Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের মালিক লাপাত্তা

টাকা-শেয়ার লোপাট

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৯ জুন, ২০২০, ১২:০১ এএম

কয়েক কোটি টাকা ও শেয়ার মেরে দিয়ে এ লাপাত্তা হওয়ার ঘটনায় দিশেহারা ২৫ হাজার বিনিয়োগকারী। তবে প্রতিষ্ঠানটির মালিকানা বিক্রি করে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীর দায় দেনা পরিশোধের সুযোগ আছে সিকিউরিটিজ আইনেই। হঠাৎ করেই বন্ধ ঢাকার পুঁজিবাজারের ব্রোকারেজ হাউজ ক্রেস্ট সিকিউরিটিজ। গত বৃহস্পতিবার হাউজটির রাজধানীর পল্টন কার্যালয়ে ভিড় করেন বিনিয়োগকারীরা। অভিযোগ শেয়ার অবৈধভাবে বিক্রি ও অর্থ আত্মসাৎ করে পালিয়েছে প্রতিষ্ঠানটির মালিক। 

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ-ডিএসই-এর ৮ নম্বর ট্রেক হোল্ডার ক্রেস্ট সিকিউরিটিজ। ডিএসই’র ওয়েবসাইট বলছে, যার মালিক শহীদ উল্লাহ। রাজধানী ছাড়াও প্রতিষ্ঠানটির কুমিল্লা ও নারায়ণগঞ্জ শাখাও বন্ধ। ডিএসই’র ওয়েবসাইটে দেয়া প্রতিষ্ঠানটির ফোন নম্বর বন্ধ। ধানমন্ডি ৫ নম্বর সড়কের বাসাতেও নেই শহীদ উল্লাহ। নিরাপত্তারক্ষীরা জানান, মালপত্র ও পরিবারসহ ফ্ল্যাট ছেড়েছেন তিনি।
হাউজের মালিকানা বিক্রি করে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীর দায়-দেনা পরিশোধের সুযোগ রয়েছে আইনে। সিকিউরিটিজ আইন বিশ্লেষক আইনজীবী এ এম মাসুম বলেন, যদি কোন কোম্পানির বিরুদ্ধে কোন গুরুতর অভিযোগ পাওয়া যায় তাহলে সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্সের ১৯৬৯ এর সেক্টর ১৭ ধারায় তাদের শাস্তির বিধান রয়েছে। এছাড়া যদি কর্তৃপক্ষ চায় তাহলে তাদের সদস্যপদ বিক্রি করে বিনিয়োগকারীদের দেনা পরিশোধ করে দিতে পারে।
ভুক্তভোগীদের পক্ষে পদক্ষেপ নিচ্ছে বিএসইসি। বিএসইসি চেয়ারম্যান শিবলী রুবায়েত-উল-ইসলাম বলেন, আমরা ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জকে বলেছি দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার জন্য। এছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংকেও তার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করতে জানানো হয়েছে।
সদস্য প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে কঠোর অবস্থানে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জও। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের পরিচালক রকিবুর রহমান বলেন, বিনিয়োগকারীর অ্যাকাউন্টে তার টাকা থাকবে, শেয়ার থাকবে। সেখানে হাত দেয়ার ক্ষমতা কারো নেই, এটি আইনের পরিপন্থি। এমন কিছু কেউ করে থাকলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রতিষ্ঠানটির শাখাগুলোতে বিনিয়োগকারী আছেন ২৫ হাজারেরও বেশি। এ ঘটনায় পল্টন মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন ভুক্তভোগীরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন