Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০, ৩০ আষাঢ় ১৪২৭, ২২ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

বায়তুল মোকাররমে জুমার খুৎবাপূর্ব বয়ানে পেশ ইমাম

ধৈর্য্য-সহনশীলতায় পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হবে

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৭ জুন, ২০২০, ১২:০২ এএম

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের চলমান সঙ্কটকালে অনেকেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে শিথিলতা প্রদর্শন করায় গতকাল জুমার খুৎবাপূর্ব বয়ানে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ বিভিন্ন মসজিদের ইমাম-খতীবরা গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। সামনের দিনগুলোতে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ইসলামী শরিয়তের নীতিমালাগুলো যথাযথ অনুসরণে গুরুত্বারোপ করেছেন ইমামরা।
গতকাল সকালেই বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের প্রত্যেক প্রবেশ পথে জীবাণুনাশক বুথ স্থাপন করা হয়। এক কাতার ফাঁক ফাঁক করে মুসল্লিরা জুমার নামাজ আদায় করেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় এবং স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করেই রাজধানীসহ সারাদেশের মসজিদগুলোতে মুসল্লিরা জুমার নামাজে অংশগ্রহণ করেন।

নগরীর মহাখালীস্থ মসজিদে গাউছুল আজম কমপ্লেক্সে সামাজিক দূরত্ব বজায় এবং যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে জুমার নামাজে প্রচুর মুসল্লির সমাগম ঘটে। অনেক মসজিদে জায়গা সঙ্কুলান না হওয়ায় মুসল্লিদের রাস্তার ওপর জুমার নামাজ আদায় করতে দেখা গেছে।
বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম মুফতি মিজানুর রহমান জুমার খুৎবাপূর্ব বয়ানে বলেন, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে রক্ষায় প্রত্যেক মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ব্যাপারে আরো বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে অনেকের মাঝে শৈথিল্য পরিলক্ষিত হচ্ছে। যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে উদাসীনতা ও গাফলতি অব্যাহত থাকলে পরিস্থিতি আরো অবনতির দিকে গড়াতে পারে। পেশ ইমাম বলেন, কেউ অসুস্থ হলে গোপন না করে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। ধৈর্য্য ও সহনশীলতার মাধ্যমে চলমান ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হবে। পেশ ইমাম স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ইসলামের নীতিমালাগুলো যথাযথ অনুসরণ করার অনুরোধ জানান। মরণঘাতী করোনা থেকে হেফাজতের লক্ষ্যে তিনি বেশি বেশি ইস্তিগফার পড়া এবং আল্লাহকে স্মরণ করার অনুরোধ জানান।

চকবাজার ইসলামবাগ বড় জামে মসজিদের খতীব মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দি গতকাল খুৎবাপূর্ব বয়ানে বলেন, চলমান করোনা মহামারীতে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে আত্মরক্ষা ও সুরক্ষায় যেসকল নির্দেশনাবলী দেয়া হয়েছে সেগুলো অনুসরণ করা তাওয়াক্কুল পরিপন্থী নয়। মনে রাখতে হবে স্বাস্থ্য সুরক্ষায় এসব নির্দেশনা ১৪০০ বছর আগেই পবিত্র কুরআনে ও রাসূল (সা.) এর হাদীসে দেয়া হয়েছে। তিনি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

কামরাঙ্গীরচরস্থ রহমতিয়া জামে মসজিদের খতীব মুফতি সুলতান মহিউদ্দিন বলেন, চলমান মহামারীতেও দ্বীন ছেড়ে দেয়া যাবে না। দেশের মাদরাসা শিক্ষা জাতিকে আদর্শ নাগরিক উপহার দিচ্ছে। যুগে যুগে নবী রাসূলরা ধর্মীয় শিক্ষার মাধ্যমে পথহারা মানুষকে সঠিক পথের দিশা দিয়েছেন। তারা বিপথগামী মানুষকে আলোর পথ দেখিয়েছেন। সেই ধারাবাহিকতায় দেশের মাদরাসাগুলোতে আলেম-ওলামারা আদর্শ মানুষ তৈরিতে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। করোনা সংক্রমণের দরুণ দ্বীনি শিক্ষা ছেড়ে দেয়া যাবে না।



 

Show all comments
  • মোঃ আরিফুল ইসলাম ৬ জুন, ২০২০, ৬:১১ এএম says : 0
    ইয়া মালিক,আমাদের হেফাজত করেন।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Kowaj Ali khan ৬ জুন, ২০২০, ৭:০৭ এএম says : 0
    স্বাস্থ্য বিধি মানা। সকল সময় ওদুর সহিত থাকিবেন। আয়তুল কুরছি পড়িয়া ঘড়ের বাহির হইবেন। হাটতে বসতে আল্লাহ তা'আলার জিকির করিবেন। প্রত্যেক দিন একশত বার করে পড়িবেন লাহাওলাউয়ালা ক্বোয়াতা ইল্লাবিল্লাহিল আলিইল আযীম। ইনশাআল্লাহ। সকল রুগ মুক্ত থাকিতে পারিবেন। ইনশাআল্লাহ।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ