Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ২১ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

কাতারে এবার তালেবানের সঙ্গে শান্তি বৈঠকে বসছে কাবুল সরকার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ জুন, ২০২০, ১২:২৭ পিএম

আফগানিস্তানের সরকার ও তালেবান গোষ্ঠী প্রথমবারের মতো উচ্চ পর্যায়ের শান্তি বৈঠকে বসতে যাচ্ছে। কাতারের রাজধানী দোহায় এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। তবে এ বিষয়ে দুই পক্ষ থেকে এখনো সুনির্দিষ্ট কোনো তারিখ ঘোষণা করা হয় নি। দেশটিতে দীর্ঘদিন ধরে সরকারি বাহিনী ও সাধারণ মানুষকে টার্গেট করে হামলা চালিয়ে আসছে তালেবান। এ খবর দিয়েছে অনলাইন সাউথ এশিয়ান মনিটর।

তালেবানকে নিয়ন্ত্রণে আনতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছে আফগান বাহিনীও। তবে এবার সমঝোতায় যেতে চায় উভয় পক্ষই। এই সংলাপ হতে যাচ্ছে দুই পক্ষের মধ্যে প্রথম উচ্চ পর্যায়ের কোনো বৈঠক। এখনো এর কোনো দিন তারিখ ঠিক করা হয়নি। এর আগে কাতারের রাজধানী দোহায় মার্কিন সরকারের সঙ্গে তালেবানের দীর্ঘ আলোচনার পর চলতি বছরের প্রথম দিকে একটি কথিত শান্তি চুক্তি সই হয়।

তালেবানরা আশ্বাস দিয়েছে, তারা পূর্বের কট্টাপন্থি অবস্থান থেকে সরে এসে উদার রাজনৈতিক আচরণ করবে। নারী স্বাধীনতা থেকে শুরু করে আফগানিস্তানে গণতান্ত্রিক অবস্থা জারি রাখার নিশ্চয়তা দেয় তালেবান। তবে এখনো আফগান সরকারের সঙ্গে কোনো ধরণের সমঝোতা হয়নি তালেবানের। তালেবান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছে, প্রথম আফগান শান্তি আলোচনা হবে দোহায়। এর আগে ইতিমধ্যে আটক জঙ্গিদের মুক্তি দেয়ার বিষয়ে নিশ্চয়তা চায় তালেবান।

এদিকে, আফগান প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের মুখপাত্র সেদিক সিদ্দিকিও একটি টুইটে জানিয়েছেন, প্রথম বৈঠকের জন্য দোহাকে ভেন্যু হিসেবে বাছাই করা হয়েছে। তবে তাকে স্থায়ী ভেন্যু হিসেবে ব্যাবহার করা হবে কিনা তা এখনো নির্ধারিত হয়নি।

আফগান সরকার শিগগিরই ৫,০০০ তালেবান বন্দিকে মুক্তি দেয়া শেষ করবে। এরপরই আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সরকার ও তালেবানের মধ্যে শান্তি বৈঠক হতে পারে। তালেবান ও আমেরিকার মধ্যে চুক্তির শর্ত অনুসারে কাবুল সরকার তালেবানের তিন হাজার বন্দীকে মুক্তি দিয়েছে। ওই চুক্তির আওতায় মার্কিন সরকার আফগানিস্তান থেকে তাদের সেনা প্রত্যাহার করে নেবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আফগানিস্তান


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ