Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ২১ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

ঢাকা-৫ এ প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ

ইয়াছিন রানা | প্রকাশের সময় : ৩ জুলাই, ২০২০, ১২:০২ এএম

করোনার কারণে ঢাকা-৫ আসনের (ডেমরা, যাত্রাবাড়ী ও আংশিক কদমতলী) উপনির্বাচনের আনুষ্ঠানিকতা এখনো শুরু হয়নি। তবে থেমে নেই সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা। রাস্তাঘাট, দেয়ালে বিলবোর্ড ও পোস্টার টানিয়ে প্রার্থিতা জানান দিচ্ছেন কেউ কেউ। আবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।
অন্যদিকে, ঢাকার প্রবেশদ্বার খ্যাত ঢাকা-৫ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নিয়ে দলে নানারকম আলোচনা চলছে। প্রার্থী হিসেবে মরহুম হাবিবুর রহমান মোল্লার পরিবার থেকেই কাউকে বেছে নেয়া হবে নাকি নতুন মুখ আসবে, এ আলোচনা সর্বত্র। এ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন, যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী মনিরুল ইসলাম মনু, যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ মুন্না, মরহুম হাবিবুর রহমান মোল্লার ছেলে ডেমরা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান সজল, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার সাবেক সহকারী একান্ত সচিব ও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ড. আওলাদ হোসেন, ডেমরা থানা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও ঢাকা দক্ষিণের ৭০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আতিকুর রহমান আতিক, ব্যবসায়ী ও এশিয়ান টেলিভিশনের মালিক হারুন অর রশিদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কামরুল হাসান রিপন, আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিকবিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য ও শহীদ শেখ কামালের স্ত্রী শহীদ সুলতানা কামালের ভাইয়ের মেয়ে নেহরীন মোস্তফা দিশি। প্রার্থী হিসেবে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদের নামও শোনা যাচ্ছে। এ ছাড়া জাতীয় সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মীর আবদুস সবুর আসুদ, ১৪ দলের শরিক জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)-এর কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মো. শহীদুল ইসলাম প্রচারণা চালাচ্ছেন।

গত নির্বাচনে হাবিবুর রহমান মোল্লা এবং কাজী মনিরুল ইসলাম মনু দুইজনই দলের মনোনয়ন পেয়েছিলেন। পরে হাবিবুর রহমান মোল্লাকে দল বেছে নেয়। তাই এবার মনিরুল ইসলাম দলের মনোনয়নের ব্যাপারে বেশি আশাবাদি। তিনি ইনকিলাবকে বলেন, ‘গতবার দলের মনোনয়ন পেয়েছিলাম কিন্তু দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার নির্দেশে নির্বাচন করিনি। এবার মনোনয়নের বেশি হকদার আমি। আমি বিশ^াস করি নেত্রী আমাকে মনোনয়ন দেবেন।’ কাজী মনিরুল ইসলাম মনু ডেমরা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতিও ছিলেন। এছাড়া ঢাকা সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচনে তিনি ওয়ার্ড কমিশনার নির্বাচিত হয়েছিলেন।

যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ মুন্না বৃহত্তর ডেমরা থানা আওয়ামী লীগেরও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তিনি ইনকিলাবকে বলেন, গণতান্ত্রিক আন্দোলনসহ নেত্রীর মুক্তির দাবিতে প্রতিটি আন্দোলনে আমি সক্রিয় থেকেছি। নেত্রীর নির্দেশ বাস্তবায়ন করেছি। ৬৪টি মামলা ছিল আমার নামে, অসংখ্যবার জেলে যেতে হয়েছে। দল আমাকে মনোনয়ন দেবে বলে আশা করি।

এদিকে, অতীতে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে দেখা গেছে, মৃত্যুবরণকারী সংসদ সদস্যের পরিবারের একজনকে দলের মনোনয়ন দেবার প্রবণতা বেশি। সে হিসেবে জনপ্রিয় সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লার ছেলে ডেমরা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান মোল্লা সজল নির্বাচনে দলের মনোনয়নের বিষয়টি বেশি আলোচনা হচ্ছে। মশিউর রহমান মোল্লা সজল ইনকিলাবকে বলেন, বাবা দীর্ঘদিন আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। চারবারের এমপি ছিলেন। প্রতিটি ঘরের খবর তিনি রাখতেন। সবার বিপদে আপদে পাশে ছিলেন। তিনি বলেন, আমার অভিভাবক, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার প্রতি পূর্ণ আস্থা আছে। নেত্রী, আমাকে মনোনয়ন দিলে বাবার কাজকে এগিয়ে নিয়ে যাব ইনশাআল্লাহ।

ডেমরা থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৭০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আতিকুর রহমান আতিক ডেমরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তার ভাই, বাবা, দাদা এই এলাকার জনপ্রতিনিধি ছিলেন। এলাকার উন্নয়নে এখন বেশ ভাল ভূমিকা রাখছেন আতিক। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দুইবারের কাউন্সিলর হিসেবে এলাকায় ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করেছি। দলের মনোনয়ন পেলে ঢাকা-৫ আসনকে মডেল হিসেবে গড়ে তোলা হবে।
আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার সাবেক সহকারী একান্ত সচিব ড. আওলাদ হোসেন বলেন, রাজনীতি করছি মানুষের সেবা করার জন্য। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যদি দলের মনোনয়ন দেন তাহলে মানুষের সেবা করার পরিধি বেড়ে যাবে।

ঢাকা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কামরুল হাসান রিপন ইনকিলাবকে বলেন, নেত্রীর তরুণ নেতৃত্বের পছন্দের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নের বিষয়ে আমি আশাবাদী। জগন্নাথ বিশ^বিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রিপন এক এগারোর সময় দলীয় প্রধানের মুক্তি আন্দোলনে ভাল ভূমিকা রেখেছিলেন। করোনা পরিস্থিতিতে প্রতিদিনই ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করছেন, প্রত্যেক ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে কাজ করছেন।

এশিয়ান গ্রæপ, এশিয়ান টেলিভিশনের চেয়ারম্যান ও বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের জাতীয় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব হারুন উর রশীদ বলেন, কিভাবে উন্নয়ন করতে হয় একজন ব্যবসায়ী হিসেবে আমি ভাল জানি। দলের মনোনয়ন পেলে সুবিধাবঞ্চিত ডেমরা-যাত্রবাড়ী জনমানুষের ভাগ্যোন্নয়নে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখবেন বলে আশা প্রকাশ করেন।

নেহরীন মোস্তফা দিশি ইনকিলাবকে বলেন, আমার পরিবারের সদস্যরা ঐতিহ্যগতভাবেই ঢাকা-৫ এর উন্নয়নের সাথে জড়িত। আমিও বিগত কয়েক বছর থেকে এলাকার মানুষের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছি। করোনার মধ্যে গরীব দুঃখীদের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ, পরিবহন শ্রমিকদের সহায়তা, পিপিই প্রদানসহ নানা ভাবে জনগণের পাশে থেকেছি। দলের মনোনয়নের বিষয়ে আশাবাদি তিনি।

জাতীয় সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জাতীয় যুব সংহতির সাবেক সভাপতি আবদুস সবুর আসুদ ২০০৮ ও ২০১৪ সালে দলের মনোনয়ন চেয়েছিলেন। এবার উপনির্বাচনেও তিনি মনোনয়ন পাবেন বলে প্রত্যাশা করেন। মীর আবদুস সবুর আসুদ ইনকিলাবকে বলেন, আমি দীর্ঘদিন ধরে জাতীয় পার্টির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। আশা করি এই আসনটি মহাজোটকে ছেড়ে দেওয়া হবে। জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়ে এলাকার মানুষের কল্যাণে কাজ করে যেতে চাই।

জাসদের সহ-সভাপতি মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘদিন এলাকায় মানুষের সুখে-দুঃখে কাজ করে যাচ্ছি। আশা করি এবার জোটগতভাবে আমাকেই মনোনয়ন দেওয়া হবে। মনোনয়ন পেলে জয়লাভের বিষয়ে শতভাগ আশাবাদি শহীদুল ইসলাম বলেন, এলাকার মাদক নিয়ন্ত্রণ, ভূমি দখল বন্ধ করা, জলাবদ্ধতা নিরসনসহ উন্নয়নের ক্ষেত্রে মডেল আসন হিসেবে গড়ে তোলার চেষ্টা করবো।

 

 



 

Show all comments
  • মোঃফখরুজ্জামান রাসেল ৩ জুলাই, ২০২০, ১০:৪৬ এএম says : 0
    সাংগঠনিক ও দীর্ঘ সময় এই অঞ্চলের জন্য নিবেদিত ও পরিক্ষীত ব্যাক্তিকে মনোনয়ন দেওয়া উচিৎ।
    Total Reply(0) Reply
  • কামাল রাহী ৩ জুলাই, ২০২০, ১:২৬ এএম says : 0
    করোনার মধ্যে নির্বাচন বন্ধ রাখা হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ তোফায়েল হোসেন ৩ জুলাই, ২০২০, ১:২৭ এএম says : 0
    মানুষের জীবনের থেকে নির্বাচন বড় কিছু না। তাই উচিত হবে এই পরিস্থিতির মধ্যে ভোট না দেয়া।
    Total Reply(0) Reply
  • সজল মোল্লা ৩ জুলাই, ২০২০, ১:২৮ এএম says : 0
    ক্ষমতা ও পদের লোভ মানুষের কখনও যাবে না। জীবনের থেকে কারোর কাছে পদ পদবী অনেক বড় কিছু।
    Total Reply(0) Reply
  • বিবেক ৩ জুলাই, ২০২০, ১:২৮ এএম says : 0
    করোনার মধ্যে দৌঁড়াঝাপ বন্ধ করা হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ শান্তনূর খান ৩ জুলাই, ২০২০, ১০:১৮ এএম says : 0
    আতিক সাহেব ডেমরা থানার কোন পদে নেই,তার ভাই ডেমরা থানার বিএনপির সভাপতি।।সজল মোল্লাদের অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ।।।রিপন,দিশি নবাগত।।তাদের কোন ত্যাগ নেই এই এলাকার মানুষের জন্য তাদের কোন ত্যাগ নেই।।।।।
    Total Reply(0) Reply
  • ইফতিয়ার মাহমুদ ৩ জুলাই, ২০২০, ১১:০৬ এএম says : 0
    হারুনর রশীদ মুন্না ভাই ঢাকা-৫ আওয়ামীলীগের প্রানভোমরা,যার নেতৃত্বে/হাতধরেই সেই ১৯৯৬সাল থেকে ঢাকা-৫ আওয়ামীলীগ সুসংগঠিত রয়েছে ।
    Total Reply(0) Reply
  • ইফতিয়ার মাহমুদ ৩ জুলাই, ২০২০, ১১:০৬ এএম says : 0
    হারুনর রশীদ মুন্না ভাই ঢাকা-৫ আওয়ামীলীগের প্রানভোমরা,যার নেতৃত্বে/হাতধরেই সেই ১৯৯৬সাল থেকে ঢাকা-৫ আওয়ামীলীগ সুসংগঠিত রয়েছে ।
    Total Reply(0) Reply
  • ফয়সাল আহমেদ লিংকন ৩ জুলাই, ২০২০, ২:২৩ পিএম says : 0
    অভিজ্ঞত, দীর্ঘ লড়াই সংগ্রাম এর রাজনীতির বয়স বিবেচনায় বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী মনিরুল ইসলাম মনু ভাই এর চেয়ে যোগ্য কেউ নেই। ক্ষমতার খুব কাছাকাছি থেকেও দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে কাজী মনু ভাই এর কোন অপরিচ্ছন্ন ইমেজ নেই।মনু ভাই সবার সেরা ও যোগ্য প্রার্থ। আর তাছাড়া মোল্লা সাহেব জীবিত থাকা অবস্থাতেই নেত্রী ঢাকা-০৫ কে নিয়ে তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানিয়ে দিয়েছেন সো বিতর্ক করে লাভ নাই
    Total Reply(0) Reply
  • abul bashar babu ৩ জুলাই, ২০২০, ২:৫৮ পিএম says : 0
    ক্ষমতার খুব কাছে থেকেও কোন প্রকার দূর্নীত,চাদাবাজি,জমি দখলের বিন্দুমাত্র অভিযোগ নেই বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী মনিরুল ইসলাম মনু ভাই বা তার পরিবারের কারো বিরুদ্ধে। রাজনৈতিক জীবনে বার বার কারাবরন কারী এবং কর্মিদের সংগঠিত করার পুরষ্কার হিসাবে ডেমরা ও যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি নির্বাচিত করেছেন প্রিয় নেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা। বিগত সংসদ নির্বাচনে দল থেকে নমিনেশন পাওয়ার পরেও প্রিয় নেত্রীর আদেশ অমান্য না করায় উপ নির্বাচনে মনু ভাইয়ের বিকল্প অন্য কেউ হতে পারে না। আতিক কোন সময়েই আওয়ামীলীগের কোন পর্যায়ের নেতা দূরে থাক কর্মি পর্যন্ত ছিলো না। তার বড় ভাই ডেমরা থানা বি,এন,পির সভাপত। দিশির ঢাকা -৫ এর রাজনিতীর বয়স ১ বছর হয়নি। রিপন বা দিশি ঢাকা - ৫ এর এরিয়া কতোটুকু তা ঠিক ভাবে জানে কিনা সন্দেহ আছে। সজল মোল্লা বা তার পরিবারের সদস্যদের সম্পর্কে জানতে চাইলে ঢাকা -৫ এর অর্থনৈতিক জোন গুলোতে খবর নিলে তাদের সম্পর্কে জানা যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • আসিফ মোল্লা ৩ জুলাই, ২০২০, ১১:২৫ পিএম says : 0
    অবাক হই যখন দেখি আওয়াঃ মনোনয়ন পেতে এমন এমন লোক দৌড়ঝাঁপ করছে, যাদের রাজনৈতিক জীবন শুরু আওয়ামীঃ ক্ষমতায় আসার পর, আরো অবাক হই তারা যখন সিনিয়র দের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করে হলুদ সাংবাদিকদের মাদ্ধমে অর্থের বিনিময়ে, এমনো প্রার্থী ঢাকা-৫ আসনের এরিয়া সম্মন্ধে তারা অজ্ঞ তাদের জানা নাই, আমার প্রশ্ন তারা কি বুঝবে? আওয়ামীঃ কর্মিদের কষ্ট, না বলতে পারা ভিতরের আত্বচিৎকার হাহাকার দুক্ষ দূরদসা? যিনি সারা জীবন ঢাকা ৫ এর আওয়াঃ কর্মীদের সাথে ঢাকা ৫ এর মানুষের সাথে ছিলেন তাকেই আওয়াঃ মনোনয়ন দেয়া উচিৎ, এ হিসেবে কাজী মনিরুল ইসলাম মনু ভাই ঢাকা ৫ এর আওয়াঃ কর্মীদের নিবেদিত প্রান, এবং এই মুহূর্তে ঢাকা ৫ এর আওয়াঃ থেকে একমাত্র দাবিদার বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী মনিরুল ইসয়াম মনু ভাই, ইন্সা-আল্লাহ বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা কাজী মনু ভাইকেই ঢাকা ৫ এর মনোনয়ন দিবেন
    Total Reply(0) Reply
  • রাকিবুল! ৪ জুলাই, ২০২০, ৮:১৩ এএম says : 0
    মনিরুল ইসলাম মনু চমৎকার এবং ক্লিন ইমেজের একজন সচ্ছ মানুষ! আমি ব্যাক্তিগতভাবে মনু সাহেবকে বেছে নেবো!
    Total Reply(0) Reply
  • মাহমুদুল হাসান সজল ৪ জুলাই, ২০২০, ৭:৪০ এএম says : 0
    ঢাকা 5 আসনের উপনির্বাচনে আমরা চাই যিনি সবসময় পরিচ্ছন্ন সৎ মনমানসিকতার রাজ থেকো যাচ্ছে এমন ব্যক্তিত্বসম্পন্ন এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করছেন এমন প্রার্থীকে মনোনীত করা হোক
    Total Reply(0) Reply
  • Mir Rahman ৪ জুলাই, ২০২০, ৫:১৮ পিএম says : 0
    নেহরীন মোস্তফা দিশি আপু... ঢাকা-৫ এর জন্য যোগ্য একজন প্রার্থী...। তাকে নির্বাচিত করা হলে ঢাকা-৫ উন্নয়নের রোল মডেল হতে বেশি সময় লাগবে না.... (ইনশাআল্লা)।
    Total Reply(0) Reply
  • Dm.jany ৯ জুলাই, ২০২০, ৩:০১ পিএম says : 0
    ক্ষমতার খুব কাছে থেকেও কোন প্রকার দূর্নীত,চাদাবাজি,জমি দখলের বিন্দুমাত্র অভিযোগ নেই বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী মনিরুল ইসলাম মনু ভাই বা তার পরিবারের কারো বিরুদ্ধে। রাজনৈতিক জীবনে বার বার কারাবরন কারী এবং কর্মিদের সংগঠিত করার পুরষ্কার হিসাবে ডেমরা ও যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি নির্বাচিত করেছেন প্রিয় নেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা। বিগত সংসদ নির্বাচনে দল থেকে নমিনেশন পাওয়ার পরেও প্রিয় নেত্রীর আদেশ অমান্য না করায় উপ নির্বাচনে মনু ভাইয়ের বিকল্প অন্য কেউ হতে পারে না। আতিক কোন সময়েই আওয়ামীলীগের কোন পর্যায়ের নেতা দূরে থাক কর্মি পর্যন্ত ছিলো না। তার বড় ভাই ডেমরা থানা বি,এন,পির সভাপত। দিশির ঢাকা -৫ এর রাজনিতীর বয়স ১ বছর হয়নি। রিপন বা দিশি ঢাকা - ৫ এর এরিয়া কতোটুকু তা ঠিক ভাবে জানে কিনা সন্দেহ আছে। সজল মোল্লা বা তার পরিবারের সদস্যদের সম্পর্কে জানতে চাইলে ঢাকা -৫ এর অর্থনৈতিক জোন গুলোতে খবর নিলে তাদের সম্পর্কে জানা যাবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নির্বাচন

২১ জুলাই, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ