চে বাংলাদেশে করোনাভাইরাস রোগি শনাক্তের পর ওই মাসের মাঝামাঝিতে বন্ধ হয়ে যায় সবকিছু। সরকারের সাধারণ ছুটিতে স্থবির হয়ে পড়ে পুরো দেশ। স্থগিত হয় সব ধরনের খেলাধুলা। বৈশি^ক মহামারির কারণে ইতোমধ্যে ঘরোয়া ফুটবলের চলতি মৌসুম বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। স্থগিত আছে প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ। ঝুলে আছে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ গেমসও। মাঠের খেলা তো দূরের কথা, করোনা আতঙ্কে ক্রীড়া ফেডারেশনগুলোর অফিসে তালা লাগানো হয়। তবে এতোদিন বিভিন্ন ফেডারেশন অনলাইনে তাদের কার্যক্রম চালু রাখে। অবশেষে অলিখিত লকডাউন তুলে নেওয়ায় বিওএ এবং বাফুফের পাশাপাশি সীমিত পরিসরে খুলেছে হ্যান্ডবল ফেডারেশন, আরচ্যারি ফেডারেশন। মাঠের খেলা কবে শুরু হবে তা অজানা থাকলেও তারা অসম্পন্ন কাজগুলো শেষ করতেই অফিস খুলেছে।

এ প্রসঙ্গে বিওএ মহাসচিক সৈয়দ শাহেদ রেজা সোমবার বলেন,‘আমাদের কাজগুলো অনলাইনেই হচ্ছে। রোববার অফিস খুলেছে। যাদের প্রয়োজন তারাই অফিস করছে। পরিস্থিতির উন্নতি হলে আমরা বাংলাদেশ গেমসসহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে কাজ শুরু করবো।’

বাফুফে সাধারন সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ বলেন,‘সরকারি নির্দেশনা মেনে আমরা অফিস খুলেছি। তবে শুরু থেকে আমাদের সব কর্মীদের অফিস বাধ্যতামূলক করিনি। আমরা রোটেশন অনুযায়ী অফিস শিডিউল করেছি। করোনার মধ্যেও আমাদের কাজে কোনো সমস্যা হয়নি। এখন যে বিভাগের কাজ জরুরী তারাই অফিসে আসছেন।’

বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজনের কথা, ‘আমরা এখন সীমিত পর্যায়ে কার্যক্রম চালানোর কথা ভাবছি। তবে কখন পুনরায় খেলা আরম্ভ করা যাবে সে বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারিনি। আমরা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যেমন- ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ, এফটিপি (ভবিষ্যৎ সফরসূচি) এবং কিছু অফিসিয়াল বিষয় নিয়ে কাজ করব। তবে লিগ পুনরায় চালু করা এবং প্রতিশ্রুতিবদ্ধ আন্তর্জাতিক সূচির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার কাজটা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের।’

হকি ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইউসুফ বলেন, ‘ক্রীড়া কার্যক্রম আবার শুরু করতে আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করব এবং জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ (এনএসসি) এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনার জন্য অপেক্ষা করব। পাশাপাশি আমরা ক্লাবগুলোর সঙ্গে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ নিয়ে আলোচনায় বসতে চাই। এফআইএইচ (আন্তর্জাতিক হকি ফেডারেশন) বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হওয়ার জন্য নির্ধারিত আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট সম্পর্কেও জানতে চেয়েছে। আমরা যেকোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে বোর্ড সভায় আলোচনা করব এবং সরকারের নির্দেশিকাগুলো অনুসরণ করব।’

বাংলাদেশ আরচ্যারি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজিব উদ্দিন আহমেদ চপল বলেন, ‘কার্যক্রম কীভাবে পুনরায় চালু করা যায় তা নিয়ে আমরা কাজ করছি। তবে আমরা আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করব। তার আগে সীমিত পরিসরে অফিস চলবে। আপাতত সপ্তাহে তিন দিন অফিস করবেন আমাদের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। দেশের অর্থনীতির স্বার্থে সরকারের সিদ্ধান্ত আমাদের মেনে চলতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে খেলোয়াড়দের স্বাস্থ্যের দিকেও।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন