Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ২০ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

শুকনো খাবারে সোয়া কোটি টাকা গচ্চা

ত্রাণের জন্য হাহাকার অর্থবছর শেষ কেনাকাটা হয়নি এখনো

পঞ্চায়েত হাবিব | প্রকাশের সময় : ৩ জুলাই, ২০২০, ১২:০৪ এএম

দেশের বেশিরভাগ জেলায় বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হচ্ছে। ৫৩টি নদীতে পানি বাড়ছে, ৪৭টিতে কমছে এবং একটির স্থিতিশীল রয়েছে। ১৪টি স্টেশনে পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বন্যায় দেশের দশটি জেলা প্লাবিত হয়েছে। বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র থেকে জানানো হয়, দেশের ১৫টি পয়েন্টে পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

বন্যাসহ প্রাকৃতিক দুর্যোগে অসহায় হয়ে পড়া মানুষের সহযোগিতার জন্য আগের বছরই ১৭০ কোটি টাকার ঢেউটিন, শুকনো খাবার ও কম্বল ক্রয় করে সরকার। কিন্তু ২০১৯-২০২০ অর্থ বছর শেষ হলেও এই অর্থবছরের কেনাকাটা শেষ করতে পারেনি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। গত জানুয়ারিতে এসব কেনাকাটার জন্য টেন্ডার আহŸান করে সংশ্লিষ্ট অধিদফতর। কিন্তু বিধি বর্হিভ‚তভাবে ক্রয় কমিটির সভাপতি নিয়োগ দেয়ায় বাধ সাধে ত্রাণ মন্ত্রণালয়। এরপর আবারও টেন্ডার করা হয়। অধিদফতর ও মন্ত্রণালয়ের রশি টানাটানিতে বছর শেষ হয়ে গেলেও এখনো হয়নি কেনাকাটা।

এ বিষয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সচিব মো. মোহসিন গতকাল ইনকিলাবকে বলেন, কোনো কারণে নন রেসপনসিভ হলে তো কিছু করার থাকে না। দুই দিন আগে যোগদান করলেও এখনো এ বিষয়গুলো গুছিয়ে নিতে পারিনি। তারপর সরকারি টাকা যাতে ফেরত না যায় সে জন্য ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। নতুন করে টেন্ডার আহবান করা হয়েছে। আগামীতে ভালো কিছু করতে পারব।

দুর্যোগ মোকাবিলায় অসহায় মানুষের জন্য চলতি বছরের জানুয়ারিতে ৫টি প্যাকেজে ৭৫ কোটি টাকার ঢেউটিন ক্রয়ের দরপত্র আহŸান করে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতর। টেন্ডারে ৬টি প্রতিষ্ঠান দরপত্র দাখিল করে। গত ৩০ জানুয়ারি দরপত্র মূল্যায়ন কমিটির বৈঠকে ৬টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৫টি প্রতিষ্ঠানের নমুনা ঢেউটিনের বুয়েট কর্তৃক গুণগত পরীক্ষায় মান সঠিক না পাওয়ায় এবং দাখিলকৃত কাগজপত্র সঠিক না থাকায় মেসার্স উর্মি এন্টারপ্রাইজ, আলাল এগ্রো ফুড প্রডাক্টস, কর্ণফুলী গ্যালভানাইজিং মিলস লিমিটেড, মেসার্স জয় এন্ডারপ্রাইজ, মেসার্স সানজি ট্রেড ইন্টারন্যাশনালকে নন রেসপনসিভ করা হয়। আর ৫টি প্যাকেজেই কে,ওয়াই স্টিল মিলস লিমিটেডকে রেসপনসিভ করে মন্ত্রণালয়ে অনুমোদনোর জন্য পাঠানো হয়। কিন্তু বিধি বর্হিভ‚তভাবে ক্রয় কমিটি সভাপতি মনোনয়ন দেয়ায় সেই প্রস্তাব অনুমোদন করেনি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। এরই মধ্যে কয়েকদফা চিঠি চালাচালি হয় মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরের মধ্যে।

গত ৩০ মার্চ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব মো. শাহজাহান স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের ১৮ মার্চ ২০২০ তারিখে মহাপরিচালক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতর দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি গঠন সংক্রান্ত যে বক্তব্য প্রদান করেছেন তা যুক্তিসংগত এবং গ্রহণযোগ্য নয়। কারণ দরপত্রটি ৫০ কোটি টাকার ঊর্ধ্বে হওয়ায় বিষয়টি সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে উপস্থাপন যোগ্য। এই মন্ত্রণালয়ের ২০ নভেম্বর ২০১৯ তারিখে পিপিএ ২০০৬ এবং পিপিআর, ২০০৮ এর বিধি বিধান অনুযায়ী ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে ঢেউটিন ক্রয়ের স্পেসিফিকেশন এবং প্রশাসনিক অনুমোদন প্রদান করে এবং মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি হিসেবে যুগ্ম সচিব একেএম টিপু সুলতানকে দরপত্র মূল্যায়ন কমিটির সদস্য হিসেবে মনোনয়ন দেয়া হয়। কিন্তু মহাপরিচালক, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতর তাকে মূল্যায়ন কমিটির সভাপতি করে যা বিধি বর্হিভ‚ত। ২০০৬ এবং পিপিআর, ২০০৮ এর সংশ্লিষ্ট বিধি বিধান অনুযায়ী দরপত্র মূল্যায়ন করে প্রস্তাব মন্ত্রণালয়ে প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা হয়।
অন্যদিকে, শুকনা খাবার চাল, ডাল, লবন, চিনি, চিড়া, সয়াবিন তেল, নুডুলস এর জন্য ৫টি লটে দরপত্র আহবান করেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতর। গত ১ জুন দরপত্র খোলা হয়। এতে দেখা যায়, মেসার্স সরদার ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল ২টি লটে, মেসার্স সাম সিন্ডিকেট লিমিটেড ২টি লটে এবং বাকী ১টি লটে সফ টাচ নেটওর্য়াক নামের একটি প্রতিষ্ঠান সর্বনিম্নর দরদাতা হন।

এর মধ্যে ৬ নং প্যাকেজে সর্বনিম্ন দরদাতা মেসার্স সরদার ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল কে বাদ দিয়ে ২য় সর্বনিম্ন দরদাতা মেসার্স নওশী ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, ৮ নং প্যাকেজে সর্বনিম্ন দরদাতা মেসার্স সরদার ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল কে বাদ দিয়ে ২য় সর্বনিম্ন দরদাতা মেসার্স আলাল এগ্রোফুড প্রডাক্ট লিমিটেডকে কার্যাদেশ দেয়ার নির্দেশ দেয় মন্ত্রণালয়। সর্বনিম্ন দরদাতাকে কাজ না দিয়ে রাষ্ট্রের প্রায় সোয়া কোটি টাকা গচ্ছা যাচ্ছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

১১ আগস্ট, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন