Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭, ২৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে পুলিশের পদক্ষেপ

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১৫ জুন, ২০২০, ১২:০০ এএম

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের বিভিন্ন এলাকায় পরিবহনে চাঁদাবাজি বন্ধে সালনা হাইওয়ে পুলিশের উদ্যোগে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। হাইওয়ে পুলিশের এডিশনাল আইজিপি মল্লিক ফখরুল ইসলাম বিপিএম, পিপিএম-এর কঠোর নির্দেশনায় চাঁদাবাজি বন্ধে পুলিশ কাজ করছে। এরই মধ্যে গাজীপুর রিজিয়ন হাইওয়ে পুলিশ সুপার আলী আহমদ খান সর্তক ও সচেতনতার জন্য একটি লিফলেট বিতরণ করেছেন। এ ছাড়া মতবিনিময় ও অবহিতকরণ সভা এবং চাঁদাবাজির মামলা দিয়ে কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপরদিকে পরিবহন মালিক-শ্রমিক সংশ্লিষ্টদের নিয়ে আলোচনা সভা ও হাইওয়ে পুলিশকে সার্বক্ষণিক সড়কে থেকে চাঁদবাজি বন্ধে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন।

সালনা হাইওয়ে থানার ওসি মো. জহিরুল ইসলাম খান পিপিএম জানান, চাঁদাবাজি বন্ধে প্রথম থেকেই হাইওয়ে পুলিশ কাজ করছে। সালনা হাইওয়ে থানা পুলিশই প্রথম চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে মামলা করে। মহাসড়কে চাঁদা আদায়কালীন কালিয়াকৈর থানা, সাভার হাইওয়ে থানা ও আশুলিয়া থানায় মামলা রুজু করে। জনসচেতনতা বৃদ্ধি করে চাঁদাবাজি মুক্ত মহাসড়ক গড়তে কাজ করছে হাইওয়ে পুলিশ।

হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের বিভিন্ন এলাকায় পরিবহনে চাঁদাবাজি হচ্ছে। ফলে হাইওয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে মহাসড়কে চাঁদাবাজি মুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। শ্রমিক নেতা ও হাইওয়ে পুলিশের কেউ চাঁদাবাজি করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইতোপূর্বে সফিপুর ও চন্দ্রা এলাকায় পরিবহনে চাঁদাবাজির অপরাধে পাঁচজনের নামে মামলা দিয়ে জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়। চাঁদাবাজি বন্ধে সচেতনতার জন্য পুলিশ-শ্রমিক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। সড়ক ও মহাসড়কে চাঁদাবাজি রোধকল্পে হাইওয়ে পুলিশ, জেলা পুলিশ, জেলা প্রশাসন, পরিবহন ও শ্রমিক সংগঠনের সাথে সমন্বিতভাবে কাজ করার উদ্যোগ গ্রহন করা হচ্ছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মহাসড়ক

১৩ আগস্ট, ২০২০
৩০ জুলাই, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন