Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার , ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

সীতাকুন্ড শিপ রি-সাইক্লিং ব্যবসায়ীদের পাল্টাপাল্টি কমিটি নিয়ে উত্তেজনা

প্রকাশের সময় : ২৭ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সীতাকুÐ (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা : সীতাকুÐে অবস্থিত জাহাজ ভাঙা সরঞ্জামের ব্যবসায়ীদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব শিপ রি-সাইক্লিং ইন বাংলাদেশ (এএসআরবি) নিয়ে ব্যবসায়ীদের দু’পক্ষের দ্ব›দ্ব চরম আকার ধারণ করেছে। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে চলছে মামলা-মোকদ্দমা, গঠন হয়েছে পাল্টাপাল্টি কমিটি, যা সর্বসাধারণের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করেছে।
সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে জানা যায়, সীতাকুÐে অবস্থিত দেশের একমাত্র জাহাজ ভাঙা শিল্প মালিকরা সবাই বাংলাদেশ শিপব্রেকার্স অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য। কোনো মালিক স্ক্র্যাপ জাহাজ আমদানি করতে এই অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য হওয়া বাধ্যতামূলক ছিল। কিন্তু কিছুদিন আগে এক শিপব্রেকার্স আবুল কাশেম রাজা বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে তদবির করে অ্যাসোসিয়েশন অব শিপ রি-সাইক্লিং ইন বাংলাদেশ নামে অন্য একটি প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন আনেন। এ নিয়ে শিপব্রেকার্সদের মূল সংগঠন বিএসবিএর সাথে তার দ্ব›দ্ব শুরু হয়। আবুল কাশেম রাজার কমিটি বাতিলের আর্জি নিয়ে মামলা করলে দুই পক্ষের মধ্যে দ্ব›দ্ব তীব্র আকার ধারণ করে।
উভয় পক্ষ উচ্চ আদালতের শরণাপন্ন হন। এর মধ্যে কিছুদিন আগে আবুল কাশেম রাজা কৌশলে তার পুরনো সংগঠন শিপব্রেকার্স অ্যাসোসিয়েশনে এসে তাদের সাথে একটি সমঝোতা চুক্তি করে তিনি অ্যাসোসিয়েশন অব শিপ রি-সাইক্লিং ইন বাংলাদেশ থেকে পদত্যাগ করে আবার শিপব্রেকিং অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য হিসেবে স্ক্র্যাপ জাহাজ আমদানি করতে থাকেন। এ নিয়ে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ তাকে প্রশ্ন করলে তিনি এএসআরবিতে পদত্যাগপত্র পাঠান। এতে অ্যাসোসিয়েশন অব শিপ রি-সাইক্লিং ইন বাংলাদেশ-এর অন্য নেতৃবৃন্দ ও সদস্যদের সাথে দ্ব›দ্ব সৃষ্টি হয়। পূর্বের কমিটির নেতৃবৃন্দ এ বিষয়টি তৎকালীন ইসিকে জানালে ইসি যথানিয়মে সভা ডেকে আবুল কাশেম রাজার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করে যথানিয়মে তার স্থলে মুশফিকুল সিরাতকে সভাপতি অনুমোদন করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে আবুল কাসেম রাজা সীতাকুÐের বিভিন্ন এলাকার শিপের মালামাল বিক্রেতাদের নিয়ে আবারো একই নামে অ্যাসোসিয়েশন অব শিপ রি-সাইক্লিং ইন বাংলাদেশ নামে সংগঠন করে তার কমিটিই বৈধ বলে প্রচার করতে থাকেন। এএসআরবির এক পক্ষের (পুরনো কমিটির) বর্তমান মহাসচিব এরফানুল হক নাহিদ জানান, গত ২১.০৯.২০১৫ ইং তারিখে উপ-সচিব কামরুল ইসলাম চৌধুরী স্বাক্ষরিত বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে প্রেরিত এক পত্রে আবুল কাশেম রাজাকে এএসআরবির আহŸায়ক/সভাপতি উল্লেখ করা হলে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়। সংগঠন থেকে পদত্যাগ করায় যিনি সদস্যও নেই তাকে আহŸায়ক/ সভাপতি উল্লেখ করায় আমরা সেই চিঠির বিষয়ে হাইকোর্টে রিট পিটিশন (নং-২৩৯৫/১৬) দাখিল করলে মহামান্য হাইকোর্ট ঐ চিঠির কার্যকারিতা স্থগিত করেন এবং পরবর্তী মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের আপিলের (নং-৮৪৯/১৬ইং) নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা নির্বাচন সম্পন্ন করি। এতে সভাপতি নির্বাচিত হন মুশফিকুল সিরাত, সহ-সভাপতি অসীম সরকার বাঁধন ও মহাসচিব এরফানুল হক নাহিদ। এছাড়া কার্যনির্বাহী সদস্য রয়েছেন ১৪ জন, যা ২২ জুলাই পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রদানের মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছে। এদিকে অপর পক্ষের সভাপতি আবুল কাশেম রাজা ২৩ জুলাই এএসআরবির নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়ে ২৪ জুলাই পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন। এ বিষয়ে আবুল কাশেম রাজা বলেন, তিনিই সঠিক নিয়মে নির্বাচনের মাধ্যমে এএসআরবি’র কমিটি গঠন করেছেন। অন্য যারা এএসআরবির কমিটি দাবি করছে সেখানে শিপব্রেকার্স নেই। এদিকে শিপ রি-সাইক্লিং নিয়ে দু’পক্ষের পাল্টাপাল্টি কমিটি, মামলা-মোকদ্দমাসহ বিভিন্ন ঘটনা প্রসঙ্গে বাংলাদেশ শিপব্রেকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএসবিএ)-এর ভারপ্রাপ্ত সহ-সভাপতি পিএইচপি শিপব্রেকিংয়ের এমডি জহিরুল ইসলাম রিংকু প্রতিবেদককে বলেন, ১৯৮২ সাল থেকে শিপব্রেকার্সদের সংগঠন বাংলাদেশ শিপব্রেকার্স অ্যাসোসিয়েশন।
কিন্তু সম্প্রতি দেখছি অ্যাসোসিয়েশন অব শিপ রি-সাইক্লিং ইন বাংলাদেশ নাম দিয়ে দুই পক্ষ পাল্টাপাল্টি কমিটি, মামলা-মোকদ্দমায় লিপ্ত হয়েছে। তিনি বলেন, কিভাবে এসব কমিটি গঠন হলো বোধগম্য নয়। তবে সম্প্রতি মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। তারা জানতে চেয়েছে বাংলাদেশ শিপব্রেকার্স অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যদের পূর্ণাঙ্গ নাম-ঠিকানা এবং কোন শিপব্রেকার্স গত এক বছরে কতগুলো স্ক্র্যাপ জাহাজ আমদানি করেছেন। একইভাবে এসব তথ্য চাওয়া হয়েছে অ্যাসোসিয়েশন অব শিপ রি-সাইক্লিং ইন বাংলাদেশ নামধারী দুই সংগঠনকেও। নিয়মানুযায়ী এভাবে কোনো কমিটি গঠন করা যায় না।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ