Inqilab Logo

ঢাকা, রবিবার, ০৯ আগস্ট ২০২০, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৮ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

মাতাল অবস্থায় অস্ত্র নিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়লো বিএসএফ সদস্য

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ জুলাই, ২০২০, ১১:৩৬ এএম

ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) এক সদস্যকে অস্ত্রসহ মাতাল অবস্থায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটে বাংলাদেশের ভূখ-ে ঢুকে পড়েন। এরপর স্থানীয় জনতা তাকে আটকে চাঁনশিকারী বিজিবি ক্যাম্পে হস্তান্তর করেন। আটকের ৬ ঘণ্টা পর তাকে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ফেরত দিয়েছে বিজিবি। শুক্রবার (৩ জুলাই) দুপুরের এ ঘটনায় সন্ধ্যায় তাকে ফেরত দেওয়া হয়।

এলাকাবাসী জানান, শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে আলিপুর বিএসএফ ক্যাম্পের সদস্য আসাদ অস্ত্রসহ ভারত সীমান্ত পার হয়ে চাঁনশিকারী বিজিবি ক্যাম্পের পশ্চিম পাশ দিয়ে বাংলাদেশ অভ্যন্তরে প্রবেশ করতে থাকলে স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। এ সময় তারা ওই বিএসএফ সদস্যকে আটকে চাঁনশিকারী বিজিবি ক্যাম্পে হস্তান্তর করেন। এসময় তিনি মদ খেয়ে মাতাল অবস্থায় ছিলেন। আটককৃত আসাদ আলী ভারতের ৪৪ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের আলিপুর ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্য।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৫৯ বিজিবি’র রহনপুর ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মাহমুদুল হাসান প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট উপজেলার চাঁনশিকারী সীমান্তে মেইন পিলার-১৯৮/১-এস এর নিকট হতে আনুমানিক ৫০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে আমবাগানে ৪৪ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের একজন সদস্যকে অস্ত্রসহ দেখতে পায় স্থানীয়রা। পরবর্তীতে উক্ত অসামরিক ব্যক্তি বিএসএফ সদস্যকে আটক করে ৫৯ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের চাঁনশিকারী বিওপির নিকট হস্তান্তর করে। চাঁনশিকারী বিওপি উক্ত বিএসএফ সদস্যকে অস্ত্রসহ শারীরিক সুস্থতা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়।

পরে সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে দুই দেশের পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ৪৪ বিএসএফ ব্যাটালিয়ন কমান্ড্যান্টের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।



 

Show all comments
  • SAYEF UDDIN MAHMUD ৪ জুলাই, ২০২০, ১:৩৭ পিএম says : 0
    It will be just opposite if any Bangladeshi boarder guard enter the India. First there must be body torture, then terrorist jail and any others.
    Total Reply(0) Reply
  • Md Alomgir Hossain ৫ জুলাই, ২০২০, ১২:৫৫ পিএম says : 0
    এটা ভারতের একজন গুপ্তচর হিসেবে ঢুকতে চেষ্টা করেছিলো কিনা তা ভালোভাবে ক্ষতিয়ে দেখার বিষয় ছিলো। বর্তমানে ভারতীয় দের কৌশল বুঝতে হবে।এটা বাংলাদেশের সামরিক বাহিনির ভাবমূর্তি লক্ষ্য করার জন্য হয়তো ছদ্যবেশে পাটিয়েছিল কিনা তা তদন্ত করে দেখার বিষয় ছিল।বাংলাদেশের একজন মানুষী কেও তারা ছাড়েনা আর বাংলাদেশের বিজিবি তাদের কেনো ছাড়লো।তারা মানুষ আমাদের বাংলাদেশের মানুষ কি মানুষ না!
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিএসএফ


আরও
আরও পড়ুন