Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০, ৩০ আষাঢ় ১৪২৭, ২২ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

চিঠিপত্র

| প্রকাশের সময় : ২ জুন, ২০২০, ১২:১২ এএম

বাজেটে কৃষিখাতের প্রতি গুরুত্ব দিন

বাংলাদেশ কৃষিপ্রধান দেশ। এদেশের মাটি যেমন কৃষিকাজ করার জন্য অনেক উপকারী তেমনি বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে কিছুটা থমকে যাচ্ছে আমাদের কৃষিকার্য। তাছারা আমাদের দেশের অর্থনীতির সর্ববৃহৎ তিনটি খাত হল কৃষি, শিল্প ও সেবা খাত। কিন্তু বর্তমানকালে আমদের বাজেটের তৈরি পোশাক রপ্তানিতে শীর্ষ স্থান দখলে থাকলেও করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীর কারণে তা এখন স্থগিত প্রায়। সারাবিশ্বে করোনাভাইরাসের প্রোকোপে নিশ্চল হয়ে পড়েছে বৈশ্বিক অর্থনীতি। এখন সেবাখাতও হয়ে পড়েছে নিশ্চল, সেই সাথে বিশ্বের অনেক দেশ থেকে দেশে ফিরতে বাধ্য হচ্ছে অনেক প্রবাসী বাংলাদেশি। তাই এখন আমাদের হাতে অবশিষ্ট রয়েছে কৃষিখাত। আর এই কৃষিখাতকে কাজে লাগিয়ে কিছুটা হলেও সচল রাখা যেতে পারে আমাদের আগামী দিনের অর্থনীতি। আর সেই লক্ষ্যে আমাদের এগিয়ে যেতে হলে পরবর্তী বাজেটে গুরুত্ব দিতে হবে আমাদের কৃষিখাতের দিকেই। আমাদের দেশের বেশিরভাগ কৃষক তাদের নিজস্ব অর্থকরী দিয়ে সফলভাবে কৃষিকাজ পরিচালনা করতে পারে না। আর এই জন্য তারা তাদের কৃষিকাজ পরিচালনার সুবিধার্থে মুখোমুখি হয় বিভিন্ন বেসরকারি ঋণদানকারী সংস্থার। এইসব ঋণদানকারী প্রতিষ্ঠানের মধ্যে অন্যতম হল ব্র্যাক, আশা ও গ্রামীণ ব্যাংকসহ দেশের অঞ্চলভিত্তিক অনেক ক্ষুদ্রঋণ সংস্থা। আর বেশিরভাগ মানুষ এইসব সংস্থা থেকে ঋণ নিয়ে তাদের কৃষিকাজ পরিচালনা করে থাকেন, কিন্তু অঞ্চলভেদে কিছু কিছু সংস্থা এর বিপরীতে আদায় করে থাকে উচ্চ সুদ। আবার আমাদের দেশের কৃষিপণ্য গুদামজাত করার পর্যাপ্ত পরিমাণে হিমাগার না থাকায় অনেক সময় নষ্ট হয়ে যায় অনেক কৃষিপণ্য। আবার উৎপাদন বেশি হলে মধ্যস্থতাকারী প্রভাবে অনেক সময় ন্যায্য মূল্য পায় না কৃষক। ন্যায্যমূল্য না পাওয়ার কারণেও অনেক সময় কৃষিকার্য থেকে দূরে সরে যান অনেক মানুষ। করোনাভাইরাস যতদিন না নির্মূল হচ্ছে ততদিন আমাদের একমাত্র ভরসা কৃষিখাত। তাই আগামী দিনের অর্থনীতি সচল রাখতে কৃষিখাতের প্রতি গুরুত্ব দিয়ে বরাদ্দ বাড়ানো এখন সময়ের দাবি।
মো. শামীম আল-মামুন
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চিঠিপত্র

৬ জুলাই, ২০২০
৫ জুলাই, ২০২০
৪ জুলাই, ২০২০
৩ জুলাই, ২০২০
২ জুলাই, ২০২০
৩০ জুন, ২০২০
২৯ জুন, ২০২০
২৮ জুন, ২০২০
২৭ জুন, ২০২০
২৬ জুন, ২০২০
২৫ জুন, ২০২০
২৪ জুন, ২০২০
২৩ জুন, ২০২০
২২ জুন, ২০২০
২১ জুন, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন