Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ২০ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

আমেরিকা দ্রুত আফগানিস্তান থেকে সেনা সরিয়ে নিচ্ছে : ইকোনোমিস্টের প্রতিবেদন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ জুলাই, ২০২০, ৪:০৮ পিএম

দ্য ইকোনোমিস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, আমেরিকা দ্রুত আফগানিস্তান থেকে সেনা সরিয়ে নিচ্ছে। সাব হেডে বলা হয়েছে, আগে সেনা প্রত্যাহার করুন, তারপর প্রশ্ন। বলা হয়েছে, তারা যে দেশকে পিছনে ফেলে যাচ্ছে, তার ভবিষ্যত আগের চেয়ে আরও অনিশ্চিত।

আজ ৪ জুন প্রকাশিত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, আফগানিস্তানকে তালেবানরা শাসন করার সময় ফাইজা ইব্রাহিমি খুব ছোট। সে সম্পর্কে তার বাবা-মা'র গল্পগুলোকে খুব কমই বিশ্বাস করতে পারে। তিনি পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর হেরাতে রেডিওর উপস্থাপিকা। পুরোপুরি পর্দা না করে এবং কোনও পুরুষ আত্মীয়ের সাথে না আসলে গ্রামাঞ্চলের বন্দুকধারীরা নারীদের বাড়ি ছাড়তে নিষেধ করতেন, এমন ধারণা প্রায় অকল্পনীয় বলে মনে হয় না : ‘আমার মা কাজ করতে এবং রুটি খুঁজতে অক্ষম ছিলেন।’ আমি আর সেই সময়টি ভাবতে পারিনি।

উল্লেখ্য, ২০০১ সালে তালেবানরা যখন ১১/১১-এর হামলার পরে ওসামা বিন লাদেনকে হস্তান্তর করতে অস্বীকার করেছিলেন, তখন আমেরিকান সেনাবাহিনী তালেবান সরকারকে পরাস্ত করেছিল। তবে জনসংখ্যার প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ ২৫ বছরেরও কম বয়সী এবং তাই তালেবানদের শাসনের খুব কম বা স্মরণ নেই। তালেবানরা যে কোনও রূপে ক্ষমতায় ফিরে আসার সম্ভাবনা নিয়ে চিন্তাভাবনা করছে, ততই তারা তাদের ইতিহাস নিয়ে আলোচনা করতে থাকবে। যে আমেরিকান সেনারা আফগান সরকারের উত্থান করিয়েছে এবং বিগত ১৯ বছর ধরে তালেবানদের পৃষ্ঠপোষকতা করে এসেছে, তারা বেরিয়ে যাচ্ছেন। গত চার মাস ধরে দেশে আমেরিকান সেনার সংখ্যা তৃতীয় ধাপে কমেছে। প্রায় ১৩ হাজার থেকে ৮ হাজার ৬শ হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন তাদের শক্তি আরও হ্রাস করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

গত ২৯ ফেব্রুয়ারি তালেবানদের সাথে স্বাক্ষরিত একটি চুক্তির অংশ হিসাবে সরিয়ে নেয়া হচ্ছে সেনাদের। এর বদলে তালেবানরা আফগানিস্তানের বাইরের সেনাদের আশ্রয় দেওয়া বন্ধ করে দেওয়ার কথা বলেছে এবং শান্তি পরিকল্পনার অংশ, যা খুব কম সময়ের মধ্যে আফগান সরকারের সাথে আলোচনায় আসে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ