Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ২২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

ঘরে বসে ‘সততা’ পরীক্ষার আয়োজন

টঙ্গীর দু’টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের করোনাকালীন ২ মাসের বেতন মওকুফ ঘোষণা

টঙ্গী সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২ জুলাই, ২০২০, ৬:০৩ পিএম

বৈশি^ক মহামারি করোনা ভাইরাসজনিত কারণে সকল ধরণের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারি সিদ্ধান্ত মোতাবেক বন্ধ থাকাকালীন গত ৪ মাসের মধ্যে ২ মাসের টিউশন ফি মওকুফ করেছে টঙ্গীর দু’টি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠান দু’টি স্কুল বন্ধ থাকাকালীন শিক্ষার্থীদের পড়াশুনা গতিশীল রাখতে অভিভাবকদের সহযোগিতায় ঘরে বসে দ্বিতীয় পার্বিক (সততা) পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী মরহুম প্রিন্সিপাল নূরুল হুদা কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত টঙ্গীর আউচপাড়াস্থ আল-হেলাল স্কুল এ্বং খাঁ-পাড়াস্থ আল-হেলাল একাডেমী কর্তৃপক্ষ অভিভাবকদের বর্তমান আর্থিক সংকট বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে স্কুল দু’টির নির্বাহি পরিচালক বিশিষ্ট সাংবাদিক ও বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) মহাসচিব এম. আবদুল্লাহ জানান।

গাজীপুর প্রাইভেট স্কুল এসোসিশেনের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও আল-হেলাল স্কুলের প্রধান শিক্ষক মুহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ বলেন, দেশে করোনা সংক্রমন শুরুর দিকে গত ১৭ মার্চ থেকে সারাদেশের স্কুল কলেজ বিশ^বিদ্যালয়সহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারি সিদ্ধান্ত মোতাবেক বন্ধ রয়েছে। বন্ধ থাকাবস্থায় আমাদের শিক্ষকরা যথাসাধ্য অনলাইনে ক্লাস করানোর চেষ্টা অব্যাহত রাখলেও সকল শিক্ষার্থীর বাড়িতে ইন্টারনেট সুবিধা না থাকায় অনলাইন ক্লাসে খুবই সীমিত সংখ্যক শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। এভাবে সীমিত পরিসরে অনলাইনে ক্লাস নেয়া সম্ভব হলেও সিলেবাস অনুযায়ী পরীক্ষা নিতে না পারায় অনলাইনের ক্লাস কিংবা বাড়িতে ব্যক্তিগত পড়াশুনায়ও আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে শিক্ষার্থীরা। অন্যদিকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শিক্ষকরাও রয়েছেন আর্থিক ও মানসিকভাবে চরম সংকটে। কারণ স্কুল বন্ধ থাকায় এবং লকডাউনের কারণে আয় রোজগার না থাকায় অভিভাবকরা সন্তানদের নিয়মিত বেতন পরিশোধ করতে পারছেন না। সব মিলিয়ে এই মুহুর্তে সামগ্রিক শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে অভিভাবক, শিক্ষক ও সচেতন ব্যক্তিবর্গ উদ্বেগ উৎকন্ঠায় রয়েছেন। এ অবস্থায় দু’মাসের টিউশন ফি মওকুফ করে এবং সরকারের নির্দেশনা বিবেচনায় নিয়ে ঘরে বসেই একটি পরীক্ষার ব্যবস্থা করা গেলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের পড়াশুনা সংক্রান্ত বিদ্যমান সংকট কিছুটা হলেও কমবে বলে আমরা মনে করি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ