Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

৬ ঘণ্টা পড়ে ছিল লাশ : পরে এমপি খোকার সহায়তায় দাফন

স্টাফ রিপোর্টার নারায়ণগঞ্জ থেকে | প্রকাশের সময় : ৬ জুন, ২০২০, ৩:৩৬ পিএম

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে করোনার উপসর্গ নিয়ে আউলিয়া বেগম নামের এক মহিলা মারা যাওয়ার পর ভয়ে লাশ দাফনে কেউ এগিয়ে আসেনি। মারা যাওয়ার পর প্রায় ৬ ঘণ্টা লাশ ঘরের ভেতরে পড়ে ছিল, ভয়ে কোনো আত্মীয় স্বজন এগিয়ে আসেননি। রাত ১২ টায় দিকে নিহতের বাড়িতে গিয়ে লাশ দাফনের ব্যবস্থা করলেন এমপি খোকার স্বেচ্ছাসেবক টিম।

শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের আলমপুরা গ্রামের হোসেন আলীর স্ত্রী আউলিয়া বেগম করোনা উপর্সগ নিয়ে মারা যান।

এলাকাবাসী জানায়, আউলিয়া বেগম কয়েকদিন ধরে জ্বর, ঠান্ডা, শ্বাস কষ্ট ও গলা ব্যাথাসহ বিভিন্ন উপসর্গ নিয়ে ভোগছিলেন।

শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে ওই মহিলার মৃত্যু হয়। মৃত্যুর পর ভয়ে আত্মীয় স্বজন ও এলাকাবাসী করোনার ভয়ে লাশের পাশে যাননি। খবর পেয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা তার স্বেচ্ছাসেবক টিমকে রাতে দাফনের জন্য নিহতের বাড়িতে পাঠান। রাত ১২টার দিকে স্বেচ্ছাসেবক টিম উপস্থিত হয়ে লাশ ঘর থেকে বের করে গোসল করিয়ে জানাযা দিয়ে রাত তিনটার দিকে বাড়িতে ফেরেন।

স্বেচ্ছাসেবক টিমের লিডার মো. সানাউল্লাহ বেপারি বলেন, এমপি রাতেই নিহতের লাশ দাফনের জন্য ওই বাড়িতে পাঠান। রাত ১২টার দিকে ওই বাড়িতে গিয়ে লাশ ঘর থেকে বের করে নানাখি কবরস্থানে দাফন করা হয়।

মো. সানাউল্লাহ বেপারীর নেতৃত্বে স্বেচ্ছাসেবক টিমে ছিলেন, মো. আবু কালাম, মো. আলী আকবর, মো. গোলজার হোসেন, মাহমুদুল হাসান হৃদয়, গাজী শাহ আলম, মোহাম্মদ ওমর ফারুক, মো. মামুন, মহিলা স্বেচ্ছাসেবক মোসাম্মৎ হোসনেয়ারা বেগম ও আল আমিন।

এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় বিভিন্ন পর্যায়ে টিম গঠন করে দেয়া হয়েছে। করোনা মরে লাশ পরে থাকে দাফনের জন্য কেউ এগিয়ে আসে না। এটা অমানবিক। পরে স্বেচ্ছাসেবক টিম গিয়ে রাতে দাফন করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন