Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ১৭ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

জনগণ পাটশ্রমিক ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত মেনে নেবে না

ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১ জুলাই, ২০২০, ১২:০১ এএম

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে পাটকল শ্রমিক ছাঁটাইয়ের মতো গণবিরোধী সিদ্ধান্ত জনগণ মেনে নেবে না। পাটকল বন্ধ করে শ্রমিকদের গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের মাধ্যমে বিদায় দেয়ার সিদ্ধান্ত গণবিরোধী উল্লেখ করে রিজভী বলেন, গণদুশমনরা ছাড়া এমন সিদ্ধান্ত কেউ নিতে পারে না। সরকারের ভ্রান্তনীতি ও অব্যবস্থাপনায় দেশের ঐতিহ্যবাহী পাটশিল্প আজ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। গতকাল নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
রুহুল কবির রিজভী বলেন, করোনা সংক্রমণের এই দুর্যোগকালে এমনিতেই যেখানে প্রাতিষ্ঠানিক-অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের বিপুলসংখ্যক শ্রমিক কর্মহীন হয়ে পড়েছেন, বিদেশ থেকেও অনেক শ্রমিক কাজ হারিয়ে দেশে ফিরছেন, সেই সঙ্কটকালে সরকার ২৫টি রাষ্ট্রীয় পাটকল বন্ধ করার গণবিরোধী সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যার ফলে স্থায়ী-অস্থায়ী মিলে প্রায় ৫৫-৬০ হাজার শ্রমিক কাজ হারাবেন। তাদের পরিবার এবং ৪০ লাখ পাটচাষি ও তাদের পরিবার, পাট ব্যবসায়ী মিলে মোট প্রায় সাড়ে ৩ কোটি মানুষ চরম বিপাকে পড়বেন।
তিনি বলেন, সরকারের দুর্নীতি, লুটপাট, ভুলনীতি এবং মাথাভারী ও অদক্ষ প্রশাসন লোকসানের জন্য দায়ী, শ্রমিকরা নয়। কারণ মৌসুমে জুলাই-আগস্ট মাসে পাটের দাম যখন ১ হাজার থেকে ১২শ’ টাকা থাকে তখন পাট না কিনে সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে যখন পাটের দাম ২ হাজার থেকে ২২শ’ টাকা হয় তখন পাট কেনা হয় এবং চাহিদার চেয়ে কম পাট ক্রয় করা হয়। বিদেশে বাজার খোঁজা, পণ্যের বহুমুখীকরণ এসবই মন্ত্রণালয় ও বিজেএমসিসহ প্রশাসনের কাজ। ফলে লোকসানের দায় কোনোভাবেই শ্রমিকরা নেবে না।
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, একদিকে বছরে ঘন ঘন বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত অন্যদিকে বিদ্যুৎ, জ্বালানি, গ্যাস ও পানির অবিশ্বাস্য ভৌতিক বিলের চাপে জনগণের শ্বাসরোধী অবস্থা। করোনার অভিঘাতে যখন খাদ্যাভাবে অসহায় নিরন্ন মানুষ হা-হুতাশ করছে ঠিক তখন একেবারেই স্বল্প আয়ের পাটকল শ্রমিকদের ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত ‘মরার ওপর খাঁড়ার ঘা’র মতো অবস্থা। তিনি দলের পক্ষ থেকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান এবং এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার আহবান জানান।
রিজভী বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে গণমাধ্যমসহ মানুষের মুখ বন্ধ করে রাখা হয়েছে। তবুও প্রতিদিন কোন না কোন গণমাধ্যমে সরকারের বেপরোয়া দুর্নীতির তথ্য ফাঁস হচ্ছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাটশ্রমিক
আরও পড়ুন