Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ০৮ ভাদ্র ১৪২৬, ২১ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

২০২১ সাল থেকে প্রতি বছর দেশে দুই লাখ কর্মসংস্থান হবে : জয়

প্রকাশের সময় : ২৯ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশের বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং (বিপিও) খাতে ২০২১ সাল থেকে প্রতিবছর দুই লাখ কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করার কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। তিনি বলেন, ২০১৮ সালের মধ্যে আইসিটি খাতে রপ্তানি আয় এক বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যাবে। গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে দুই দিনের ‘বিপিও সম্মেলন ২০১৬’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। জয় বলেন, অভ্যন্তরীণ বাজার শক্তিশালী করতে না পারলে বিশ্ব বাণিজ্যে ভালো করা যাবে না। আমাদের স্থানীয় বিপিও প্রতিষ্ঠানগুলোকে আন্তর্জাতিক বাজারে ব্র্যান্ডিং করতে হবে। আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন সূচকে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উচ্চ-মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। এ লক্ষ্য অর্জনে আইসিটি খাতকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। প্রতি বছর দেশে ১০ হাজার কম্পিউটার সায়েন্স স্নাতক তৈরি হচ্ছে এদের মধ্যে অনেকেই গুগল, ফেইসবুক বা মাইক্রোসফটের মতো প্রতিষ্ঠানে কাজ করছে। তাদের বিভিন্ন সেক্টরে কাজের ক্ষেত্রও তৈরি করছে সরকার। সজিব ওয়াজেদ জয় বলেন, বিপিও ক্ষেত্রে ভালো করার সব সম্ভাবনা বাংলাদেশে রয়েছে। স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু দেশকে ‘সোনার বাংলা’ হিসেবে গড়ে তোলার কাজে হাত দিয়েছিলেন। বর্তমান সরকার শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ হিসেবে গড়ে তোলার কাজ করে যাচ্ছে। “ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন আর স্বপ্ন নয়, বর্তমানে প্রতিটি গ্রামের জনগণ সরকারি সেবা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলাফল, স্বাক্ষ্য, শিক্ষাসহ অন্যান্য তথ্যসেবা  মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নিতে পারছে। দেশে ছয় কোটির বেশি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী রয়েছে, বর্তমানে ১০০ শতাংশ টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক রয়েছে।” স্কুলের পাঠ্যবইয়ের ছাপা সংস্করণের পাশাপাশি এখন পিডিএফ সংস্করণ পাওয়া যাওয়ার কথা তুলে ধরে জয় বলেন, শিগগিরই পাঠ্যবইয়ের ই-বুক সংস্করণও পাওয়া যাবে।
আইটিইউ (আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগ ইউনিয়ন)  মহাপরিচালক হাওলিন ঝাও বলেন, বাংলাদেশ বিপিও সেক্টরে অনেক এগিয়ে যাচ্ছে। এই ধারা বজায় রাখতে হবে। বিপিও সেক্টরে এগিয়ে যাওয়া দক্ষ জনবল তৈরি করতে হবে। সরকারি ও বেসরকারিভাবে এগিয়ে নেয়ার জন্য একসঙ্গে কাজ করতে হবে।
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে বার্ষিক আইসিটি খাতে ৫ বিলিয়ন আয় হবে, এর মধ্যে বিপিও ক্ষেত্রে আয় হবে ১ বিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশকে তথ্যপ্রযুক্তিতে এগিয়ে নেয়ার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সরকার। এর ফলে বাংলাদেশে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং বা বিপিও ব্যবসার অগ্রগতি সন্তোষজনক এবং এর বর্তমান বাজার মূল্য ১৮০ মিলিয়ন ডলার।
দ্বিতীয় বিপিও সামিটের লক্ষ্য সম্পর্কে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, এই সামিটের মাধ্যমে বিশে^র কাছে বিপিও খাতে আমাদের দক্ষতার কথা যেমন তুলে ধরতে চাই, তেমনি চাই আমাদের স্থানীয় সরকারি-বেসরকারি সেক্টরে বিপিও খাতের সম্প্রসারণ। বাংলাদেশের বিপিও সেক্টরের সাফল্যের গল্পগুলো সবাইকে জানাতে চাই। দেশের তরুণদের কাছে এই সেক্টরকে অন্যতম একটি কাজের ক্ষেত্র হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিতে চাই।
এছাড়াও অনুষ্ঠানে ডাক টেলিযোগাযোগও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদ, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান প্রকৌশলী শাহজাহান মাহমুদ, বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অফ কলসেন্টার এন্ড আউটসোসিংয়ের (ব্রাক) সভাপতি আহমাদুল হক প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে দু’দিনের আয়োজনে ২০ জন আন্তর্জাতিক তথ্য-প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ বিভিন্ন সেমিনার ও কর্মশালায় বক্তব্য রাখবেন। এ সময়ে তারা তরুণদের মাঝে তাদের সফলতার কথা তুলে ধরবেন। এই আয়োজনে ২৫ হাজারের বেশি দর্শনার্থী উপস্থিতি থাকবেন। সম্মেলনের প্রথম দিন ‘গভর্নমেন্ট প্রসেস আউটসোর্সিং : গ্লোবাল বেস্ট প্র্যাকটিসেস’, ‘প্রোটেকটিং ডেটা অ্যান্ড প্রাইভেসি ইন দ্য কানেক্টেড নেটওয়ার্ক ওয়ার্ল্ড’, ‘অপারচুনেটিজ ইন লোকাল অ্যান্ড গ্লোবাল বিপিও ফর ইউথ’, ‘বিগ ডেটা এনালাইসিস ফর নিউ হরাইজন ইন বিজনেস ইন্টেলিজেন্স’, ‘ট্রেনিং ওয়ার্কশপ ফর কলসেন্টার এজেন্টস’ এবং ‘চ্যালেঞ্জেস অ্যান্ড সলিউশনস ফর ওভারকামিং হার্ডেলস ইন আউটসোর্সিং অব গভর্নমেন্ট সার্ভিসেস’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। আজ দ্বিতীয় ও শেষ দিন সন্ধ্যা ৬টায় বলরুমে বিপিও সামিটের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এদিন দেশের বিপিও খাতের সফল উদ্যোক্তাদের পুরস্কৃত করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ