Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭, ২৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

ইন্দুরকানীতে বেড়াতে এসে কিশোরী গণধর্ষণের শিকার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ জুন, ২০২০, ১:২১ পিএম

পিরোজপুর জেলায় ইন্দুরকানীতে মামার বাড়িতে বেড়াতে এসে এক কিশোরী (১৭) গণধর্ষণের শিকার হয়েছে । এ ঘটনায় সোমবার রাতে ওই কিশোরী বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করে। ভুক্তভোগী কিশোরীর বাড়ি বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জের আমতলা গ্রামে।

অভিযুক্ত জাহিদ শেখ (২৫) উপজেলার বালিপাড়া গ্রামের আবুল বাশার শেখের ছেলে ও তার বন্ধু স্থানীয় বালিপাড়া বাজারের হ্যামিও চিকিৎসক মো. মনিরুল ইসলাম মনির একই এলাকার নুরুল ইসলাম শেখের ছেলে।

থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কিশোরীর পরিবার ভারতের বেঙ্গালুরুতে ছিল। প্রায় ১ বছর আগে বাংলাদেশে ফিরে আসেন তারা। সেখান থেকে ১০/১১ দিন আগে ইন্দুরকানীতে মধ্যবালিপাড়া গ্রামে মামাবাড়িতে বেড়াতে আসে এ কিশোরী।

গত শুক্রবার বিকেলে দূর সম্পর্কের মামা জাহিদ ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে তাকে বালিপাড়া বাজারে নিয়ে যায়। পরে কৌশলে তাকে কোমল পানির সাথে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে দেয়। পরে জাহিদ ও তার বন্ধু হ্যামিও চিকিৎসক মনিরুলের সহায়তায় ওই কিশোরীকে অচেতন অবস্থায় মনিরুলের দাদা বাড়িতে আটকে রেখে ৩ দিন ধরে ধর্ষণ করে। এসময় জাহিদের বন্ধু মনিরুল ধর্ষণের ভিডিও করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে সেও ধর্ষণ করে।

পরে গত রোববার বিকেলে কিশোরীকে ঘরে ফেলে চলে যায় ধর্ষক জাহিদ ও তার বন্ধু মনির। সেখান থেকে মামাবাড়িতে ফেরার পথে স্থানীয় কয়েক তরুণ ওই কিশোরীর সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। পরে ওই মোবাইল ফোনে ধর্ষণের ভিডিও দেখলে তারা কিশোরীর মামাবাড়ির পরিবার ও ধর্ষকদের কাছে চাঁদা দাবি করে।

উপজেলা থানা পুলিশের ওসি মো. হাবিবুর রহমান বলেন, সোমবার স্থানীয়দের কাছ থেকে আমরা শুনে ভুক্তভোগী ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে থানায় আনি। পরে ওই কিশোরী বাদী হয়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে রাতেই মামলা দায়ের করে। অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গণধর্ষণ

২৯ এপ্রিল, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ