Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সুশাসন প্রতিষ্ঠায় কর্মক্ষেত্রে প্রশিক্ষণকে কাজে লাগান

প্রকাশের সময় : ১৮ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বিশেষ সংবাদদাতা : সুশাসন প্রতিষ্ঠায় নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা প্রয়োগে সরকারি কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদিক।
উপসচিব পর্যায়ের বিসিএস ক্যাডারের ১শ’ কর্মকর্তার সক্ষমতা বৃদ্ধি সংক্রান্ত ফিডব্যাক সেমিনারে এ নির্দেশ দেন প্রতিমন্ত্রী।
গতকাল (রোববার) সচিবালয় কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার সম্মেলন কক্ষে এ সেমিনারের আয়োজন করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।
২০১৫ সালে ভারত থেকে প্রশিক্ষণ নেয়া এসব কর্মকর্তাদের অভিজ্ঞতা বিনিময় এবং তা কর্মক্ষেত্রে বাস্তবায়ন নিয়ে সেমিনারে আলোচনা করা হয়।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. ইব্রাহীম হোসেন খান। তিনটি ব্যাচে প্রশিক্ষণ নেওয়া তিন দলনেতা- উপসচিব তাহসিনুর রহমান, এবিএম আমিনুল্লাহ নূরী এবং মো. হাসানুল ইসলাম দলের পক্ষে তাদের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন।
সেমিনারে প্রতিমন্ত্রী সরকারি কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দিয়ে বলেন, সুশাসন প্রতিষ্ঠায় সরকারি কর্মকর্তাদের দেশে-বিদেশে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। যা তারা তা নিজ কর্মক্ষেত্রে বাস্তবায়ন করবেন।
জনপ্রশাসন সচিব ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী বলেন, শুধু প্রশিক্ষণ নিলেই হবে না মাঠ পর্যায়ে প্রশিক্ষণের অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে হবে। গত প্রশিক্ষণে যে সমস্যা দেখা দিয়েছে তা আগামী প্রশিক্ষণে চিহ্নিত করে সমাধান করা হবে। আমি জেনেছি যে, বিগত প্রশিক্ষণে আমাদের কোনো কর্মসূচি নির্ধারিত ছিল না। এরপর থেকে বিভিন্ন প্রশিক্ষণে আগে থেকেই পরিকল্পনা করে বিষয় নির্ধারণ করা হবে।
অভিজ্ঞতা বিনিময়ের সময় কর্মকর্তারা জানান, ফুটপাথে সাপের খেলা থেকে আগ্রার তাজমহল- সবই দেখা হয়েছে কর্মকর্তাদের। তবে গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষার বিষয়টি ছিল, তাজমহল বা ভারতের দর্শনীয় স্থানগুলো রক্ষণাবেক্ষণে কীভাবে ব্যবস্থাপনা ছিল তা দেখে কর্মকর্তারা অনেক কিছুই শিখেছেন।
রূপগঞ্জে পুলিশ-শ্রমিক সংঘর্ষ আহত ২৫
রূপগঞ্জ উপজেলা সংবাদদাতা : অতিরিক্ত ২ ঘন্টা ওভারটাইম করানোর দাবিকে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার হান্ডিমার্কেট এলাকার পৃথা ফ্যাশন পোশাক কারখানার শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এসময় পুলিশের লাঠিপেটায় অন্তত ২৫ শ্রমিক আহত হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মালিকপক্ষ কারখানা বন্ধ ঘোষণা করেছেন। গতকাল রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঘটে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানান, বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শ্রমিকরা কাজ বন্ধ করে কারখানার সামনে অবস্থান নিয়ে অতিরিক্ত ২ ঘন্টা ওভারটাইমের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করে। এ নিয়ে মালিকপক্ষের সঙ্গে শ্রমিকদের বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটে। এসময় শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে উঠলে উপস্থিত ইন্ডাষ্ট্রিয়াল পুলিশ শ্রমিকদের ধাওয়া করে।
এক পর্যায়ে পুলিশ শ্রমিকদের লাঠিপেটা করে। শ্রমিকরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে অন্তত ২৫ শ্রমিক আহত হয়েছেন। আহত শ্রমিকদের মধ্যে, লিপি, বিথী, মোবারক, বাশার, জাকিরুন, কহিনুর, রুনা, অস্ত্রনা, শিখা, সিমা, সফিক, ফয়সাল, অপু, আরিফ মোল্লা, রফিকুল, আহসান হাবিব, আনোয়ার, শিল্পী, নুর আলম, রাজু, নাজমুলকে স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা জানায়, হান্ডি মার্কেট এলাকার সিনহা গ্রুপের পৃথা ফ্যাশন কারখানায় ৫ শতাধীক শ্রমিক কাজ করছে। কারখানা কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে ৫টা পর্যন্ত কাজ করিয়ে আসছে। এতে করে শ্রমিকরা যে পরিমাণ বেতন-ভাতা পান তাতে শ্রমিকদের সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। আর এ জন্য শ্রমিকরা বেশ কয়েক দিন ধরে অতিরিক্ত ২ ঘন্টা ওভারটাইম করার দাবিতে মালিকপক্ষের কাছে দাবি জানিয়ে আসছেন।
কারখানার জিএম শেখ মোহাম্মদ তোহা বলেন, মালিকপক্ষের নির্দেশক্রমে কারখানা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
ইন্ডাষ্ট্রিয়াল পুলিশের এএসপি মিজানুর রহমান বলেন, কারখানার সামনের রাস্তায় যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছিলো শ্রমিকরা। এতে করে শ্রমিদের বাঁধা দেয়া হয়েছে। তবে শ্রমিকদের লাঠিপেটার বিষয়টি সঠিক নয় বলে দাবি করেন তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সুশাসন প্রতিষ্ঠায় কর্মক্ষেত্রে প্রশিক্ষণকে কাজে লাগান
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ