Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ০৮ আগস্ট ২০২০, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৭ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

বাজেটে স্বাস্থ্যখাত নিয়ে মস্করা করা হয়েছে -ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৬ জুন, ২০২০, ৬:৪৮ পিএম

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেছেন, প্রস্তাবিত বাজেটে স্বাস্থ্যখাত কম বরাদ্দ দিয়ে জাতির সাথে মস্করা করা হয়েছে। করোনার এই কঠিন মুহূর্তে স্বাস্থ্যখাত নিয়ে এই নির্মম তামাশায় জনগণ হতবাক হয়েছে। গোটা বিশ্ব যেখানে করোনার ভয়াল থাবা থেকে বাঁচতে মরিয়া, সেখানে এই বাজেটে মাত্র ৫হাজার ৫৫৫ কোটি টাকা বাড়িয়ে মাত্র ২৯ হাজার ২৪৭ কোটি টাকা প্রস্তাব করা হয়েছে। ইউনুছ আহমাদ বলেন, ২৯ হাজার ২৪৭ কোটি টাকার অর্ধেকের বেশি অর্থাৎ ১৬ হাজার ৭৪৭ কোটি টাকা চলে যাবে কেবল বেতন ভাতা ও পরিচালন ব্যয়ে। বাকি টাকার বড় একটি অংশ যাবে ভবন নির্মাণ ও অবকাঠামো খাতে। স্বাস্থ্য সেবার মৌলিক উন্নয়ন ও গবেষণায় তেমন কোন বরাদ্দ নেই। বাজেটে স্বাস্থ্যখাতকে এতোটা অবহেলা করা মোটেই ঠিক হয়নি।

আজ মঙ্গলবার এক অডিও বার্তায় বাজেট নিয়ে ইউনুছ আহমাদ বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন অনুযায়ি বাজেটের ১৫% ও জিডিপির ৫% স্বাস্থ্যখাতে ব্যয় করার কথা। কিন্তু বাজেটের ৫% ও জিডিপির ১% এর কম স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ দেয়া হয়।
ইউনুছ আহমাদ আরও বলেন, দক্ষিণ এশিয়াতেই স্বাস্থ্যখাতে মাথাপিছু মালদ্বীপ ব্যয় করে ২০০০ ডলার, শ্রীলংকার ৩৬৯, ভারত ২৬৭, পাকিস্তান ১২৯, আর বাংলাদেশ ব্যয় করে মাত্র ৮৮ডলার। জিডিপির তুলনায় স্বাস্থ্যখাতে সবচেয়ে কম ব্যয় করে যথাক্রমে মোনাকো, পাপুয়া নিউগিনি ও ব্রুনাই। বাংলাদেশ এই তিনটিরও পেছনে।
তিনি বলেন, বাজেটে অর্থমন্ত্রী ১০ হাজার কোটি টাকার থোক বরাদ্দ দিয়েছেন। এই থোক বরাদ্দ কি তিনি দুর্নীতিবাজদের উপহার হিসেবে দিলেন?
তিনি বলেন, এই ২৯হাজার ২৪৭ কোটি টাকার মধ্যে বিশ্বব্যাংক ও এডিবির দু‘টি প্রকল্পের ২হাজার ৪৯৩ কোটি টাকা রয়েছে। এগুলো বাদদিলে গত অর্থ বছরের তুলনায় এবার স্বাস্থ্য খাতে মাত্র ১ হাজার ২২ কোটি টাকা বেশি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।
মানববন্ধন কর্মসূচি ঃ দুর্নীতিবাজদের বৈধতাদানের বাজেট প্রত্যাহার এবং জীবন ও জীবিকা বাঁচানোর বাজেট ঘোষণার দাবিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে আগামীকাল বুধবার দুপুর ১২টায় জাতীয় প্রেসক্লাব সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন সংগঠনের প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যক্ষ মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ