Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ২০ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

সউদী আরবে অবস্থানরতদের নিয়ে এবারের হজ

সংখ্যা মাত্র ১ হাজার যে কোনো সময়ে হজের টাকা ফেরত দেয়া হবে : ধর্ম সচিব

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ জুন, ২০২০, ১২:০১ এএম

প্রাণঘাতী করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে ১৪৪১ হিজরীতে খুবই সীমিত সংখ্যক হজযাত্রী নিয়ে পবিত্র হজ পালিত হবে। হজে অংশ নিতে পারবেন সউদী আরবে এরই মধ্যে অবস্থান নিয়েছেন এমন বিভিন্ন দেশের মুসলিমরা। সোমবার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে সউদী আরব। দেশটির হজ ও ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রণালয় বলেছে, চলমান করোনাভাইরাস মহামারী ও তা থেকে বৈশ্বিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে সুরক্ষিত রাখার জন্য এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সউদী আরবের হজমন্ত্রী মুহাম্মদ বেনতেন বলেছেন, সংখ্যাটা হাজার হাজার বা লাখ লাখ হবে না। সংখ্যাটা মাত্র এক হাজার। পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে এই গ্রীষ্মে হজে ২০ লাখের বেশি মানুষ অন্য দেশ থেকেই আসতো। হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয় বিবৃতিতে বলেছে, এবার হজ হবে খুবই সীমিত সংখ্যক হজযাত্রীকে নিয়ে। বিভিন্ন দেশের যেসব মুসলিম সউদী আরবের ভিতরে বর্তমানে অবস্থান করছেন, শুধু তারাই এতে অংশ নিতে পারবেন। পবিত্র হজ যাতে নিরাপদভাবে পালিত হয়, সব প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা অনুসরণ করা হয় এবং প্রয়োজনীয় সামাজিক দূরত্ব পালন করা হয় তার আলোকে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সোমবার সরকারের গৃহীত এ সিদ্ধান্তকে সমর্থন করেছে কাউন্সিল অব সিনিয়র স্কলারস।

এদিকে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নূরুল ইসলাম বলেছেন, সউদী সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী এ বছর পবিত্র হজে অংশ গ্রহণের সুযোগ না থাকায় হজে যাওয়ার জন্য যারা নিবন্ধন করেছিলেন, তারা যেকোনো সময় তাদের নিবন্ধনের টাকা তুলে নিতে পারবেন। টাকা তুলে নেয়ার ক্ষেত্রে কেউ যাতে হয়রানির শিকার না হন, সে বিষয়টিও খেয়াল রাখা হবে।

ধর্ম সচিব বলেন, নিবন্ধিত হজযাত্রীদের মধ্যে কেউ যদি টাকা না তুলে মনে করেন যে আগামী বছর হজে যাওয়ার জন্য তা রেখে দেবেন, তাহলে সে বিষয়টিকেও স্বাগত জানাবে মন্ত্রণালয়। তিনি জানান, আজ বুধবার এ বিষয়ে একটি সভা ডাকা হয়েছে। সেই সভা থেকেই কীভাবে কী করতে হবে, তা বলে দেয়া হবে।

ধর্ম সচিব বলেন, হজের নিবন্ধনের টাকা ব্যাংকে গচ্ছিত রয়েছে। যেভাবে হজযাত্রীরা টাকা জমা দিয়েছিলেন, সেভাবেই তারা টাকা ফেরত নিতে পারবেন। তবে টাকা তোলার ক্ষেত্রে যেন সবাই একসঙ্গে ভিড় না করেন, সে ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে যেন টাকা তোলা হয়, সে বিষয়টি দেখা হবে। তিনি বলেন, আশা করি আমরা এ বিষয়ে সবার সহযোগিতা পাব।

সউদী বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক হজ চুক্তি অনুযায়ী ১৪৪১ হিজরীতে সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে এবার বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জন হজযাত্রীর হজে যাওয়ার সুযোগ ছিল। কিন্তু এবার সরকারি বেসরকারি মিলে নিবন্ধন করেছেন ৬৪ হাজার ৫৯৯ জন হজযাত্রী। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩ হাজার ৪৫৭ জন হজযাত্রী গড়ে বি প্যাকেজের হিসেবে ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা করে ১শ’ ২৪ কোটি ৪৫ লাখ ২০ হাজার টাকা সরকারি ব্যাংকে জমা দিয়েছেন। এছাড়া এ প্যাকেজে জমাকৃত টাকা ধরা হলে টাকার পরিমাণ আরো বাড়বে। আর বেসরকারি ৬১ হাজার ১২৪ জন প্রাক নিবন্ধন ও নিবন্ধনের ১ লাখ ৮২ হাজার ৭৪২ টাকা করে জমা দিয়েছেন। এতে মোট টাকার পরিমাণ দাঁড়ায় ১ হাজার ১শ’ ১৭ কোটি ৩২ লাখ ১১ হাজার ৩৬৪ টাকা। বাইরের দেশ থেকে এবার হজে যাওয়ার বিষয়টি বাতিল হওয়ায় তাদের এবার আর হজে যাওয়ার সুযোগ থাকছে না।

হাবের সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম গতকাল মঙ্গলবার ইনকিলাবকে বলেন, আল্লাহর মেহমানরা হজের নিয়ত করে টাকা জমা দিয়েছেন। অনেকেই হজের টাকা উঠাবেন না। হজের টাকা কেউ তুলে নিয়ে গেলে তাদের প্রাক নিবন্ধনসহ পুরো নিবন্ধনই বাতিল হয়ে যাবে। সেক্ষেত্রে আগামী বছর হজে যেতে চাইলে তারা নতুনভাবে প্রাক নিবন্ধন করতে গিয়ে পিছিয়ে পড়বেন বলেও তিনি উল্লেখ করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হজ

৩১ জুলাই, ২০২০
৩০ জুলাই, ২০২০
৩০ জুলাই, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন