Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ২২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

জানেন ভাতের মাড়ের রহস্য!

টাইমস অব ইন্ডিয়া | প্রকাশের সময় : ৩ জুলাই, ২০২০, ১২:০২ এএম

দেখতে হালকাপাতলা ও সুন্দর চেহারা কে না চায়? বিশেষ করে মেয়েদের লক্ষ্য থাকে যেভাবে হোক মোটা হওয়া যাবে না। আর এমন সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে খাবার তালিকায় অনেক পরিবর্তন করা হয়। বিশেষ করে মুটিয়ে যাওয়ার ভয়ে অনেকেই ভাত খাওয়া প্রায় ভুলতে বসেছেন।

স্বাস্থ্যসচেতন মেয়েদের অনেকেই ডায়েট কন্ট্রোল করছেন। বলতে গেলে তারা ভাত খাওয়া একেবারে বন্ধ করেছেন। কিন্তু ভাতের গন্ধ ভুলবেন কী করে? বাঙালিদের তো মগজে মিশে রয়েছে ভাত। তাই, এবার আপনাকেও কিন্তু ফিরতে হবে সেই ভাতের কাছে।
আপনি কি জানেন, ভাত যেমন মোটা করে দিতে পারে তেমনই আবার ত্বকের সৌন্দর্যও বাড়াতে পারে। নিশ্চয়ই ভাবছেন, এ আবার কীভাবে সম্ভব! চুল সৌন্দর্য অনেকটা বাড়িয়ে দেয় এবং করে আকর্ষণীয়। মাত্র অল্প সময়েই চুলের ঔজ্জ্বল্য বাড়াতে সাহায্য করে ভাতের মাড় বা ফ্যান।

বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ফেলা যায় ভাতের মাড়। ভাত ঝরঝরে করতে ভালো করে ভাতের মাড় ঝরিয়ে নেন সকলেই। এরপর সেটি ফেলে দেন সকলে। ত্বক থেকে চুলের যতেœ কাজে লাগিয়ে দেখুন ভাতের মাড়। ফল মিলবে ম্যাজিকের মতো। আসুন জেনে নেওয়া যাক দৈনন্দিনের নানা কাজে ভাতের মাড়ের আশ্চর্য সব ব্যবহার।
ভাতের ফ্যান ফেলে না দিয়ে আজ থেকে তা কাজে লাগান। কারণ, আপনার চুলের যতেœর জন্য ফ্যান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। যারা খুশকির সমস্যায় রয়েছেন, তারা প্রতিদিন ফ্যান দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। সপ্তাহখানেক ফ্যান ব্যবহার করলে আপনি ওই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে বাধ্য। এছাড়াও ফ্যানের সঙ্গে অ্যাভোকাডো দিয়ে মিশ্রণ তৈরি করতে পারেন। সুন্দর চুল পেতে ওই মিশ্রণ অবশ্যই কাজে লাগান।
কিন্তু কেমন করে ব্যবহার করবেন এই মাড়? গোসল করার সময় সবার আগে হালকা শ্যাম্পু দিয়ে চুল ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। এরপর ওই ভাতের ফ্যান বা মাড় ভালো করে ম্যাসাজ করুন। কমপক্ষে ১৫ মিনিট পর্যন্ত রেখে দিন। পরে পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে কমপক্ষে এক থেকে দুইবার ব্যবহার করুন। কয়েক মাসের মধ্যে আপনি নিজের ফলাফল পাবেন।

ভাতের ফ্যানে কার্বোহাইড্রেট অর্থাৎ ইনোসিটল থাকে যা চুলের ঘর্ষণকে হ্রাস করে গোড়া থেকে শক্তিশালী করে তোলে। এছাড়া এতে অনেক পুষ্টি উপাদান রয়েছে। যার কারণে চুল চকচকে করে তোলে। এর পাশাপাশি নমনীয়ও হয়ে ওঠে।

চুলের পাশপাশি ত্বকের ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করে এই ফ্যান। ভাতের মাড় ঠাÐা করে তুলা দিয়ে মুখের ও হাত-পায়ের রোদে পোড়া অংশে নিয়মিত মাখতে পারলে বাড়বে ত্বকের জেল্লা। এই পদ্ধতিতে ত্বকের যতœ নিতে পারলে ত্বক থাকবে সতেজ এবং বজায় থাকবে ত্বকের আর্দ্রতা। এছাড়াও ত্বকের হাইপার পিগমেন্টেশন আর ত্বকে বয়সের ছাপ পড়া ঠেকাতে ভাতের মাড় অত্যন্ত কার্যকরী।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভাত

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ