Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

চার বছর ধরে ডিলারের পেটে

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল

উজিরপুর (বরিশাল) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১৪ জুন, ২০২০, ১২:০০ এএম

বরিশালের উজিরপুরের বামরাইল ইউনিয়নের ১৮টি দুস্থ পরিবারের নামে বরাদ্দকৃত সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল চার বছর ধরে আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে এক ডিলারের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় বামরাইল ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আব্দুস সালাম অভিযুক্ত ডিলারের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।
কালিহাতা গ্রামের বিধবা মাহফুজা বেগম জানান, চার বছর আগে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তার নামে একটি রেশন কার্ড প্রদান করা হয়। সে অনুযায়ী তিনি দুইবার চাল উত্তোলন করেছেন। এরপর উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তার কার্যালয়ে রেশন কার্ড জমা দেয়ার কথা বলে নিয়ে যায় বামরাইল ইউনিয়ন খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ডিলার আব্দুল্লাহ আল মাতিন। সেই থেকে তিনি আর কোন চাল উত্তোলন করতে পারেননি। একই গ্রামের আব্দুল আজিজ জানান, গত কয়েকদিন আগে স্থানীয় ইউপি সদস্যের মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন তার নামে রেশন কার্ড রয়েছে। কিন্তু এ পর্যন্ত একবারও তিনি কার্ডের চাল উত্তোলন করতে পারেননি।
ইউপি সদস্য আব্দুস সালাম জানান, গত চার বছর আগে তার ওয়ার্ডের (কালিহাতা) দুস্থ পরিবারের নামের তালিকা ইউনিয়ন পরিষদে জমা দেয়া হয়। সেই অনুযায়ী ইউপি চেয়ারম্যান ইউসুফ হাওলাদার ডিলারের কার্ড হস্তান্তর করেন। কিন্তু আমার ওয়ার্ডের পূর্ণ তালিকা অদ্যাবধি পাইনি। গত কয়েকদিন আগে কার্ডের হালনাগাদের জন্য বলা হলে ডিলার আব্দুল্লাহ আল মাতিনের চাল আত্মসাতের বিষয়টি ধরা পড়ে।
তিনি আরও জানান, ডিলারের কার্ড ও চাল আত্মসাতের বিষয়টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইউসুফ হাওলাদারকে জানানো হলেও ডিলার ইউপি চেয়ারম্যানের নিকটাত্মীয় হওয়ায় কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। বরং পূর্বের সবকিছু ভুলে নতুনভাবে যাতে এরকম ঘটনা না হয় সেটা মেনে নিতে বলছেন।
এর আগে উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তাকে জানানো সত্তে¡ও তিনি কোন ব্যবস্থা নেননি। ফলে ডিলারের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
বামরাইল ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য শরিফুল ইসলাম বাদল জানান, তার ওয়ার্ডের চারজনের নামের কার্ড ও চাল আত্মসাৎ করছেন ডিলার। ৫ নম্বর ওয়ার্ড (সানুহার-আটিপাড়া) গ্রামের ইউপি সদস্য জাকির হোসেন জানান, তার ওয়ার্ডের দুইজনের নাম তালিকায় থাকলেও কার্ড ও চাল পাননি। এভাবেই ওই ইউনিয়নের ১৮টি দুস্থ পরিবারের নামে বরাদ্দকৃত সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল চার বছর ধরে আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে ওই ডিলারের বিরুদ্ধে।
উজিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণতি বিশ্বাস বলেন, এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কর্মসূচি

২২ মার্চ, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন