Inqilab Logo

ঢাকা, রবিবার, ০৯ আগস্ট ২০২০, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৮ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

উত্তেজনার মধ্যেই বৈঠকে মুখোমুখি ভারত, চীন ও রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ জুন, ২০২০, ৬:০৪ পিএম

লাদাখে ভারত-চীন সংঘর্ষের পর এই প্রথম একে অপরের মুখোমুখি হয়েছেন দু’দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাশিয়া, ভারত এবং চীনের মধ্যে ত্রিপাক্ষিক ভিডিও কনফারেন্স শুরু হয়েছে। চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই-র সঙ্গে এতে আলোচনায় রয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। রাশিয়ার পক্ষে যোগ দিয়েছেন সে দেশের পর পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ।

১৫ জুন লাদাখ সংঘর্ষের আগেই মূলত রাশিয়ার উদ্যোগে এই বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল। সে সময় অবশ্য করোনাভাইরাসের মতো মহামারি মোকাবিলার কৌশল নিয়েই আলোচনা হওয়ার কথা ছিল এই বৈঠকে। তবে ভারত-চীন সংঘর্ষের পর পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে দু’দেশের মধ্যে কী আলোচনা হয়, তা নিয়ে স্বাভাবিক ভাবেই কৌতূহল হয়েছে কূটনৈতিক মহলের।

রাশিয়ার উদ্যোগে এই বৈঠক হলেও ভারত-চীনের মধ্যে উত্তেজনার আবহে দু’দেশের মধ্যে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকায় নামতে চায় না বলে স্পষ্ট ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে মস্কো থেকে। এমনকি এই বৈঠকে কোনও দ্বিপাক্ষিক বিষয়েও আলোচনার জল্পনাও উড়িয়ে দিয়েছে রাশিয়া। তা সত্ত্বেও এই ভিডিও বৈঠকে ভারত-চীনের মধ্যে ‘আস্থাবর্ধক পরিবেশ’ তৈরিতে সমর্থনের দরজা খুলে রেখেছে মস্কো। সেই সঙ্গে ইউরেশিয়া অঞ্চলে স্থিতবস্থা বজায় রাখার বিষয়ে সচেষ্ট বলে জানিয়েছে তারা।

সংবাদমাধ্যমের কাছে ভারতে অবস্থিত রাশিয়ার হাইকমিশনের ডেপুটি চিফ রোমান বাবুশকিন বলেন, ‘রাশিয়া ভারত-চীন দু’দেশেরই আস্থাবহ সঙ্গী। এবং ইউরেশিয়াতে স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে তাদের সঙ্গে আমাদের বহুপাক্ষিক ও দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই ক্ষেত্রে আরআইসি (রাশিয়া-ভারত-চীন) হল এমন এক অনন্য প্ল্যাটফর্ম, যা সাধারণ ক্ষেত্রগুলিকে প্রসারিত করতে বা আলোচনাকে মজবুত করতে এবং বাস্তবসম্মত ভাবে সহযোগিতার দিকে অগ্রসর হওয়ার পাশাপাশি ওই অঞ্চলে আস্থাবর্ধনেও সহায়তা করে।’

লাদাখ-সংঘর্ষের পর এই প্রথম মুখোমুখি হলেও তার আগেই অবশ্য টেলিফোনে ওয়াং ই-র সঙ্গে কথা হয়েছে জয়শঙ্করের। লাদাখে এক জন কর্নেল-সহ ২০ জন ভারতীয় সেনা সদস্য নিহত হওয়ার পর ১৭ জুন ওয়াংয়ের সঙ্গে কথা বলেন জয়শঙ্কর। তবে সেই বার্তালাপ সত্ত্বেও লাদাখ-সংঘর্ষের পর আরআইসি বৈঠক নিয়ে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়। যদিও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় থেকে জয়শঙ্করের উপস্থিতি নিয়ে নিশ্চিত করা হয়। তবে ত্রিপাক্ষিক আলোচনার বৈঠক হলেও এতে নয়াদিল্লির তরফে বেইজিংকে কী বার্তা দেয়া হয়, তা নিয়ে আগ্রহ রয়েছে কূটনৈতিক মহলের। সূত্র: এনডিটিভি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত-চীন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ