Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ০৪ জুলাই ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৭, ১২ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

বর্ণবাদ একবিন্দুতে মিলিয়ে দিল দুই ফ্লয়েডকে

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ জুন, ২০২০, ১২:০১ এএম

বর্ণবাদের কালো ছায়া আবারও ঘিরে ফেলেছে পৃথিবীকে। বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনে আটলান্টিকের ওপার এখন উত্তাল। যে আন্দোলনের রেশ লেগেছে বাকি বিশ্বেও। জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যু যে আন্দোলনের জন্ম দিয়েছে, তাতে একে একে নাম লেখাচ্ছেন বিভিন্ন খেলার তারকারা। শুধু আন্দোলনে সচেষ্ট হওয়াই নয়। এই যন্ত্রণাদায়ক ম‚হুর্তে অনেকেই দাঁড়াচ্ছেন ফ্লয়েড-পরিবারের পাশে। এক ফ্লয়েডকে হারালেও, জর্জ ফ্লয়েডের পরিবার কাছে পেয়েছে আরেক ফ্লয়েডকে। তিনি বক্সিং জগতের জীবন্ত কিংবদন্তি ফ্লয়েড ‘মানি’ মেওয়েদার। জর্জের শেষকৃত্যের সকল খরচ বইবার প্রস্তাব দিয়েছেন মেওয়েদার। টুইটারে খবরটি নিশ্চিত করেছে তার বিজ্ঞাপনী সংস্থা মেওয়েদার প্রোডাকশনস। যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় মিডিয়ার খবর, মেওয়েদারের এই সাহায্য গ্রহণ করতে রাজি হয়েছে ফ্লয়েডের পরিবার।
গত ২৫ মে মিনিয়াপোলিসের শ্বেতাঙ্গ পুলিশ অফিসার ডেরেক চৌভিন জর্জ ফ্লয়েডের মাথায় হাঁটু চেপে ধরে তাঁকে মেরে ফেলেন। চৌভিনের বিরুদ্ধে আনা চার্জে লেখা, ৮ মিনিট ৪৬ সেকেন্ড ওভাবে ফ্লয়েডের মাথায় হাঁটু চেপে রেখেছিলেন, এর মধ্যে ২ মিনিট ৫৩ সেকেন্ড ছিল ফ্লয়েড নিস্তেজ হয়ে যাওয়ার পর! ফ্লয়েডের হাতে তখনই হ্যান্ডকাফ পরা ছিল, পুলিশের নির্দেশনা মেনে মাথা মাটির দিকে রেখে মাটিতে শুয়েই ছিলেন তিনি। তবু চৌভিনের ওভাবে হাঁটু দিয়ে মাথা চেপে ধরা। ঘটনার সময়ে আশপাশের মানুষের ধারণ করা ভিডিওতে প্রকাশ পায়, ফ্লয়েড বারবার বলছিলেন, ‘আমি নিঃশ্বাস নিতে পারছি না।’
পুলিশের কথা, ফ্লয়েডের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ ছিল। তাঁকে গ্রেপ্তার করতে গেলে তিনি পুলিশের কাজে বাধা দিয়েছিলেন। কিন্তু পাশের এক রেস্টুরেন্টের সারভেইলেন্স ভিডিওতে দেখা যায়, ফ্লয়েডকে পুলিশ নিয়ে যাওয়ার সময় তিনি দুবার পড়ে গিয়েছিলেন। এ ঘটনার ভিডিও স্থানীয় এক টিভিতে ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হতেই ফুঁসে উঠেছে যুক্তরাষ্ট্র। কৃষ্ণাঙ্গদের প্রতি শেতাঙ্গদের মানবাধিকারবিরোধী কাজের অভিযোগ তো সব সময়ই থাকে। সেটি এখন যেন চ‚ড়ান্ত রূপ পেয়েছে। আর সেই আন্দোলনই এবার একবিন্দুতে মিলিয়ে দিল দুই ফ্লয়েডকে!

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন