Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ০৭ আগস্ট ২০২০, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৬ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

জার্মানির শান্তি পুরস্কার পেলেন অমর্ত্য সেন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ জুন, ২০২০, ৫:০৮ পিএম

নোবেলজয়ী ভারতীয় অর্থনীতিবিদ ও দার্শনিক অমর্ত্য সেন জার্মান বুক ট্রেডের পক্ষ থেকে ২০২০ শান্তি সম্মান পেলেন। ফ্রাঙ্কফুর্টের জার্মান বুক ট্রেডের স্টক এক্সচেঞ্জ অ্যাসোসিয়েশন এই ঘোষণা করেছে। কোয়েশ্চেন অফ গ্লোবাল জাস্টিস বা বিশ্ব জুড়ে ন্যায়বিচারের পক্ষে তার কাজকে সম্মান জানিয়েই এই পুরস্কার তার হাতে তুলে দেয়া হলো।

জার্মান পাবলিশার্স অ্যান্ড বুকসেলারস অ্যাসোসিয়েশন বরসেনভেরেইন এই বছরের শান্তি সম্মানের জন্য অমর্ত্য সেনের প্রস্তাব করে। ৮৬ বছর বয়েসী এই অর্থনীতিবিদ ও বিশ্ব ন্যায়, স্বাস্থ্য ও শিক্ষা পরিষেবার বৈষম্যের বিরুদ্ধে বরাবরই সোচ্চার। সেই পদক্ষেপের প্রশংসা করে এই সম্মান তার হাতে তুলে দেওয়া হবে। জার্মান বুক ট্রেডের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘অমর্ত্য সেনকে আমরা একজন দার্শনিককে সম্মান করি, যিনি একজন চিন্তাশীল নেতা হিসেবে দশকের পর দশক ধরে বৈশ্বিক ন্যায়বিচারের প্রশ্নের মোকাবেলা করছেন। তার কাজ সামাজিক বৈষম্যের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি অবদান রাখে।’

জার্মান বুক ট্রেডের শান্তি পুরস্কারে ২৫ হাজার ইউরো প্রদান করা হয় এবং অক্টোবরে সেন্ট পলস চার্চের ফ্রাঙ্কফুর্ট বইমেলায় পুরস্কৃত করা হবে। ১৯৫০ সাল থেকে, তারা স্টক এক্সচেঞ্জ এসোসিয়েশন, বইয়ের দোকান এবং প্রকাশকদের পেশাদারী সংস্থার সাথে একত্রে পুরস্কার প্রদান করে আসছে। জার্মান বুক ট্রেডের শান্তি পুরস্কারের সংবিধানে বলা হয়েছে: ‘ফাউন্ডেশন শান্তি, মানবতা এবং জনগণের উপলব্ধি কে সেবা করে।’ কলা, সাহিত্য এবং বিজ্ঞানের ব্যক্তিত্বদের সম্মানিত করা যেতে পারে। গত বছর একজন ফটোগ্রাফারকে প্রথমবারের মত পুরস্কৃত করেন সেবাস্টিয়ান সালগাদো।

অমর্ত্য সেন ১৯৩৩ সালে পশ্চিমবঙ্গে জন্মগ্রহণ করেন এবং বর্তমানে কেমব্রিজে (ম্যাসাচুসেটস/মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র) বাস করেন। ১৯৯৮ সালে তিনি অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। জার্মানির স্টক এক্সচেঞ্জ অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান এবং ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান কারিন স্মিডট-ফ্রিডেরিক্স বলেন, ‘সেনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ দাবি হচ্ছে, শুধু অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে নয়, উন্নয়নের সুযোগের মাধ্যমেসামাজিক সমৃদ্ধি পরিমাপ করা। তার অনুপ্রেরণামূলক কাজ হচ্ছে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের একটি সংস্কৃতি তুলে ধরার আহ্বান যা অন্যদের দায়িত্বের উপর ভিত্তি করে এবং কাউকে অংশগ্রহণ এবং আত্মসংকল্পের অধিকার অস্বীকার করে না।’ সূত্র: ডয়চে ভেলে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জার্মানি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ