Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭, ০৯ সফর ১৪৪২ হিজরী

মোহনগঞ্জে এইচভিপি হেরিং বন সড়ক নির্মাণে হরিলুট-গাছ চুরি অভিযোগ মেয়রের

বিশেষ সংবাদদাতা, ময়মনসিংহ ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৪ জুন, ২০২০, ৬:৫২ পিএম

মোহনগজ্ঞে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে সড়ক নির্মাণ কাজে অনিয়ম-দুর্নীতির মাধ্যমে উন্নয়ন হরিলুটের অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের মাঝে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

সূত্র জানায়, উপজেলার সমাজ বাজার থেকে কমলপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত এক হাজার মিটার এবং রামজীবনপুর সড়কের পাঁচ শত মিটার এইচভিপি হেরিং বন সড়কের ২টি প্রকল্পের নির্মান কাজে ব্যাপক অনিয়ম-দূর্নীতির অভিযোগ করেছেন ৫নং সমাজ সহিলদেও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম খান সুহেল। তিনি জানান, সরকারী নিয়ম অনুযায়ী ওই দু’টি সড়কের নির্মান কাজে ৯ ইঞ্চি পরিমান বালু ব্যবহারের সিডিউল থাকলেও মাত্র ২ ইঞ্চি বালু দিয়ে নির্মান কাজ শেষ করা হয়েছে। সেই সাথে সডিউল অনুযায়ী সড়ক নির্মানে প্রতি কিলোমিটারে পেলা সাইটিং দেওয়ার কথা থাকলেও তা করা হয়নি। বরং এ দু’টি সড়কে ব্যবহৃত পূর্বের দেড় লাখ ইটের কোন হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে বার বার অবহিত করা হলেও তিনি কর্নপাত করছেন না। উল্টো বর্তমানে নিন্মমানের ইট-বালু দিয়ে দায়সারা ভাবে নির্মিত এ দু’টি সড়কের বিল উত্তোলনের জন্য পায়তারা করছেন সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার।
ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম খান সুহেল আরো জানান, এইচভিপি হেরিং বন সড়কের ২টি প্রকল্পে নিন্মমানের কাজ করে সরকারের উন্নয়ন হরিলুট করা হয়েছে। এতে উন্নয়নের বদলে এলকার জনগনের দূর্ভোগ বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। ফলে বিষয়টি আমলে নিয়ে উচ্চ পর্যায়ে তদন্ত দাবি করছি।
এবিষয়ে মোহনগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুজ্জামান প্রতিবেদককে বলেন, সড়ক নির্মান কাজে বালু ব্যবহারে দূর্নীতি এবং পূর্বের দেড় লাখ ইটের বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।

গাছ চুরি অভিযোগ মেয়রের : এদিকে মোহনগজ্ঞ পৌরসভা সড়কের গাছ টেন্ডর ছাড়াই কেটে নেওয়ার অভিযোগ করেছেন মেয়র অ্যাড. আব্দুল লতিফুর রহমান খান। তিনি জানান, পৌরসভার মাইলোডা ঈদগাহ মাঠের বিশাল আকৃতির রেইট্রি গাছ পৌরসভার অনুমতি ছাড়াই কেটে নিয়েছেন স্থানীয় প্রভাবশালী মামা-ভাগ্নে আ: হান্নান রতন ও খাইরুল ইসলাম। অথচ পৌরসভার মাইলোডা ঈদগাহ মাঠের এই জমিটি দান করেছিলেন স্থানীয় বজলুর রহমান।
৫নং সমাজ সহিলদেও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম খান সুহেল অভিযোগ করেন, গত ২৯শে মার্চ বন বিভাগের এক কর্মকর্তা কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই অপর একটি গাছ কেটে নিয়েছেন। এ ঘটনায় স্থানীয় গ্রাম পুলিশ রবিদাস সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে লিখিত অভিযোগ করলেও এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি বলৌ তিনি দাবি করেন।
এছাড়াও সম্প্রতি রেলের জমির বেশ কয়েকটি গাছ চুরির ঘটনা ঘটেছে বলেও দাবি করেন উপজেলা বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারন সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান নান্টু।
এবিষয়ে মোহনগজ্ঞ পৌরসভার মেয়র অ্যাড. আব্দুল লতিফুর রহমান খান বলেন, একের পর এক সড়কের গাছ চুরি ঘটনা ঘটছে। এবিষয়ে দ্রæত আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অভিযোগ


আরও
আরও পড়ুন