Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ০৮ আগস্ট ২০২০, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৭ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

সন্তানকে অপরহণ করে হত্যা

বাবাসহ আটক ২

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২ জুলাই, ২০২০, ১২:০৩ এএম

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানার মাতুয়াইল এলাকা থেকে নিজের তিন বছর সাত মাস বয়সী ছেলে শিশু মাহিমকে অপহরণের পর হত্যার অভিযোগ উঠেছে এক পাষন্ড বাবার বিরুদ্ধে। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে বাবাসহ দুজনকে আটক করেছে র‌্যাব। গতকাল বিকালে রাজধানীর কাওরান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন করে এমন তথ্য জানান র‌্যাব ১০ এর অধিনায়ক অ্যাডিশনাল ডিআইজি মো. কাইয়ুমুজ্জামান খান। 

তিনি জানান, গত ২৭ জুন সাত বছরের শিশু মাহিমকে কে বা কারা অপহরণ করে। পরে ভিকটিমের বাবা যাত্রাবাড়ি থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে র‌্যাব ঘটনাটি তদন্তে নামে। পরে গত মঙ্গলবার এ ঘটনার সাথে জড়িত জুহেল ব্যাপারী নামের এক যুবককে আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে অপহরণের কথা স্বীকার করে এবং এ ঘটনার সাখে ভিকটিমের বাবা জুলহাস জড়িত বলে জানায়। পরে জুলহাস ওরফে ফারুক ওরফে গুন্ডাকে যাত্রাবাড়ীর মাতুয়াইল এলাকা থেকে আটক করা হয়। পরে তাদের আবার জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এ সময় তারা জানায়, ভিকটিমকে অপহরণ করে জুসের সাথে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে পান করে হত্যা করার কথা স্বীকার করে ঘাতকরা।
সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের ওই কর্মকর্তা জানান, ভিকটিমের পিতা জুলহাস আগে থেকেই যৌতুকের টাকা দাবি করে আসছিল। শুধু তাই নয়, পরবর্তীতে সে বিদেশ যাওয়ার জন্য চার লাখ টাকা দাবি করলে শ্বশুর পক্ষ থেকে টাকা না পেয়ে বিভিন্ন সময় স্ত্রীকে নির্যাতন করে আসছিল। পারিবারিক কলহ এবং শ্বশুর বাড়ি থেকে টাকা না পেয়ে ক্ষোভের বশবর্তী হয়ে নিজ সন্তানকে হত্যার জন্য প্রতিবেশী জুয়েলকে নিয়ে পরিকল্পনা করে। গত ২৬ জুন জুয়েল আটটি ঘুমের ওষুধ ক্রয় করে। পরে সেগুলো জুলহাসকে দেয়। পরে ২৭ জুন দুপুর সাড়ে ১২টায় জুয়েল ভিকটিমকে তার বাসার সামনে থেকে ফুসলিয়ে ভিকটিমের পিতার কাছে নিয়ে যায়। জুসের সাথে আটটি ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে পান করায়। এরপর তারা মৃত্যু নিশ্চিত হলে ওই দিন সন্ধ্যায় যাত্রাবাড়ী থানাধীন মাতুয়াইল মৃধাবাড়ী ময়লার ডিপো সংলগ্ন গ্রীন মডেল টাউন এলাকায় কাশবনের ভিতর বালু চাপা দিয়ে রেখে নিজ বাড়িতে চলে যায়। এরপর জুলহাস বাচ্চা অপহরণ হয়েছে গত ২৯ জুন যাত্রাবাড়ী থানায় একটি জিডি করে। জুলহাস বাচ্চা অপহরণ হয়েছে এটা প্রমাণ করার জন্য একই দিন জুয়েলকে দিয়ে মুক্তিপণ চেয়ে নিজের মোবাইলে একটি ম্যাসেজ পাঠায়। এবং ২৯ জুন ২০২০ তারিখ র‌্যাব-১০ এ এসে জিডি কপিসহ একটি অভিযোগ করে। তিনি আরো জানান, আটক দুইজনের বিরুদ্ধে যাত্রাবাড়ি থানায় একটি হত্যা মামলার দায়ের করা হচ্ছে। ওই মামলায় তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হত্যা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ