Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ২১ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

রাজশাহী বিভাগে নতুন করে করোনা সংক্রমিত ২১৬, মৃত্যু,৭

রাজশাহী ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৪ জুলাই, ২০২০, ১:৪৫ পিএম

রাজশাহী বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় আট জেলায় করোনাভাইরাস সংক্রমণ ও মৃত্যু আরও বেড়েছে। নতুন করে ২১৬ জনের নমুনায় করোনা পাওয়া গেছে করোনাভাইরাস। এছাড়া সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন আরও ১৭ জন এবং মারা গেছেন ৭ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী।
শনিবার সকাল পর্যন্ত রাজশাহী বিভাগে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৫৮৯ জনে। এ বিভাগে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৯৪ জন এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১৭৯৬ জন। শনিবার দুপুরে এক প্রতিবেদনে রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তারের পরিচালক ডা. গোপেন্দ্র নাথ আচার্য্য এ তথ্য জানান।
তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্তের মধ্যে রাজশাহীর ৭৯ জন, নওগাঁর ২ জন, জয়পুরহাট ২২ জন, বগুড়ায় ৪৭ জন, সিরাজগঞ্জে ৬৬ জন। তবে বিভাগের অপর জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নাটোর ও পাবনায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কোন রোগি শনাক্ত হয়নি বলে তিনি জানান।
ডা. গোপেন্দ্র জানান, রাজশাহী বিভাগে এ পর্যন্ত ৬৫৮৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ বগুড়ায় ৩২৪৬ জন আক্রান্ত। এছাড়াও মহানগরীতে ৭২৬ জনসহ রাজশাহী জেলায় ৯৮৯ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১০১ জন, নওগাঁয় ৫৪২ জন, নাটোরে ২১৫ জন, জয়পুরহাটে ৪৫১ জন, সিরাজগঞ্জে ৫৯৭ জন ও পাবনায় ৪৪৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।
তিনি বলেন, সরকারি হিসেবে এ পর্যন্ত বিভাগের আট জেলার মধ্যে ছয় জেলায় মৃতের সংখ্যা ৯৪ জন। এর মধ্যে রাজশাহীতে ১০ জন, নওগাঁয় সাতজন, নাটোরে একজন, বগুড়ায় ৬০ জন, সিরাজগঞ্জে আটজন ও পাবনায় আটজনের মৃত্যু হয়েছে করোনাভাইরাসে। সরকারি হিসেবে এখনো জয়পুরহাট ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে কোন করোনা আক্রান্ত রোগি মারা যায়নি।
গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ্য হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন আরও ১৭ জন। এ নিয়ে বিভাগে সুস্থ্য হয়েছেন ১৭৯৬ জন করোনা আক্রান্ত রোগি। এর মধ্যে রাজশাহীর ১৪৫, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৬১ জন, নওগাঁয় ৩০৫ জন, নাটোরে ৬৬ জন, জয়পুরহাট ১৫১ জন, বগুড়ায় ৮৬০ জন, সিরাজগঞ্জ ৬৬ জন ও পাবনায় ১৪২ জন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনা


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ