Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ১৭ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

রাতে যদি কেউ কিয়ামুল্লাইল না পড়তে পারে, তাহলে এই নামাজ কি জোহরের আগে পড়া যাবে? তখন কি উক্ত সওয়াব আশা করা যায়? আর দুই রাকাত নফল নামাজে কি একাধিক নিয়ত করা যাবে? যেমন, সালাতুত তাওবা, সালাতুল হাজত ও কিয়ামুল্লাইল? জানালে উপকৃত হবো।

হারুনুর রাশীদ
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ২৭ জুন, ২০২০, ৬:৫১ পিএম

উত্তর : কিছু নফল নামাজের নির্দিষ্ট সময় আছে। এগুলো নির্দিষ্ট সময়ে পড়া উত্তম। তবে, দিন রাত ২৪ ঘণ্টাই (নামাজ শুদ্ধ নয়, এমন কিছু সময় ছাড়া) নফল নামাজ পড়া যায়। নির্দিষ্ট নামাজগুলোর কাজা না হলেও সেসবের ফজিলত পাওয়ার আশায় অন্য সময়েও পড়া জায়েজ। নফল নামাজের আলাদা আলাদা নাম বা নিয়ত না করলেও চলে। বরং মনে একটা প্রার্থনা বা আশা নিয়ে আল্লাহর সামনে নফল নামাজে দাঁড়িয়ে গেলেই হল। একই নামাজে একাধিক বিষয় জমা না করা উত্তম। এমনকি, একেকটি হাজতের জন্য আলাদা আলাদা নামাজ পড়াই সমীচীন। এসব আদবের বিষয়। তবে, কোনো আমলই যেন সুন্নাতের খেলাফ না হয়। তাহলে নফল ইবাদত নিয়মের বাইরে চলে যাওয়ার ফলে সওয়াব না হয়ে গুনাহও হতে পারে।

উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
inqilabqna@gmail.com

ইসলামিক প্রশ্নোত্তর বিভাগে প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা
inqilabqna@gmail.com



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ