Inqilab Logo

রোববার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০১ কার্তিক ১৪২৮, ০৯ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

ছেলে সন্তান বা মেয়ে সন্তানের জন্য আকিকার নিয়ম কি? আকিকার গোস্ত বন্টনের নিয়ম কি? আকিকা দেওয়াটা কি জরুরী?

আবু তাহের
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ৭ জুন, ২০২০, ৭:১৫ পিএম

উত্তর : সংগতি থাকলে ছেলের জন্য দু’টি খাশি। আর মেয়ের জন্য একটি খাশি। এটিই একটি সন্তান আল্লাহর দান হিসাবে পাওয়ার শুকরিয়া স্বরূপ এবং সন্তানটির বালা মুসিবত কেটে যাওয়ার জন্য দেয়া মুস্তাহাব। কেউ যদি না পারে, তাহলে কোনো বাধ্য বাধকতা নেই। মনে চাইলে পরেও দিতে পারবে। আকীকার গোশত নিজেরা, আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধব, পাড়া-প্রতিবেশী, সন্তানের পিতা-মাতা, ধনী-গরিব সবাই খেতে পারে।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
[email protected]

 

ইসলামিক প্রশ্নোত্তর বিভাগে প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা
[email protected]



 

Show all comments
  • আআ রহমান ৮ জুন, ২০২০, ১২:০৪ পিএম says : 0
    ইনকিলাবে ফিতরা নিয়ে একটি লেখায় দেখলাম, "ঋণগ্রস্ত ব্যক্তির ফিতরা : অতিরিক্ত সামানপত্র বিক্রয়লব্ধ অর্থ দ্বারা যদি সাদকায়ে ফিতর আদায় করার পরও ঋণগ্রস্ত ব্যক্তির নিসাব পরিমাণ টাকা অবশিষ্ট থাকে, তাহলে সাদকায়ে ফিতর আদায় ওয়াজিব হবে।" এই কথাটি বুঝলাম না - কেউ কি একটু পরিষ্কার করে বলে দেবেন? উদাহরন দিয়ে?
    Total Reply(0) Reply
  • সাজিদুর রহমান ১০ জুন, ২০২০, ৩:৪২ পিএম says : 0
    ঘুষের টাকার যাকাত দিলে উক্ত টাকা কি বৈধ হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Jahangir Alam ১৬ জুন, ২০২০, ১১:১৭ এএম says : 0
    ছেলে ও মেয়ের মাঝে আকিকার এই বিভেদ কেন?
    Total Reply(0) Reply
  • boby ১১ জুলাই, ২০২০, ১১:৪২ এএম says : 0
    sele meyer mjhey biveb nai amr motey Allah meye jati k beshi rahmat dan koresen tai tader jonmo jno mata pitr upor chap hoia na daray tai meyeder akikay akta sagol ditey bolesen aeita meye der jonno birat paoa r meyer bab ma der o r seleder k aeita bujhei meye der proti aro beshi respect ana jekhan a Allah e beshi morjada dieasen oikhaney amra manushra kno manbo na .
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আকিকা


আরও
আরও পড়ুন

আমার বান্ধবীর ৭ বছর আগে বিয়ে হয়েছিল। এখনো সে তার স্বামীর সাথেই আছে। তারা এখনো কোন সন্তান নেয়নি। আমার বান্ধবীর সাথে তার স্বামীর বনিবনা হয় না। তারা অধিকাংশ সময় দূরেই থাকে। এমতাবস্থায় ওর স্বামীও ওর প্রতি সন্তুষ্ট না। মাঝে মাঝে ওদের মধ্যে যখন ঝগড়া হয় তখন ওর স্বামী ওকে তালাক দেয় কিন্তু পরবর্তীতে ওর স্বামী তালাকের কথা উচ্চারণ করার জন্য ওর কাছে মাফ চায়। কিন্তু আমার বান্ধবী ওর স্বামীর সাথে আর থাকতে চায় না। ডিভোর্স চায়। কিন্তু ওর স্বামী ডিভোর্স দেয় না। এখন আমার বান্ধবী ওর স্বামীকে ডিভোর্স দিতে পারবে কি?

উত্তর : আপনার বান্ধবীকে যদি তার স্বামী মৌখিকভাবে তিন তালাক দিয়ে থাকে, তাহলে তারা এখন আর স্বামী স্ত্রী নয়। এখন একসাথে বসবাস জায়েজ হচ্ছে না।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ