Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ২০ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

রাশিয়ার সহযোগিতায় মার্কিন সেনা হত্যার খবরের প্রতিক্রিয়ায় যা বলল তালেবান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ জুন, ২০২০, ২:৩৯ পিএম

আফগানিস্তানে মোতায়েন মার্কিন সেনাদের হত্যা করতে রাশিয়া তালেবানের অর্থ সহযোগিতা করেছে বলে মার্কিন দৈনিক নিউ ইয়র্ক টাইমস যে খবর দিয়েছে তা প্রত্যাখ্যান করেছে এই গোষ্ঠী। তালেবান মুখপাত্র জবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেছেন, কোনো বহিঃশক্তি বা বিদেশি গোয়েন্দা সংস্থার অর্থে তালেবানের যুদ্ধ চলে না।
তিনি গতকাল রোববার (২৮ জুন) এক টুইটার বার্তায় লিখেছেন, তালেবান গত ১৯ বছর ধরে আগ্রাসী শক্তিগুলোর বিরুদ্ধে যে লড়াই করছে তা কোনো বিদেশি শক্তির ওপর নির্ভর করে করেনি এবং হামলার লক্ষ্যবস্তু নির্ধারণের ক্ষেত্রেও কারো সাহায্যের প্রয়োজন তালেবানের নেই।
সম্প্রতি নিউ ইয়র্ক টাইমস এক প্রতিবেদনে দাবি করে, আফগানিস্তানে মোতায়েন মার্কিন বাহিনীর পাশাপাশি মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোটের সেনাদের হত্যা করার বিনিময়ে রাশিয়ার কাছ থেকে মোটা অংকের পুরস্কার পায় তালেবান।
তালেবান মুখপাত্র বলেন, আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পথে বাধা সৃষ্টি করার লক্ষ্যে এ ধরনের প্রচারণা চালানো হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, আফগান জনগণসহ গোটা বিশ্ববাসীকে তালেবান এই নিশ্চয়তা দিচ্ছে যে, তারা কারো ক্রীড়নক হিসেবে কাজ করছে না এবং দখলদার সেনাদের আফগানিস্তান থেকে বহিষ্কার করা ছাড়া অন্য কোনো লক্ষ্যেও তাদের লড়াই নয়। তালেবান কাতার শান্তি চুক্তি মেনে চলছে দাবি করে মুজাহিদ বলেন, এই চুক্তি বাস্তবায়ন হলে আফগানিস্তানে শান্তি ফিরে আসবে।
এর আগে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলেছিলেন, এ ধরনের গুজব ছড়ানোর ঘটনায় মার্কিন গোয়েন্দা বিভাগের বুদ্ধিবৃত্তিক দুর্বলতা ফুটে উঠেছে; কারণ, তারা রাশিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ উত্থাপনের ক্ষেত্রে এর চেয়ে ভালো কোনো যুক্তি খুঁজে পায়নি।
দৈনিক নিউ ইয়র্ক টাইমস শুক্রবার এক খবরে দাবি করেছিল, রাশিয়ার একটি অজ্ঞাত গোয়েন্দা ইউনিট আফগানিস্তানে মোতায়েন মার্কিন সেনাদের হত্যা করার কাজে তালেবানকে সবরকম সহযোগিতা করছে।
আফগানিস্তানে সন্ত্রাস বিরোধী যুদ্ধ ও দেশটির নিরাপত্তা নিশ্চিত করার অজুহাতে আমেরিকা ও তার মিত্ররা ২০০১ সালে দেশটি দখল করে। আফগান জনগণ অবিলম্বে তাদের দেশ থেকে মার্কিন নেতৃত্বাধীন দখলদার সেনাদের প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে আসছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আফগানিস্তান


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ