Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ১৭ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

প্রচারের চেয়ে কাজে মনোযোগী হতে চান নওরীন আফরোজা

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ জুন, ২০২০, ১২:৩৯ পিএম | আপডেট : ৩:২২ পিএম, ৩০ জুন, ২০২০

নাটক, বিজ্ঞাপন, উপস্থাপনা, ক্লাসিক বা আধুনিক নৃত্যশিল্পী হিসেবে বেশ পরিচিতি পেয়েছেন নওরীন আফরোজা। ২০১০ সালে চ্যানেল আইয়ের ৫২ পর্বের ড্রামা সিরিয়াল ‘অতি লোভে তাতী নষ্ট’র মাধ্যমে নওরীন বেশ আলোচিত হন। এর আগে ২০০৫ থেকে ২০০৭ পর্যন্ত এটিএন বাংলার শিশুতোষসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন। এ পর্যন্ত এক পর্ব, ধারাবাহিক, টেলিফিল্মসহ অর্ধশতাধিক টিভি নাটকে অভিনয় করেছেন তিনি। অতি লোভে তাতী নষ্ট, মালদ্বীপে সেদিন, সেলফি, আমি এবং আমার ইচ্ছে, অঞ্জলী, ধন্যবাদ ভালোবাসা, উই আর ফ্রেন্ডস, ভালোবাসার রংধনু নাটকগুলোতে তার অভিনয় দর্শক প্রশংসিত হয়। গ্ল্যামারাস এই অভিনেত্রী বিজ্ঞাপনচিত্রেও দর্শকের নজর কাড়েন। তার মডেল হওয়া বিজ্ঞাপনের মধ্যে ইউনাইটেড হসপিটাল, মধুমতি সিটি, প্রাণ ফ্রুটো চুইংগাম, আরএফএল এর একাধিক পন্য, আইসিএল ব্যালেন্স ফান্ড ব্যাপকভাবে আলোচিত হয়। এছাড়া প্যারাস্যুট বিউটি কনটেস্ট, ম্যাজিক বাউলিয়ানা টিভি প্রোমো, বিজিএমইএ-ইউনিলিভারের ডকুড্রামার কেন্দ্রীয় চরিত্রে পারফর্ম করেন। উপস্থাপনার ক্ষেত্রে এটিএন, চ্যানেল আই, একুশে টিভি, এনটিভি, আরটিভি, বাংলাভিশন, মাছরাঙা, গাজী টিভি, এশিয়ান টিভিসহ প্রায় সব চ্যানেলেই নওরীন বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান নিয়মিত উপস্থাপনা করেন। এর মধ্যে রয়েছে, লাক্স লাইফস্টইল, ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী, সিলভার স্ক্রীন, ফিউচার টেক, ওয়ালটন এশিয়ান মিউািজক, রূপ লাবণ্য, স্কুলে অবসরে, শুধু সিনেমার গান, শুভ সকাল এমন জনপ্রিয় টিভি অনুষ্ঠানগুলোতে নওরীনের সঞ্চালনা টিভি দর্শকদের ব্যাপকভাবে আকৃষ্ট করে। নওরীনের ইচ্ছে ছিল কলেজ জীবন পার করে আর্মিতে যোগ দেয়া। তার সে স্বপ্ন পূরণ হয়নি। নারায়ণগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে অনার্স করা নওরীন স্কুল জীবন থেকেই থিয়েটারের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। কাজ করতেন পিপলস থিয়েটারে। মঞ্চ নাটকের এ অভিজ্ঞতাই পরবর্তীতে তাকে টিভি পর্দার দিকে এগিয়ে নেয়। এত কাজের পরও সংবাদ শিরোনাম খুব কমই পেয়েছেন। এর কারণ হিসেবে প্রচারবিমুখ নওরীন বলেন, ‘সংবাদের শিরোনাম হওয়ার আগে নিজের কাজটা ঠিকমত করতে চাই। সংবাদ কি হলো না হলো তার চেয়ে কি কাজ করতে পারলাম বা পারবো তাতেই ফোকাস করতে সাচ্ছন্দ বোধ করি। কাজ হলে খবর তো হয়েই যায়।’ নওরীনের মানবিক এবং সামাজিক উদ্যোগও প্রশংসার দাবী রাখে। করোনা শুরুর পর পরই নিজের সাধ্যমত অসহায় মানুষেন পাশে দাঁড়িয়েছেন। দায়িত্ব নিয়েছেন এলাকার কয়েকটি পরিবারের। এই সামাজিকতা যে লকডাউনের পরই শুরু করেছেন তা কিন্তু নয়। মানুষের সেবায় নিজেকে যুক্ত করার প্রয়াসে নওরীন আফরোজা ২০০৭ সালে যোগ দেন দুঃস্থ মানুষের সহযোগিতায় প্রতিষ্ঠা পাওয়া সামাজিক সংগঠন রোটারী ক্লাবে। সামাজিক কার্যক্রমে সক্রিয় হওয়ায় রোটারী ক্লাব ঢাকা প্লাটিনাম তাকে ২০২০-২০২১ জন্য তাকে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দিয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ