Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৭ মাঘ ১৪২৭, ০৭ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

‘‌টিকটক’ নিষিদ্ধ হওয়াতে যা বললেন নুসরাত-মিমি

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ জুলাই, ২০২০, ১:২০ পিএম

সম্প্রতি লাদাখের গালোয়ান উপত্যকায় ভারত ও চীনা সৈনিকদের মুখোমুখি সংঘর্ষে ভারতের ২০ জন সেনা সদস্য মারা গেছেন। এরপর থেকে সতর্ক অবস্থানে আছেন দেশ দু'টির সেনারা।

বর্তমানে দেশ দু'টির মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে। এবার চীনকে পাল্টা জবাব দিতে বড় ধরনের পদক্ষেপ নিলো ভারত সরকার। দেশটির তথ্য মন্ত্রনালয় একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে চীনা ৫৯ টি ডিজিটাল অ্যাপস নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে।

চীনা অ্যাপের মধ্যে ভারতের নাগরিকদের কাছে সবচেয়ে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম টিকটক। নিষিদ্ধ ঘোষণা পর থেকে অফলাইন হয়ে যায় এটি। পাশাপাশি প্লেস্টোর কিংবা গুগলে সার্চ দিয়েও পাওয়া যাচ্ছে না এই অ্যাপটি।

এদিকে সাধারণের পাশাপাশি টিকটকে সরব উপস্থিতি ছিল শোবিজ তারকারাদেরও। তাদের মধ্যে শীর্ষে রয়েছেন কলকাতার অভিনেত্রী-সাংসদ নুসরাত জাহান। ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে এই অ্যাপে যুক্ত হন তিনি। এরপর থেকে নিয়মিত নিত্যনতুন ভিডিও শেয়ার করতেন এই সাংসদ। সেখানে তার অনুরাগীর সংখ্যা ছিল ১৪ লাখের বেশি।

অ্যাপ বন্ধ হওয়া প্রসঙ্গে ইন্সটাগ্রামে তিনি লিখেছেন, 'টিকটক আমার কাছে ভক্তদের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার মাধ্যম ছাড়া আর কিছুই নয়! আর সেই অ্যাপ যদি দেশের স্বার্থে নিষিদ্ধ করা হয়, তাতে আমার পূর্ণ সমর্থন রয়েছে।'

তিনি এও লিখেছেন, এই অ্যাপ বন্ধ হয়েছে তাতে কি ভক্তদের ভুলে যাব! সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম ইন্সটাগ্রামে ভক্তদের সঙ্গে ভালোবাসা ভাগ করে নিবেন বলেও জানান এই তারকা সাংসদ।

অন্যদিকে নুসরাতের মতো ততটা সক্রিয় না হলেও টিকটকে পোস্ট শেয়ার করতেন কলকাতার আরেক অভিনেত্রী-সাংসদ মিমি চক্রবর্তী। তিনি নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়ে লিখেছেন, 'আমি একজন পারফর্মার। আর সেকারণে যেকোনও প্লাটফর্মই আমার জন্য সমান। তবে দেশের জন্য একটা নয়, অসংখ্য অ্যাপ বন্ধ হলেও আমার তাতে কিছু যায় আসেনা।'



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: টালিগঞ্জ

৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন