Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ১২ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

শিল্পকলা একাডেমির ব্যাখ্যা

প্রকাশের সময় : ২৬ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বিনোদন ডেস্ক : তীরন্দাজ নাট্যদলের কর্মকাÐ নিয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। শিল্পকলার জনসংযোগ বিভাগ থেকে প্রেরিত এক ব্যাখ্যা পত্রে দলটির কর্মকাÐ এবং তার ব্যাখ্যা দেয়া হয়। পত্রে উল্লেখ করা হয়, অত্যন্ত দুঃখের সাথে লক্ষ্য করা যাচ্ছে, তীরন্দাজ নাট্যদল নামের একটি সংগঠন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, বরেণ্য নাট্যব্যক্তিত্ব ও নাট্যচর্চার সুনাম ক্ষুণœ করার জন্য ক্রমাগতভাবে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। তারা সংস্কৃতিকর্মী ও সাংবাদিকদের বিভ্রান্ত করতে অসত্য তথ্য প্রচার করছে। তারা অভিযোগ করছে, গত ২০ জুলাই শিল্পকলা একাডেমি তাদের নাটক করতে দেয়নি। তাদের এই বক্তব্য পুরোপুরি সত্যের অপলাপ। নাটকের প্রদর্শনীর আগে আয়োজিত তাদের অনির্ধারিত সুন্দরবন চুরি বিষয়ক ‘বাকবিতÐা ও বাহাস’ অনুষ্ঠানটি না করতে শিল্পকলা একাডেমি কর্তৃপক্ষ অনুরোধ করে। তারা শুধু নাটক প্রদর্শনের জন্যই অনুমতি বা হল বরাদ্দ নিয়েছিল। মিলনায়তন বরাদ্দ ফরমে নাটকের আগে বা পরে কোনো আলোচনা বা আয়োজন উল্লেখ করা হয়নি। উল্লেখ্য, ‘কণ্ঠনালীতে সূর্য’ নাটকে সুন্দরবন চুরির প্রতিবাদ হিসেবে প্রচার করলেও এই নাটকটির সাথে সুন্দরবন বা পরিবেশকেন্দ্রিক কোনো ইস্যুর সম্পৃক্ততা নেই। শিল্পকলা একাডেমির মঞ্চেই এই নাটকটির প্রথম মঞ্চায়ন করে এবং বিগত সময়ে নাটকটির ১০ থেকে ১২টি প্রদর্শনী করেছে। শিল্পকলা একাডেমি যদি নাটক করতে বাধা দিত, তাহলে এতগুলো প্রদর্শনী করল কীভাবে? প্রকৃত বাস্তবতা হচ্ছে, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি নাটক করতে কোন বাধা প্রদান করেনি। বরং ‘বাকবিতÐা ও বাহাস’ অনুষ্ঠান না করতে অনুরোধ করায় তীরন্দাজ নাট্যদল নাটকটির মঞ্চায়ন করেনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।